৫ আশ্বিন ১৪২৪, বৃহস্পতিবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭ , ২:১৫ পূর্বাহ্ণ

এইচএসসিতে নারায়ণগঞ্জের সকল কলেজের ফলাফল


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৩:২১ পিএম, ২৪ জুলাই ২০১৭ সোমবার | আপডেট: ০৯:৪৪ পিএম, ২৫ জুলাই ২০১৭ মঙ্গলবার


এইচএসসিতে নারায়ণগঞ্জের সকল কলেজের ফলাফল

নারায়ণগঞ্জে চলতি বছরে উচ্চ মাধ্যমিকে (এইচএসসি) জিপিএ-৫ পেয়েছে ২০৩ জন। এর মধ্যে পরীক্ষার্থী ছিলেন ১৭ হাজার ৯২৬ জন। পাশ করেছে ১১ হাজার ৯৩৬ জন। পাশের হার ৬৬ দশমিক ৫৮ ভাগ।

২৩ জুলাই রোববার দুপুরে ফল প্রকাশিত হয়। গেল বারের তুলনায় এবছর পাশের হার ও জিপিএ-৫ কমেছে। গেল বছর জেলায় জিপিএ-৫ পেয়েছিল ৫৮৩ জন। গত বছর পরীক্ষার্থী ছিল ১৭ হাজার ৮৮২জন। পাশ করেছিল ১৩ হাজার ৭০২জন। পাশের হার ছিল ৭৬ দশমিক ৬২। নিচে সবগুলো কলেজের ফলাফল

নারায়ণগঞ্জ সদর-২১ টি

কানাইনগর সোবহানিয়া স্কুল অ্যান্ড কলেজের পরীক্ষার্থী ছিলেন ৬৫জন, পাশ করেছে ৫১ জন, জিপিএ-৫ কেউ পায়নি, পাশের হার ৭৮ দশমিক ৪৬। জালকুড়ি স্কুল অ্যান্ড কলেজের পরীক্ষার্থী ছিলেন ৩২জন, পাশ করেছে ২৩ জন, জিপিএ-৫ কেউ পায়নি, পাশের হার ৭১ দশমিক ৮৮। কমর আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজের পরীক্ষার্থী ছিলেন ২২জন, পাশ করেছে ৮ জন, জিপিএ-৫ কেউ পায়নি, পাশের হার ৩৬ দশমিক ৩৬। মর্গ্যান গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজের পরীক্ষার্থী ছিলেন ২০জন, পাশ করেছে ১৩ জন, জিপিএ-৫ কেউ পায়নি, পাশের হার ৬৫। এরিবস ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজের পরীক্ষার্থী ছিলেন ১৯জন, পাশ করেছে ১৭ জন, জিপিএ-৫ কেউ পায়নি, পাশের হার ৮৯ দশমিক ৪৭। সানারপাড় রওশন আরা কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ২৪৭জন, পাশ করেছে ২৩৫ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২৪ জন, পাশের হার ৯৫ দশমিক ১৪ ভাগ। নারায়ণগঞ্জ সরকারী মহিলা কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ২৭শ ৮৫জন, পাশ করেছে ২১ শ ৬৩ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৮৪, পাশের হার ৭৭ দশমিক ৬৭। নারায়ণগঞ্জ কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ২ হাজার ৭৫৭জন, পাশ করেছে ১৬শ ১৩ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৫, পাশের হার ৫৮ দশমিক ৫১। নাজিমউদ্দিন ভূইয়া কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ৪৫২জন, পাশ করেছে ২৩০জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ০ জন, পাশের হার ৫০ দশমিক ৮৮। আদমজী এম ডব্লিউ কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ১১৩৬জন, পাশ করেছে ৫৪৪জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১ জন, পাশের হার ৪৭ দশমিক ৮৯। সরকারী তোলারাম কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ২ হাজার ৭৫৪জন, পাশ করেছে ১ হাজার ৮২৬ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২৫ জন, পাশের হার ৬৬ দশমিক ৫২। নারায়ণগঞ্জ হাই স্কুল অ্যান্ড কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ২১জন, পাশ করেছে ১৭ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ০ জন, পাশের হার ৮০ দশমিক ৯৫। নারায়ণগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় অ্যান্ড কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ৫২জন, পাশ করেছে ২৩ জন, জিপিএ-৫ পায়নি কেউ, পাশের হার ৪৪ দশমিক ২৩। নারায়ণগঞ্জ আদর্শ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় অ্যান্ড কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ৮০জন, পাশ করেছে ৩০ জন, জিপিএ-৫ পায়নি কেউ, পাশের হার ৩৭ দশমিক ৫০। রেবতি মোহন উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে পরীক্ষার্থী ছিলেন ১৯৩জন, পাশ করেছে ১৭৩ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৭ জন, পাশের হার ৮৯দশমিক ৬৪ ভাগ। সলিমউদ্দিন চৌধুরী কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ২৬৪জন, পাশ করেছে ১৮৬ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২ জন, পাশের হার ৭০ দশমিক ৪৫ ভাগ। ইস্টার্ন আইডিয়াল কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ১৩জন, পাশ করেছে ৬ জন, জিপিএ-৫ কেউ পায়নি, পাশের হার ৪৬.১৫ভাগ। হাজী মিছির আলী কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ৪১৯জন, পাশ করেছে ৩৩১ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৯ জন, পাশের হার ৭৯ দশমিক ০০ ভাগ। নারায়ণগঞ্জ মডেল কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ৩০জন, পাশ করেছে ২৬ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ০ জন, পাশের হার ৮৬ দশমিক ৮৭ ভাগ।

