৫ কার্তিক ১৪২৪, শুক্রবার ২০ অক্টোবর ২০১৭ , ১০:০৫ অপরাহ্ণ

শীতলক্ষ্যার মোহনায় চাঁদা না দেয়ায় ৪ নৌশ্রমিককে মারধর করে লুটপাট


|| নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৯:৪১ পিএম, ৯ জানুয়ারি ২০১৭ সোমবার


শীতলক্ষ্যার মোহনায় চাঁদা না দেয়ায় ৪ নৌশ্রমিককে মারধর করে লুটপাট

নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যা ও মেঘনা নদীর মোহনায় চরকিশোরগঞ্জ এলাকায় চাঁদা না দেয়ায় ৪ নৌ শ্রমিককে মারধর করে নগদ টাকা, ৪টি মোবাইল ও মূল্যবান সামগ্রী লুটে নিয়েছে চাঁদাবাজরা। সোমবার সন্ধ্যায় শীতলক্ষ্যার হায়েনাখ্যাত নাসির মেম্বার ও ইমাম হোসেন বাহিনীর হাতে এ নির্যাতনের শিকার হয় শ্রমিকরা। আহত সুকানী তৈয়ব আলী, গ্রীজার মামুন, লালু ও জসিমকে নারায়ণগঞ্জ শহরের খানপুরের ৩০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। উল্লেখ্য সম্প্রতি নদীপথে চাঁদাবাজি ও সন্ত্রাসী কার্যকলাপ রোধে নৌ পুলিশ সুপারের কঠোর হুশিয়ারীর কিছুদিন না পেরুতেই আবারো হামলার শিকার হল নৌযান শ্রমিকরা।

বাংলাদেশ জাহাজী শ্রমিক ফেডারেশনের আওতাধীন বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সবুজ শিকার জানান, সোমবার সন্ধ্যায় এমভি আলিফ হাসান নামের একটি বাল্কহেড শীতলক্ষ্যা ও মেঘনা নদীর মোহনায় চরকিশোরগঞ্জ এলাকায় নাসির মেম্বার ও ইমাম হোসেনের নিয়ন্ত্রিত চাঁদাবাজদের দ্বারা হামলার শিকার হয়। নৌ চাঁদাবাজরা তাদের দাবিকৃত চাঁদা না পেয়ে হামলা চালিয়ে সুকানী তৈয়ব আলী, গ্রীজার মামুন, লালু ও জসিমকে বেধড়ক মারধর করে। এসময় তারা ওই ৪ নৌ শ্রমিকের সঙ্গে থাকা ৪টি মোবাইল, নগদ প্রায় ১৫ হাজার টাকা, বাল্কহেডটির সার্চলাইট, হর্ন ও ব্যাটারী লুটে নেয়। পরে নৌশ্রমিকরা রাত সাড়ে ৭টার দিকে বাল্কহেডটিকে ৫নং খেয়াঘাট এলাকায় ভিড়ালে আমরা তাদেরকে উদ্ধার করে শহরের খানপুরের ৩০০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসি।

সবুজ শিকদার আরো জানান, ইজারাদাররা মুন্সিগঞ্জ ও চাঁদপুর এলাকাতে বালু উত্তোলনের ইজারা নিলেও তাদের লোকজন চরকিশোরগঞ্জসহ নদীর বিভিন্ন স্থানে বেপরোয়া চাঁদাবাজিতে মেতে উঠেছে।

নৌ পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হাতেম বলেন, এ বিষয়ে মুঠোফোনে শুনেছি। পরে হাসপাতালে পুলিশও পাঠিয়েছি। আমি নৌশ্রমিকদের বলেছি মামলা দায়ের করতে। তিনি আরো বলেন, দেড় মাস পূর্বে এই সমস্যা নিয়ে ইজারাদার, মালিকপক্ষ ও শ্রমিকপক্ষকে নিয়ে আমরা মিটিং করেছিলাম। এরপর নদীপথ আমাদের শতভাগই নিয়ন্ত্রনে ছিল। কিন্তু দেড় মাসের মাথায় আমরা এ ধরনের অভিযোগ পেলাম। আমরা এ বিষয়ে কঠোর পদক্ষেপ নিব।

উল্লেখ্য গত ২৮ নভেম্বর এক মতবিনিময় সভায় নৌ পুলিশ সুপার (পূর্ব বিভাগ) আব্দুল মান্নান পিপিএম বলেছেন, রাষ্ট্রের উর্ধ্বে কেউই নন। ইজারাদাররা রাষ্ট্রের ট্যাক্স প্রেয়ার। কিন্তু তাই বলে তারা যা খুশি তাই করবেন সেটা চলবে না। আবার বাল্কহেডের মালিক শ্রমিকদেরকেও আইন মানতে হবে। আগামী এক মাস আমরা যেসকল সমস্যা রয়েছে সেগুলোর বিষয়ে পর্যবেক্ষণ করবো। যদি এরপরও নদীপথে চাঁদাবাজি, ডাকাতি, সন্ত্রাস, শ্রমিক নির্যাতন ও হয়রানী বন্ধ না হয় তাহলে আমরা কঠোর পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হবো।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

মহানগর -এর সর্বশেষ