১১ বৈশাখ ১৪২৪, মঙ্গলবার ২৫ এপ্রিল ২০১৭ , ১:০৭ পূর্বাহ্ণ
bangla fonts
facebook twitter google plus rss
Laisfita

জেএসসিতে নারায়ণগঞ্জের সকল স্কুলের ফলাফল


০৪ জানুয়ারি ২০১৭ বুধবার, ০২:০৯  পিএম

নিউজ নারায়ণগঞ্জ


জেএসসিতে নারায়ণগঞ্জের সকল স্কুলের ফলাফল

নারায়ণগঞ্জে জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষায় ৪২ স্কুলে শতভাগ উত্তীর্ণ হয়েছে। বৃহস্পতিবার ২৯ ডিসেম্বর ঘোষিত ফলাফলে এ তথ্য জানা গেছে। এবার নারায়ণগঞ্জ জেলায় ১৭৬ স্কুলের ৩৯হাজার ৬০৭ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন। বিপরীতে পাশ করে ৩৬ হাজার ৫১২জন। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪ হাজার ১৪২ জন। পাশের হার ৯২.১৯।

নারায়ণগঞ্জ সদর
ফতুল্লা পাইলট স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৭৬৬ উত্তীর্ণ হয়েছে ৭৩৩ জন। পাশের হার ৯৫ দশমিক ৬৯। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৪২ জন। নারায়ণগঞ্জ আদর্শ স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৫১৩ জন। উত্তীর্ণ হয়েছে ৫০৬। পাশের হার ৯৮ দশমিক ৬৪। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৯৭ জন। নারায়ণগঞ্জ সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে পরীক্ষার্থী ছিল ৩৫৭। উত্তীর্ণ হয়েছে ৩৫৭। পাশের  হার শতভাগ। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২৬৭ জন। হরিহরপাড়া হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৬৪২ জন। উত্তীর্ণ হয়েছে ৫২৬। পাশের হার ৮১ দশমিক ৯৩। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১৮ জন। আলীগঞ্জ হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ১৫০ জন। উত্তীর্ণ হয়েছে ১৪৩। পাশের হার ৯৫ দশমিক ৩৩। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২১ জন। নবীনগর শাহওয়ার আলী উচ্চ বিদ্যালয়ে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২২৩ জন। উত্তীর্ণ হয়েছে ১৯৭ জন। পাশের হার ৮৮ দশমিক ৩৪। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১০ জন। পুলিশ লাইন্স স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৮৭। উত্তীর্ণ হয়েছে ৮৫। পাশের হার ৯৭.৭০। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৪ জন। চিত্তরঞ্জন কটন মিলস হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২০৯ জন। উত্তীর্ণ হয়েছে ১৬৮। পাশের হার ৮০ দশমিক ৩৮। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১ জন। আইইটি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৩৩৬। উত্তীর্ণ হয়েছে ৩৩৪। পাশের হার ৯৭ দশমিক ৯২। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৫৬ জন। নারায়ণগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ১৪৪। উত্তীর্ণ হয়েছে ১৪১। পাশের হার ৯৭ দশমিক ৯২। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১১ জন। লক্ষী নারায়ণ কটন মিল উচ্চ বিদ্যালয়ে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৪৪৩। উত্তীর্ণ হয়েছে ৩৮৩। পাশের হার ৮৬ দশমিক ৪৬। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৯ জন। নারায়ণগঞ্জ প্রিপারেটরি স্কুলে মোট পারীক্ষার্থী ছিল ৪৯। উত্তীর্ণ হয়েছে ৪৮। পাশের হার ৯৭.৮৬। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪ জন। জয়গোবিন্দ হাইস্কুলে ২২১ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৮৯ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৮৫.৫২। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ জন। সৈয়দপুর বঙ্গবন্ধু হাইস্কুলে ৩৯৮জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৩৩৬ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৮৪.৪২। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৯ জন।  মর্গ্যান গার্লস হাইস্কুলে ৪৯৯ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৪৮৫ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৭.১৯। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩৯ জন। নারায়ণগঞ্জ হাইস্কুল এন্ড কলেজে ২৫৮ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২৫৬ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৯.২২। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬২ জন।


