১২ আষাঢ় ১৪২৪, মঙ্গলবার ২৭ জুন ২০১৭ , ৪:২১ পূর্বাহ্ণ

diamond world

আইভী-শামীম ওসমানের আইসক্রিম অধ্যায় শেষ!


|| নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:২৩ পিএম, ১০ জানুয়ারি ২০১৭ মঙ্গলবার | আপডেট: ০৫:৪৮ পিএম, ১৩ জানুয়ারি ২০১৭ শুক্রবার


আইভী-শামীম ওসমানের আইসক্রিম অধ্যায় শেষ!

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অনেক নাটকীয়কতার মধ্যে একটি ছিল নৌকা প্রতীকে সেলিনা হায়াৎ আইভীর বিজয়ের পর তাঁকে ‘জরিমানা’ করে আইসক্রীম খাবেন এমপি শামীম ওসমান। সংবাদ সম্মেলন করে অনেকটা ঘটা করেই সে কথা শামীম ওসমান বললেও আইসক্রীম খাওয়ার অধ্যায়ের আপাতত সমাপ্তি ঘটতে যাচ্ছে। কারণ শামীম ওসমানের ভাষ্যমতে, আইভীর বিজয়ের পর গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সামনে আইসক্রীম খাওয়ার সেই জরিমানার কাজটি সারবেন তিনি। কিন্তু ২২ ডিসেম্বর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের পর এখন পর্যন্ত দৃশ্যমান প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে স্ব দলবলে দুইবার দেখা করলেও সেখানে দেখা মেলেনি শামীম ওসমানের।

এখন পর্যন্ত দুইবার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আইভীর সাক্ষাৎ ও শপথ পর্বও সম্পন্ন হয়েছে। আর ৯ জানুয়ারী সোমবার আইভী নিয়েছেন সিটি করপোরেশনের দায়িত্ব।

এদিকে আইসক্রীম ইস্যুতে গত কয়েকদিন ধরেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকে বিষয়টি নিয়ে বেশ আলোচনা ছিল যা এখন অনেকটাই হারিয়ে যেতে বসেছে। ২২ ডিসেম্বর নির্বাচনের পর থেকেই নারায়ণগঞ্জবাসীর কৌতুহল ছিল সে আইসক্রীম ইস্যুতে। তাঁদের ধারণা ছিল যাই ঘটুক অন্তত শামীম ওসমান ও আইভীর সেই আইসক্রীম খাওয়া নিয়ে বড় ধরনের কোন পজেটিভ থাকতে পারে নারায়ণগঞ্জের রাজনীতিতে।

দিন যত যাচ্ছে ততই আইসক্রীম খাওয়ার ইস্যুতে চাপা পড়ে যাচ্ছে। কারণ ২২ ডিসেম্বর নির্বাচনের পরদিনই সকালেই পরাজিত বিএনপির মেয়র প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খানের বাসায় মিষ্টি নিয়ে যান সেলিনা হায়াৎ আইভী। মিষ্টি বিনিময়ের পর সেদিন রাতেই গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেন আইভী। সঙ্গে যান স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতারাও। গণমাধ্যমের ছবিতে দেখা গেছে সেখানে আইভীকে জড়িয়ে ধরেন আইভী দেন মাতৃ¯েœহ। আইভীর প্রশংসা শোনা যায় প্রধানমন্ত্রীর কণ্ঠে।

সেদিন গণভবনেই শামীম ওসমান নিজেই প্রতিশ্রুত মোতাবেক জরিমানা করে আইসক্রীম খাওয়া হবে সেটাও ধারণা ছিল সকলের। সবার দৃষ্টি ছিল শামীম ওসমানের উপস্থিতি। কিন্তু শেষতক ওই অনুষ্ঠানে শামীম ওসমান ছিলেন না। ফলে আইসক্রীম খাওয়ার পর্বটিও হয়নি।

গত ৯ ডিসেম্বর শামীম ওসমান সংবাদ সম্মেলন করে ২২ ডিসেম্বর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের বিজয় ঘটবে দৃপ্ত কণ্ঠে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন। সেই সঙ্গে বলেন, ‘নির্বাচনে আইভীর জয়ের পর আমি নেত্রীর সামনে গিয়ে আইভীকে একটি ফাইন করবো। আমি আইসক্রিম খেতে ভালোবাসি। আমার ছোটবোন আইভীকে সেদিন আমি আইসক্রিম খাওয়াতে ফাইন করবো।’

ওই সংবাদ সম্মেলনে আইভীকে নৌকা খচিত দুটি শাড়ি উপহার হিসেবে পাঠানোর আগে গণমাধ্যমের মাধ্যমে প্রদর্শন করেন। যদিও আইভীকে সে শাড়ি এখনো পড়তে দেখা যায়নি।

এদিকে সবশেষ গত ৫ জানুয়ারী প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয় সিটি করপোরেশন নির্বাচনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী সহ আরো ৩৬জন কাউন্সিলরের শপথ। ওই অনুষ্ঠানে শামীম ওসমানে বড় ভাই নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের এমপি সেলিম ওসমান, নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের এমপি নজরুল ইসলাম বাবু থেকে শুরু করে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল হাই, মহানগরের সভাপতি আনোয়ার হোসেন সহ নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। ওই অনুষ্ঠানে সেলিম ওসমানের সঙ্গে আইভীকে বেশ কিছুক্ষণ কথা বলতে দেখা গেছে। সেদিন রাতে শামীম ওসমানকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে দেখা যায়নি।

গত ৩ জানুয়ারী এমপি সেলিম ওসমান এক সভায় বলেন, আইভীকে আমি ¯েœহ করি আর মেয়র পদকে সম্মান করি। আইভীর সঙ্গে আমার কোন ধরনের বিরোধ ছিল না। আমি আইভী ও শামীম ওসমান সহ সকল জনপ্রতিনিধিদের বলবো অতীত মান অভিমান ভুলে আসুন একসঙ্গে উন্নয়নের জন্য কাজ করি।

ওই বক্তব্যের দুইদিনের মাথায় ৫ জানুয়ারী প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে সেলিম ওসমান ও আইভীকে দেখা গেছে। দুইজন মিলে প্রধানমন্ত্রীর সাথে ছবিও তুলেছেন। কথা বলেছেন নানা বিষয়ে। এখানে উল্লেখ্য, সিটি করপোরেশন নির্বাচনের আগে সেলিম ওসমানের কাছে ফোন করে দোয়া চেয়েছিলেন আইভী। গত ১৫ ডিসেম্বর আইভী তাঁর ফোনে ওই দোয়া চান সেলিম ওসমানের কাছে যেটা ১৯ ডিসেম্বর সংবাদ সম্মেলন করেই জানান।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