গিয়াসউদ্দিন ইসলামিক মডেল কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ১৬৪জন, পাশ করেছে ১৬৩ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৯ জন, পাশের হার ৯৯ দশমিক ৩৯ ভাগ। নারায়ণগঞ্জ কমার্স কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ২৬৯ জন, পাশ করেছে ১০৯ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ০ জন, পাশের হার ৪০ দশমিক ৫২ ভাগ।

রূপগঞ্জ উপজেলা-১০টি

ভুলতা উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে পরীক্ষার্থী ছিলেন ১৯৩জন, পাশ করেছে ১৬৮ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ০ জন, পাশের হার ৮৭ দশমিক ০৫। নব কিশোলয় হাই স্কুলে পরীক্ষার্থী ছিলেন ৩৩জন, পাশ করেছে ৩২ জন, জিপিএ-৫ কেউ পায়নি, পাশের হার ৯৬.৯৭ ভাগ। রূপসী নিউ মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ৬০জন, পাশ করেছে ৫৮ জন, জিপিএ-৫ কেউ পায়নি, পাশের হার ৯৬ দশমিক ৬৭। হাজী মোহাম্মদ এখলাসউদ্দিন ভূইয়া কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ৮জন, পাশ করেছে ৭ জন, জিপিএ-৫ কেউ পায়নি, পাশের হার ৮৭.৫০ ভাগ। মুড়াপাড়া কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ২৬২জন, পাশ করেছে ২০৩ জন, জিপিএ-৫ ১ জন, পাশের হার ৭৭ দশমিক ৪৮ভাগ। আবদুল আজিজ মিয়া আয়েশা খাতুন কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ৫জন, পাশ করেছে ৫ জন, জিপিএ-৫ কেউ পায়নি, পাশের হার শতভাগ। নুরুন্নেছা উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে পরীক্ষার্থী ছিলেন ১৪২জন, পাশ করেছে ১০৭ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ০ জন, পাশের হার ৭৫ দশমিক ৩৫ ভাগ। পূর্বাচল আদর্শ স্কুলে পরীক্ষার্থী ছিলেন ৯১জন, পাশ করেছে ৫৪ জন, জিপিএ-৫ কেউ পায়নি, পাশের হার ৫৯.৩৪ ভাগ।আলহাজ্ব লায়ন মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান হারেজ সিটি কলেজের পরীক্ষার্থী ছিলেন ৬০জন, পাশ করেছে ৩৫ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ জন, পাশের হার ৫৮.৩১ ভাগ। এএইচবি ইন্টারন্যাশনাল কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ১০৭জন, পাশ করেছে ৪৯ জন, জিপিএ-৫ কেউ পায়নি, পাশের হার ৪৫.৭৯ ভাগ।