গণবিদ্যা নিকেতনে ৪৫৬ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৩৬৩ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৭৯.৬১। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ জন। দেওভোগ হাজী উজির আলী হাইস্কুলে ৭৭৬ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৬১৩ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৭৮.৯৯। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৮ জন। কাশীপুর আদর্শ গার্লস হাইস্কুলে ১২৮ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১০৩ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৮০.৪৭। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ জন। হাটখোলা হাইস্কুলে ২৪৫ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২২৮ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৩.০৬। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬ জন। আদর্শ গার্লস হাইস্কুলে ২১৫ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৬৯ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৭৩.৯৫। জিপিএ-৫ পেয়েছে ০ জন। তারেক প্রধান জুনিয়র স্কুল ৯১ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৮৯ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৭.৮০ ভাগ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ জন। নারায়ণগঞ্জ আইডিয়াল হাইস্কুলে ২০১ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২০১ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার শতভাগ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১২৮ জন। চরসৈয়দপুর স্কুলে ২৩ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৮ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৭৮.২৬ ভাগ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ০ জন। বিদ্যানিকেতনে ৮১ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৮১ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার শতভাগ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ জন। বিবি মরিয়ম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২২৭। উত্তীর্ণ হয়েছে ২২৩। পাশের হার ৯৮ দশমিক ২৪। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১০ জন। নারায়ণগঞ্জ বার একাডেমী থেকে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৩৪১। উত্তীর্ণ হয়েছে ২৫৬ জন। পাশের হার ৭৫ দশমিক ০৭। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১০ জন। দাপা আদর্শ হাইস্কুলে ১৫৭ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১২৪ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৭৮.৯৮। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৯ জন। মুসলিমনগর হাজী আব্দুল কাদের কাজী আব্দুল মজিদ হাইস্কুলে ২২৩ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৯৪ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৮৭.০০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫ জন। বেগম রোকেয়া খন্দকার পৌর হাইস্কুলে ২৫২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৮২ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৭২.২২। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪ জন। নাজমুনেছা গার্লস হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৪৯ জন। উত্তীর্ণ হয়েছে ৪৯ জন। পাশের হার শতভাগ। জিপিএ-৫ কেউ পাননি। মোক্তারকান্দি আদর্শ স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৩৩৯ জন। উত্তীর্ণ হয়েছে ৩০১  জন। পাশের হার ৮৮ দশমিক ৭৯ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৪ জন।


পূর্বচর গোর্কুল হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৯৫ জন। উত্তীর্ণ হয়েছে ৯৪ জন। পাশের হার ৯৮ দশমিক ৯৪। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১ জন। কানাইনগর সোবহানিয়া হাইস্কুলে ৩২৮ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৩০৭ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৩.৬০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ জন। কুড়েরপাড় আদর্শ হাইস্কুলে ২৪২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২১৬ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৮৯.২৬। জিপিএ-৫ পেয়েছে ০ জন। হাজী পান্দে আলী হাইস্কুলে ২৫০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২৪৪ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৭.৩০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩০ জন। জালকুড়ি হাইস্কুলে ২৩২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২৩১ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৯.৫৭। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩৯ জন। ইসদাইর রাবেয়া হোসেন উচ্চ বিদ্যালয়ে ৩১৮ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২৮৯ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯০.৮৮। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩ জন। কমর আলী হাইস্কুলে ৪৬০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৪৪৫ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৬.৭৪। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৮ জন। দেলপাড়া হাইস্কুল ৫০৪ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৪২১ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৮৩.৫৩। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩৪ জন। পাগলা হাইস্কুলে ৮৯৭ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৮৯১ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৯.৩৩। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৮৩ জন। পূর্ব জালকুড়ি আদর্শ হাইস্কুলে ১৮৬ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৮৬ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার শতভাগ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৬ জন। আহসান উদ্দিন হাইস্কুলে ২৪৩ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২৩৬ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৭.১২। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১০ জন। মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি বিদ্যানিকেতন ৩২১ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২৯৯ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৩.১৫। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৯ জন। গিয়াসউদ্দিন ইসলামিক মডেল হাইস্কুল ৬৩ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৬৩ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার শতভাগ।  জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪৫ জন।


