৫ মাঘ ১৪২৩, বুধবার ১৮ জানুয়ারি ২০১৭ , ৮:০৩ অপরাহ্ণ
bangla fonts
facebook twitter google plus rss
Narayanganj city corporation 2016
Laisfita

নারায়ণগঞ্জের সেই জঙ্গিবাড়ির অবস্থা


১০ জানুয়ারি ২০১৭ মঙ্গলবার, ০৮:০৯  পিএম

নিউজ নারায়ণগঞ্জ


নারায়ণগঞ্জের সেই জঙ্গিবাড়ির অবস্থা

একটি রাতেই বদলে দিয়েছে নারায়ণগঞ্জ শহরের পাইকপাড়া এলাকার দেওয়ান বাড়িরস্থলে জঙ্গিবাড়ী হিসাবে। সেই ঘটনার তিন মাস হয়ে গেলেও এর কোন পরিবর্তন আসেনি। তিনতলা বাড়িটির প্রথম ও দ্বিতীয় তলায় বসবাস করলেও জঙ্গিদের ভাড়া নেওয়া তৃতীয় তলার বাসাটি এখন তালাবদ্ধ। বাড়ীটির সর্বত্র সকলের বিচরণের অনুমতি থাকলেও তৃতীয় তলা ও ছাদে উঠতে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে প্রশাসনের। তাছাড়াও তৃতীয় তলার ভাড়া নেওয়া জঙ্গিদের বাসাটাও রয়েছে যেন ভুতুড়ে পরিবেশ। কোন শব্দহীন, ভ্যাপসা গন্ধ, এলোমেলো ও নোংরাভাবে পরে আছে কয়েক জোড়া স্যান্ডেল, ঘরের আসবাবপত্র। এসব দেখেই আঁতকে উঠার মত। গাঁ শিউরে উঠবে তৃতীয় তলার ভবনের ভিতরে ও বাইরের দেওয়ালের দৃশ্য দখলেও। এ যেন এক যুদ্ধ বিধ্বস্ত একটা বাসা। দেওয়ালের ভিতরে ও বাইলে সর্বত্রগুলোর র্গত।

সম্প্রতি সরেজমিনে তৃতীয় তলার জঙ্গিদের ভাড়া নেওয়া বন্ধ ঘরে গিয়ে দেখা গেছে এসব দৃশ্য। পাইকপাড়া বড় কবরস্থান সংলগ্ন সড়কের শেষ প্রান্তের ৪১০/১ নাম্বারের তিনতলা আবাসিক ভবন দেওয়ান বাড়ি সদর ও ফতুল্লা মডেল থানার সীমান্তবর্তী এলাকায় অবস্থিত। দেওয়ান বাড়ির তিনতলা ভবনের চারিপাশে রয়েছে অন্তত ২২টি টিনশেড ঘর। যেগুলোতে বসবাস করছেন খেটে খাওয়া কর্মজীবী মানুষেরা। বাসাটিতে এখন আর রক্তের গন্ধ নেই। তবে বোঝা যায় কালচে হয়ে থাকা ময়লার স্তুপে। দেখলে মনে হতে পারে শত বছর ধরেই যেন কেউ বসবাস করছে না। মাকড়শা বাসা বেঁধেছে। ধূলার পরে আছে বাসার সব কিছুর উপর।

সকালে বাসায় উঠতেই প্রথমই বাড়িটির রঙ বে-রঙের টাইলসের চাকচিক চোখে পরলেও চারদিকের পরিবেশ ছিল খুব শান্ত। আশেপাশের টিনশেড ঘরে মানুষজন বসবাস করলেও দরজা বন্ধ। ওইসব বাসার ভিতর থেকে শিশুদের শব্দ পাওয়া যাচ্ছিল কিন্তু বাইরে আসতে দেখা যায়নি। তিনতলা বাড়িটির নিচতলার দুইটি বাসায় ছিল তালাবদ্ধ। বাড়িটির ভিতরে বাইরে বিভিন্ন রঙ- বেরঙের টাইলসে সুন্দর করে সাজিয়ে রাখা হয়েছে। কেউ বুঝতেই পারবে না এ বাড়িটিতেই আস্তানা ঘিরে ছিল রাজধানী গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তোরায় হামলার মাস্টার মাইন্ড সহ আরো দুই সহযোগি জঙ্গি।
 
জঙ্গিদের ভাড়া নেওয়া বাসাটির তিনটি রুমের দৃশ্য চোখে পরে। সিড়ি বেয়ে উঠতে হাতে বা দিকের রুমের সামনে কিছুই ছিলো না। ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে কাগজ, জুতা, কালচে ভাবে ময়লার স্তুপ। ভিতরে প্রবেশ করতেই বাধা দিলো পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) যারা গত কিছুদিন আগেই এ মামলা তদন্তভার পেয়েছেন। অনেক আসবাব পত্র পরে আছে। ছোট ছোট কৌটা, কয়েকটা স্যান্ডেল, পলিথিন, হ্যাঙ্গার, ছোট প্লাস্টিকের টেবিল, পানির বোতল, জগসহ পোড়া কাগজও। এগুলো ছাড়িয়ে দেওয়ালের দিকে তাকাতেই প্রথমেই চোখপড়লো কালো হয়ে থাকা রক্তের দাগগুলো এর পাশেই অসংখ্য গুলি গর্ত। এগুলো ছাড়াও নাকে লাগছিলো বন্ধ ঘরের একটা ভাপসা একটা দূর্গন্ধ। বাসার জানালার কাচ গুলো গুলিতে ফোটো হয়ে গেছে। কিছু কিছু জানালাও ভাঙা। কোন লাইট, ফ্যান, পানির কল, গ্যাসের চুলাওর উপরেও পর্যন্ত ধোলা পরে আছে।’
 
বাড়ির মালিক নূর উদ্দিন দেওয়ান বলেন, ‘বাড়িটিতে সবাই থাকে। দ্বিতীয় তলা পর্যন্ত সবার চলাফেরা করার অনুমতি থাকলেও তৃতীয় তলা ও ছাদে কেউ উঠতে পারে না। পুলিশের পক্ষ থেকে না উঠার জন্যও বলে গেছে। তাই কেউ আর উপরে যায় না। ঘটনার দুইমাস হয়ে গেলেও এখনও পর্যন্ত বাড়ির কেউ তৃতীয় তলায় যায়নি। বাড়ির মানুষ জনও বেশির ভাগ সময় দরজা বন্ধ করে রাখে। কেউ রাস্তা দিয়ে গেলেই আঙ্গুল দিয়ে বাড়ি দেখায়।’

গত ২৭ আগস্ট কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটসহ পুলিশের ‘অপারেশন হিট স্ট্রং’ নামে অভিযানে পাইকপাড়া নূর উদ্দিন দেওয়ানের তিনতলা ভবনের তৃতীয় তলায় গুলশান হামলার মাস্টারমাইন্ড খ্যাত তামিম চৌধুরীসহ আরও দু’জন জঙ্গি মারা যান। এরপর থেকে ওই ফ্ল্যাটটি সিলগালা করে রাখে পুলিশ।


নিউজ নারায়াণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:

Shirt Piece
রাজনীতি -এর সর্বশেষ