৯ শ্রাবণ ১৪২৪, সোমবার ২৪ জুলাই ২০১৭ , ২:৩৭ অপরাহ্ণ

diamond world

ভুল চিকিৎসায়! না ফেরার দেশে নারায়ণগঞ্জ কলেজের ‘স্বপন স্যার’


সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৬:৩৩ পিএম, ২৭ জুন ২০১৭ মঙ্গলবার


ভুল চিকিৎসায়! না ফেরার দেশে নারায়ণগঞ্জ কলেজের ‘স্বপন স্যার’

ভুল চিকিৎসার কারণে না ফেরার দেশে চলে গেলেন নারায়ণগঞ্জ কলেজের মেধাবী শিক্ষক অধ্যাপক স্বপন চক্রবর্তী। গত ২৪ জুন শনিবার রাতে প্রয়াত স্বপন চক্রবর্তীর সহকর্মী একই কলেজের সহকারী অধ্যাপক নাসিরের বাসায় অন্যান্য সহকর্মীদের সাথে ইফতার করার সময় হার্ট এ্যাটাক হলে তাকে রাত আটটার দিকে বালুর মাঠ এলাকার অবস্থিত ইসলাম হার্ট সেন্টারে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে নেয়ার পর ইসলাম হার্ট সেন্টারের মালিক ডা. নুরুল ইসলাম তাকে একটি ইনজেকশন পুশ করে শুয়ে রাখে।
 
স্বপন চক্রবর্তীর পরিবার এবং সহকর্মীদের অভিযোগ, ২২শ টাকার ইনজেকশনের দাম তাদের কাছ থেকে ৫হাজার টাকা রাখা হয়। ক্লিনিকে উপস্থিত সহকর্মীদের এসময় ডা. নুরুল ইসলাম জানান স্বপন চক্রবর্তী আউট অব ডেনজার। তাকে স্যুপ খাওয়ানো হয়েছে।
 
উল্লেখ্য অধ্যাপক স্বপন চক্রবর্র্তী সরকারী তোলারাম কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ ও নারায়ণগঞ্জ কলেজের প্রতিষ্ঠাতা জীবন কানাই চক্রবর্তীর ছেলে।
 
এদিকে রাত দশটায় অধ্যাপক স্বপন চক্রবর্তীর বন্ধুরা তাকে দেখতে গেলে ডাঃ নুরুল ইসলাম তাদের সামনে ব্রিফিং করে  জানান, স্বপন চক্রবর্র্তী সম্পূর্ন সুস্থ্য আছে। আপনাদের কারো রাতে অপেক্ষা করার দরকার নেই। সে এখন ঘুমাচ্ছে। রাত এগারটার দিকে স্বপন চক্রবর্তীর বন্ধু ও নারায়ণগঞ্জ সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আবদুস সালাম ইসলাম হার্ট সেন্টারের আইসিইউতে দেখতে গেলে তিনি দেখেন একজন জুনিয়র ডাক্তার স্বপন চক্রবর্তীর শরীরে পাঞ্চ করছে। এসময় তার প্রেসার ৬০এ নেমে যাচ্ছিল। পেট ফুলে যাচ্ছে। স্বপন চক্রবর্তী অচেতন অবস্থায় প্রশ্রাব করানোর পরামর্শ দেয়া হলে জুনিয়র ডাক্তার একটি ক্যাথেটার নিয়ে আসার জন্য বলেন। এসময় তিনি নার্সকে ডাঃ নুরুল ইসলামকে খবর দেয়ার জন্য বলেন। অবস্থা বেগতিক দেখে ডাঃ নুরুল ইসলাম তাকে ঢাকায় স্থানান্তর করার জন্য বলেন। কিন্তু তার আগেই রাত বারোটায় স্বপন চক্রবর্তী হাজার হাজার শিক্ষার্থী মায়া কাটিয়ে পরলোকগমন করেন।
 
সেখানে উপস্থিত স্বপন চক্রবর্তীর বন্ধু দিলীপ দত্ত অভিযোগ করেন, ইসলাম হার্ট সেন্টারে কোন প্রকার চিকিৎসা ছাড়াই স্বপনকে রাত আটটা থেকে ক্লিনিকে রেখে দেয়া হয়েছে। আমরা তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার জন্য তাকে অনুরোধ করলে তিনি কোন আগ্রহ না দেকেয়ে এখানেই চিকিৎসা করা হবে বলে জানান।
 
তিনি বলেন, একজন হার্ট এ্যাটাক রোগীকে কিভাবে ডাক্তার স্যুপ খাওয়ার পরামর্শ দেন তা আমাদের বোধগম্য নয়। ৪ঘণ্টা একজন রোগাীকে আটকে রেখে তাকে মেরে ফেলা হয়েছে। এটি একটি পরিকল্পিত হত্যা বলে তিনি অভিযোগ করেন। কারন তার ক্লিনিকে হার্ট এ্যাটক চিকিৎসার কোন অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি কিংবা সুযোগ সুবিধা নেই।
 
নারায়ণগঞ্জ কলেজের ভাইস প্রিন্সিপাল অধ্যাপক রুমন রেজা বলেন, আমারা যখন সহকর্মী স্বপন চক্রবর্তীকে ইসলাম হার্ট সেন্টারে নিয়ে যাই তখন আমরা বলেছিলাম উন্নত চিকিৎসার কথা। কিন্তু ডাঃ নুরুল ইসলাম আমাদের আশ্বস্ত করেছিলেন তেমন কিছু হয়নি। রাত বারোটায় যখন নিয়ন্ত্রনের বাইরে চলে যায় তখন তিনি ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার জন্য বলেন। কিন্তু স্বপন দা তখন আর নেই। তিনি বলেন বিষয়টি তদন্ত হওয়া উচিত। তার মতো একজন মেধাবী শিক্ষককে আমরা হারালাম।
 
এ ব্যাপারে ডাঃ নুরুল ইসলামের সাথে দুইদিন যাবত মোবাইলে যোগাযোগ করার চেষ্টা করে হলে তার মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়।

বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ) এর সভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ কলেজের পরিচালনা পরিসদের সদস্য ডাঃ শাহনেওয়াজ চৌধুরী জানান, ডাঃ নুরুল ইসলামের মোবাইল নষ্ট। স্বপন চক্রবর্তীর যদি ভুল চিকিৎসা হয়ে থাকে তাহলে বিএমএ ব্যবস্থা গ্রহন করবে।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

শিক্ষাঙ্গন -এর সর্বশেষ