দেলপাড়া লিটল জিনিয়াস স্কুলে ৩২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৩২ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার শতভাগ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৮ জন। সিদ্ধিরগঞ্জের পানি উন্নয়ন বোর্ড হাইস্কুলে ২১৪ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২১০ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৮.১৩। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪ জন। সানারপাড় শেখ মোর্তুজা আলী উচ্চ বিদ্যালয়ে ৪১৫ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৪০৬ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৭.৮৩। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৮৭ জন। সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি পাইনাদী রেকমত আলী হাইস্কুলে ৪৬৬ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৪৩৫ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৩.৩৫। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫৩ জন। সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি পশ্চিমপাড়া হাইস্কুলে ৪৯৮ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৪৯৬ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৯.৬০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬৫ জন। সিদ্ধিরগঞ্জের রেবতী মোহন পাইলট হাইস্কুলে ৩৭৭ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৩৭৬ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৯.৭৩। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬১ জন। সিদ্ধিরগঞ্জের হাজী সামছুদ্দিন হাইস্কুলে ৪৩ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৪৩ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার শতভাগ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ জন। সিদ্ধিরগঞ্জের আনন্দলোক হাইস্কুলে ২৩৪ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২১১ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯০.১৭। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২২ জন।  সিদ্ধিরগঞ্জের পাওয়ার ডেভেলপমেন্ট বোর্ড সেকেন্ডারী স্কুলে ১১৮ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১১৮ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার শতভাগ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫৮ জন। গোদনাইল হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ১৮৩। উত্তীর্ণ হয়েছে ১৭৯। পাশের হার ৯৭ দশমিক ৮১। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১২ জন। সিদ্ধিরগঞ্জের এমডব্লিউ হাইস্কুলে ৩৪৮ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৩৩২ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৫.৪০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩৩ জন।


সিদ্ধিরগঞ্জের সফুরা খাতুন পাইলট বালিকা হাইস্কুলে ৭৮ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৭৩ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৩.৫৯। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪ জন। সিদ্ধিরগঞ্জের ধনকুন্ডা পপুলার হাইস্কুলে ১২৬ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১১৬ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯২.০৬। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ জন।

বন্দর উপজেলা:  
সিকদার আব্দুল মালেক হাইস্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ১২৬ । উত্তীর্ণ হয়েছে ৯১। পাশের হার ৭২ দশমিক ২২। জিপিএ-৫ পেয়েছে ০ জন। নবীগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২৪১ । উত্তীর্ণ হয়েছে ২১৭। পাশের হার ৯০ দশমিক ০৪। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৪ জন। ঢাকেশ্বরী মিলস উচ্চ বিদ্যালয়ে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৩৩২। উত্তীর্ণ হয়েছে ২৮১। পাশের হার ৮৫ দশমিক ২৪। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১০  জন। বন্দর বালিকা হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৪৮৫। উত্তীর্ণ হয়েছে ৪৭৬। পাশের হার ৯৮ দশমিক ১৪। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪৮ জন। বিএম ইউনিয়ন হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ৩৮০ ছিল। উত্তীর্ণ হয়েছে ৩৭৩। পাশের হার ৯৮ দশমিক ১৬। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩৯ জন। মালিবাগ কেরামতিয়া হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ১৭৭। উত্তীর্ণ হয়েছে ১৬৯। পাশের হার ৯৫ দশমিক ৮৮। জিপিএ-৫ পেয়েছে  ২ জন। কলাগাছিয়া ইউনিয়ন হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ১৬৮। উত্তীর্ণ হয়েছে ১৬৩। পাশের হার ৯৭ দশমিক ০২। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫ জন। বিএসই ডর্কাইয়াড হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৬০। উত্তীর্ণ হয়েছে ৬০। পাশের হার ১০০ ভাগ। কোন জিপিএ ৫ নেই। কুড়িপাড়া হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২১০। উত্তীর্ণ হয়েছে ১৯৪। পাশের হার ৯২.৩৮ ভাগ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৬ জন। হাজী সিরাজউদ্দিন ম্যামোরিয়াল হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ১৭১। উত্তীর্ণ হয়েছে ১৫৩। পাশের হার ৮৯ দশমিক ৪৭। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫ জন। সামছুজ্জোহা বিএম হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ১৫২। উত্তীর্ণ হয়েছে ১৪৬। পাশের হার ৯৬ দশমিক ০৫। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৯ জন। হাজী আব্দুল মালেক হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ১৪৭। উত্তীর্ণ হয়েছে ১৪০। পাশের হার ৯৫ দশমিক ২৪। জিপিএ-৫ পেয়েছে ০ জন। লক্ষণখোলা আলহাজ ফজলুল রহমান হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ১১০। উত্তীর্ণ হয়েছে ১০৯। পাশের হার ৯৯.০৯ ভাগ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ০ জন। মিরকুন্ডী হাইস্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ১৩৯। উত্তীর্ণ হয়েছে ১৩৩। পাশের হার ৯৫.৬৮ ভাগ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬ জন। গিয়াসউদ্দিন চৌধুরী মডার্ন একাডেমী স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২২। উত্তীর্ণ হয়েছে ২১। পাশের হার ৯৫.৪৫ ভাগ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ জন। নাসিম ওসমান মডেল জুনিয়র স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ১১৬। উত্তীর্ণ হয়েছে ১১৩। পাশের হার ৯৭.৪১ ভাগ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩ জন। সোনাকান্দা হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ১৩০। উত্তীর্ণ হয়েছে ১০৫। পাশের হার ৮০ দশমিক ৭৭। পিয়ার সাত্তার লতিফ হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ১৫৫। উত্তীর্ণ হয়েছে ১৩৬। পাশের হার ৮৭ দশমিক ৭৪। জিপিএ-৫ পেয়েছে ০ জন। কলাগাছিয়া ইউনিয়ন গার্লস উচ্চ বিদ্যালয়ে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৪২। উত্তীর্ণ হয়েছে ৪০। পাশের হার ৯৫.২৪ ভাগ । জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ জন। হাজী ইব্রাহিম আলম চাঁন মডেল স্কুল এন্ড কলেজে স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৪৬৮। উত্তীর্ণ হয়েছে ৩৫০। পাশের হার ৭৪ দশমিক ৭৯। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১০ জন। মিরকুন্ডি হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৮৯। উত্তীর্ণ হয়েছে ৮৬। পাশের হার ৯৬ দশমিক ৬৩।

সোনারগাঁ উপজেলা:  
মোগড়াপাড়া এইচজিজিএস বিদ্যায়তন হাইস্কুলে ৬৯৭ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৬৯৬ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৯.৮৬। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২৪২ জন।কাইকারটেক নবাব হাবিবউল্লাহ হাইস্কুলে ২৯৪ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২৯৩ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৯.৬০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬০ জন। মাধাইয়া চর হোগলা হাইস্কুলে ১২২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১২১ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৯.১৮। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২১ জন। মেঘনা শিল্পনগরী স্কুল এন্ড কলেজে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২২২। উত্তীর্ণ হয়েছে ২২১। পাশের হার ৯৯ দশমিক ৫৫। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৯০ জন। বারদী হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২০৩। উত্তীর্ণ হয়েছে ২০০। পাশের হার ৯৮ দশমিক ৫২। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২০ জন। রিভর পাইলট গালর্স হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৭৪। উত্তীর্ণ হয়েছে ৭৩। পাশের হার ৯৮.৬৫ ভাগ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪ জন। বৈদ্যেরবাজার এনএএম পাইলট হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২১৬। উত্তীর্ণ হয়েছে ২১৬। পাশের হার শতভাগ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২৮ জন। হোসাইনপুর এসপি ইউনিয়ন হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২০৭। উত্তীর্ণ হয়েছে ২০৭। পাশের হার শতভাগ । জিপিএ-৫ পেয়েছে ৮২ জন। তাহের পুর হাজী লাল মিয়া হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২১৫। উত্তীর্ণ হয়েছে ২১৪। পাশের হার ৯৯ দশমিক ৫৩। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩০ জন। সোনারগাঁ বাংলা হাই স্কুলে মোট পরীক্ষাথী ছিল ২৪৮। উত্তীর্ণ হয়েছে ২৪৮ । পাশের হার শতভাগ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪৬। সনমান্দি হাসান খান হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২০৫। উত্তীর্ণ হয়েছে ২০৫। পাশের হার ১০০ ভাগ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৪ জন। হাজী মতিউর রহমান সরকার হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৭৬। উত্তীর্ণ হয়েছে ৭২। পাশের হার ৯৪.৭৪ ভাগ।  জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫ জন। সোনারগাঁ জিআর ইনস্টিটিউশন স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২৮৬। উত্তীর্ণ হয়েছে ২৮৫। পাশের হার ৯৯ দশমিক ৭৯। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৯৩ জন।  সোনারগাঁ জামপুর এমএস জিকে হাইস্কুলে ১৮০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৭৮ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৮.৮৯। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৮ জন। সোনারগাঁ মহজমপুর হাইস্কুলে ২২৭ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২২৭ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার শতভাগ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২৪ জন। সোনারগাঁ বুরুন্দী এএলএমএইচ হাইস্কুলে ১৯২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৯১ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৯.৪৮। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২৬ জন। সোনারগাঁ নোয়াগাও হাইস্কুলে ১৪৫ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৪৫ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার শতভাগ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২৩ জন। সোনারগাঁ আইডিয়াল স্কুলে ৭৩ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৭৩ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ১০০.০০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ জন। শম্ভুপুরা হাই স্কুলে ১০১ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১০১ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ১০০.০০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২৮ জন। চৌধুরীগাও হাইস্কুলে ৯০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৯০ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ১০০.০০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২০ জন। চরকিশোরগঞ্জ কাশেমনগর জুনিয়র গার্লস স্কুলে ২০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২০ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ১০০.০০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ জন। কাঁচপুুরে দবিরউদ্দিন ভূইয়া হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল২৩৫। উত্তীর্ণ হয়েছে ২৩৫। পাশের হার ১০০ ভাগ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩৭ জন। কাঁচপুর ওমর আলী হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৩৫৯। উত্তীর্ণ হয়েছে ৩৫৭। পাশের হার ৯৯ দশমিক ৪৪। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭৯ জন। পঞ্চমীঘাট হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৪২৬। উত্তীর্ণ হয়েছে ৪১৪। পাশের হার ৯৭ দশমিক ১৮। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬৫ জন। সাদিপুর হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২৫১। উত্তীর্ণ হয়েছে ২৫০। পাশের হার ৯৯ দশমিক ৬০ । জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫২ জন। পেরাব আদর্শ হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ১৬৮। উত্তীর্ণ হয়েছে ১৬৩। পাশের হার ৯৭ দশমিক ০২ । জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩১ জন। সিনহা উচ্চ বিদ্যালয়ের মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২৪০। উত্তীর্ণ হয়েছে ২৪০। পাশের হার ১০০ দশমিক ০০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৮০ জন। মদনপুর রহমানিয়া হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৪১০। উত্তীর্ণ হয়েছে ৪০২। পাশের হার ৯৮ দশমিক ০৫। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬৩ জন। আলী আকবর হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২৪৯। উত্তীর্ণ হয়েছে ২৪৯। পাশের হার ১০০ দশমিক ০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১২১ জন। ফুলহর হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৯। উত্তীর্ণ হয়েছে ৯। পাশের হার ১০০ দশমিক ০০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ০ জন।

রূপগঞ্জ উপজেলা :
রূপগঞ্জের জাঙ্গীর হাই স্কুলে ১০২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১০২ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ১০০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩৫ জন। রূপগঞ্জের মুড়াপাড়া পাইলট হাইস্কুলে ৩৯৮ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৩৯৬ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৯.৫০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭৮ জন। রূপগঞ্জের সহিতুননছো পাইলট গার্লস হাইস্কুলে ১৫৬ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৫৩ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৮.০৮। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬৫ জন। রূপগঞ্জের ইউসুফগঞ্জ হাইস্কুলে ২২২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২২ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ১০০.০০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪০ জন। রূপগঞ্জের কাজী আব্দুল হামিদ হাইস্কুলে ২৩৯ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২৩৯ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ১০০.০০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫৪ জন। রূপগঞ্জের আব্দুল হক ভূইয়া ইন্টারন্যাশনাল হাইস্কুলে ১৪৫ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৪৫ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ১০০.০০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪৫ জন। রূপগঞ্জের নাওয়া কাজী ইয়াদ আলী হাইস্কুলে ৮৩ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৮২ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৮.৮০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১০ জন। রূপগঞ্জের নুরুল হক হাইস্কুলে ১৪২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৩৮ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৭.১৮। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৪ জন। রূপগঞ্জের কাঞ্চন ভারত চন্দ্র হাইস্কুলে ১৬০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৫৭ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৮.১৩। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২২ জন। রূপগঞ্জের মোহর আলী শাহীনুর বানু হাইস্কুলে ৮৫ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৬৮ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৮০.০০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ জন। রূপগঞ্জের ভোলাবো শহীদ স্মৃতি হাইস্কুলে ১১৯ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১১৯ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ১০০.০০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৭ জন। রূপগঞ্জের গন বাংলা হাইস্কুলে ১০৮ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৯২ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৮৫.১৯। জিপিএ-৫ পেয়েছে ০ জন। রূপগঞ্জের হাজী রফিউদ্দিন ভূইয়া গার্লস হাইস্কুলে ৯৭ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৯২ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৪.৮৫। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ জন। রূপগঞ্জের আশরাফ জুট মিলস আদর্শ হাইস্কুলে ১১২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১১০ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৮.২১। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২২ জন। রূপগঞ্জের নবাব আশকারী আদর্শ হাইস্কুলে ৯৮ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৭৭ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৭৮.৫৭। জিপিএ-৫ পেয়েছে ০ জন। রূপগঞ্জের সাত্তার জুট মিলস মডেল হাইস্কুলে ৭১ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৫২ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৭৩.২৪। জিপিএ-৫ পেয়েছে ০ জন। পূর্বগ্রাম হাইস্কুলে ১১১ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৯০ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৮১.০৮। জিপিএ-৫ পেয়েছে ০ জন। হাজী আয়াত আলী ভূইয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ১৭৮ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৬১ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯০.৪৫। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৮ জন। গর্ন্ধবপুর হাইস্কুলে ১৩৮ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১১২ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৮১.১৬। জিপিএ-৫ পেয়েছে ০ জন। নবকিশোলয় হাইস্কুল এন্ড গার্লস কলেজে ২৪৪ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৮৬ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৭৬.২৩। জিপিএ-৫ পেয়েছে ০ জন। রূপসী নিউ মডেল হাইস্কুলে ২১০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৯৫ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯২.৮৬। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১২ জন। তারাবো স্কুলে ৮৫ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৬৬ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৭৬.৬৫। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ জন। রূপগঞ্জের দাউদপুর পুটিনা হাইস্কুলে ১৩৫ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে১৩৫ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ১০০.০০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩১ জন। রূপগঞ্জের আমদিয়া কৃষক শ্রমিক হাইস্কুলে ১০৩ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১০১ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৮.০৬। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২১ জন। রূপগঞ্জের জনতা হাইস্কুলে ১৪৪ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৪৪ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ১০০.০০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪৪ জন। রূপগঞ্জের পলখান হাইস্কুলে ৭২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৭২ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ১০০.০০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১১ জন। রূপগঞ্জের প্রগতি হাইস্কুলে ৯০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৯০ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ১০০.০০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪ জন। রূপগঞ্জের কালনী হিরনাল হাইস্কুলে ১৫৯ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৫৭ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৮.৭৪। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫০ জন। রূপগঞ্জের নুরুন্নেছা হাইস্কুলে ১৩৩ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১২৮ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৬.২৪। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৮ জন। রূপগঞ্জের এইচ আর মডেল হাইস্কুলে ৫৯ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৫৯ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ১০০.০০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২৯ জন। রূপগঞ্জের ভুলতা হাইস্কুলে ৭৫৭ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৫৯০ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৭৭.৯৪। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৫ জন। রূপগঞ্জের আদর্শ মিঠাবো হাইস্কুলে ১৬৪ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৪৩ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৮৭.২০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৮ জন। রূপগঞ্জের হাজী নুরুদ্দিন আহমেদ হাইস্কুলে ২৫৬ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২১৮ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৮৫.১৬। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭ জন। রূপগঞ্জের হাজী মোহাম্মদ এখলাছউদ্দিন ভূইয়া হাইস্কুলে ২২৫ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২২৫ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ১০০.০০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫০ জন। রূপগঞ্জের গোলাকান্দাইল মজিবুর রহমান ভূইয়া হাইস্কুলে ৪১০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৩১৬ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৭৭.০৭। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১০ জন।

আড়াইহাজার উপজেলা :
আড়াইহাজার পাইলট হাইস্কুলে ৫৫৮ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৫৪৫ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৭.১৭। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫৯ জন। আড়াইহাজার কলাগাছিয়া হাইস্কুলে ১৮৪ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৭৩ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৪.০২। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪ জন। আড়াইহাজার রোকনউদ্দিন পাইলট গার্লস হাইস্কুলে ১৪৮ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৩৮ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯১.৮৯। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ জন। আতাদি স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৮৪। উত্তীর্ণ হয়েছে ৭৭। পাশের হার ৯১ দশমিক ৬৭। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ জন। আড়াইহাজার সিংহদী এমএ মোতালেব ভূইয়া হাইস্কুলে ১৫৪ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৪৮ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৬.১০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩ জন। আড়াইহাজার কাঠালিয়া ইউনিয়ন হাইস্কুলে ৩৬০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৩৩৩ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯২.৫০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭ জন। আড়াইহাজার এএম বদরুজ্জামান হাইস্কুলে ২৬৮ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২৫২ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৪.০৫। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২০ জন। আড়াইহাজার সুলতানসাদী হাইস্কুলে ২৬৯ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২৫৩ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৪.০৫। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬ জন। আড়াইহাজারে জালাকান্দী হাইস্কুলে ৩৮ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৩৮ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ১০০.০০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ০ জন। বান্টি আইডিয়াল হাইস্কুলে ১১২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১১২ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ১০০.০০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪ জন। উজান গোবিন্দী বিনাইর চর হাইস্কুলে ২২৫ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২১৬ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৬.০০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১১ জন। সেন্ট্রাল করোনেশন হাইস্কুলে ৩৯৭ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৩৮৮ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৭.৭১। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৪ জন। বালিয়াপাড়া হাইস্কুলে ৩৩৭ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৩২৮ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৩.৫১। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৮ জন। পাঁচগাও হাইস্কুলে ৩০৮ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২৮৮ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৩.৫১। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৮ জন। আড়াইহাজার গোপালদী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ২৭৯ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২২৯ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৮২.০৮। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৮ জন। আড়াইহাজার কলাগাছিয়া আর এফ হাইস্কুলে ২১০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৯৭ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৩.৮১। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ জন। আড়াইহাজার সদাসদী হাইস্কুলে ২৫০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৬৫ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৬৬.০০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৮ জন। আড়াইহাজার কালাপাহাড়িয়া ইউনিয়ন হাইস্কুলে ৩৯৩ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২২২ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৫৬.৪৯। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৮ জন। কবি নজরুল হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২০৯। উত্তীর্ণ হয়েছে ১৪৪। পাশের হার ৬৮ দশমিক ৯০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩ জন। আড়াইহাজার চৈতনকান্দা গোলাম মোহাম্মদ হাইস্কুলে ২৩০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৮৯ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৮২.১৭। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭ জন। জাঙ্গালীয়া হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৯৭। উত্তীর্ণ হয়েছে ৮২। পাশের হার ৮৪ দশমিক ৫৪। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ জন। শম্ভুপুরা হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২৬৬। উত্তীর্ণ হয়েছে ১৬৯। পাশের হার ৬৩ দশমিক ৫৩। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫ জন। আড়াইহাজার মাহমুদপুর ইউনিয়ন হাইস্কুলে ৩১২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২৫১ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৮০.৪৫। জিপিএ-৫ পেয়েছে ০ জন। আলহাজ খোরশেদউনেছা স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৮৫। উত্তীর্ণ হয়েছে ৮৫। পাশের হার ১০০ দশমিক ০০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪ জন। পুরিন্দা কেএম সিকান্দার রহমান হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২২৩। উত্তীর্ণ হয়েছে ২২৩। পাশের হার ১০০ দশমিক ০০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৭ জন। বোনাইদ বাবু মিয়া হাইস্কুলে ২১২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২০৯ জন উত্তীর্ন হয়েছে। পাশের হার ৯৮.৫৮। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১০ জন। রসুলপুর মতিন হাজী আসাদুজ্জামান জুনিয়র স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ১০৭। উত্তীর্ণ হয়েছে ১০৭। পাশের হার ১০০ দশমিক ০০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫ জন। ফরিদা হাশেম ইন্টারন্যাশনাল হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৩৩। উত্তীর্ণ হয়েছে ৩৩। পাশের হার ১০০ দশমিক ০০। জিপিএ-৫ পেয়েছে ০ জন। সাতগ্রাম হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৬১। উত্তীর্ণ হয়েছে ৬০। পাশের হার ৬৭ দশমিক ০৬। জিপিএ-৫ পেয়েছে ০ জন।


নিউজ নারায়াণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:

Shirt Piece
শিক্ষাঙ্গন -এর সর্বশেষ