আড়াইহাজার উপজেলা-৬টি

কবি নজরুল স্কুল অ্যান্ড কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ১০৪জন, পাশ করেছে ৮৫ জন, জিপিএ-৫ কেউ পায়নি, পাশের হার ৮১.৭৩ ভাগ। রোকনউদ্দিন মোল্লা গার্লস অ্যান্ড কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ১৮০জন, পাশ করেছে ৯৫ জন, জিপিএ-৫ কেউ পায়নি, পাশের হার ৫২.৭৮। সরকারী সফর আলী কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ১০১৫জন, পাশ করেছে ৭০৪ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৬ জন, পাশের হার ৬৯ দশমিক ৩৬ ভাগ। হাজী বেলায়েত হোসেন কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ২৫০জন, পাশ করেছে ১৩৯ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ০ জন, পাশের হার ৫৫.৬০ ভাগ। পাঁচরুখী বেগম আনোয়ার কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ৩২৯জন, পাশ করেছে ২৫৭ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ০ জন, পাশের হার ৭৮ দশমিক ১২ ভাগ। গোপালদি নজরুল ইসলাম বাবু কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ১৭২জন, পাশ করেছে ১৬১ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২ জন, পাশের হার ৯৩ দশমিক ৬০ ভাগ।

সোনারগাঁও উপজেলা-১০টি

সোনারগাঁও কাজী ফজলুল হক মহিলা কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ৩৫৭জন, পাশ করেছে ২০৮ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ০ জন, পাশের হার ৫৮ দশমিক ২৬ ভাগ। হোসাইনপুর এসপি ইউনিয়ন কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ৯০জন, পাশ করেছে ৪৫ জন, জিপিএ-৫ কেউ পায়নি, পাশের হার ৫০ ভাগ। সোনারগাঁও আইডিয়াল কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ৯৪জন, পাশ করেছে ৪০ জন, জিপিএ-৫ কেউ পায়নি, পাশের হার ৪২ দশমিক ৫৫ ভাগ। সোনারগাঁও নলেজ কিং কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ১৩০জন, পাশ করেছে ৭৬ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ০ জন, পাশের হার ৫৮ দশমিক ৪৬ ভাগ। মেঘনা শিল্প নগরী স্কুল অ্যান্ড কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ৭৫জন, পাশ করেছে ৫৫ জন, জিপিএ-৫ ১ জন, পাশের হার ৭৩ দশমিক ৩৩ ভাগ। বারদি স্কুল অ্যান্ড কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ৪২জন, পাশ করেছে ৩৩ জন, জিপিএ-৫ কেউ পায়নি, পাশের হার ৭৮ দশমিক ৫৭ ভাগ। সোনারগাঁও কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ৬৯১জন, পাশ করেছে ৩১৯ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ০ জন, পাশের হার ৪৬ দশমিক ১৬ ভাগ। সোনারগাঁও জিআর ইনস্টিটিউশনে পরীক্ষার্থী ছিলেন ১৮০জন, পাশ করেছে ১০৪ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ০ জন, পাশের হার ৫৭ দশমিক ৭৮ ভাগ। ইউসুফগঞ্জ স্কুল অ্যান্ড কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ১১৪জন, পাশ করেছে ৪৭ জন, জিপিএ-৫ কেউ পায়নি, পাশের হার ২১ দশমিক ২৩ ভাগ। সিনহা উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে পরীক্ষার্থী ছিলেন ১০৮জন, পাশ করেছে ৮৯ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ০জন, পাশের হার ৮২ দশমিক ৪১ ভাগ।

বন্দর উপজেলা-৫টি

ঢাকেশ্বরী মিলস স্কুল অ্যান্ড কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ৪২জন, পাশ করেছে ২২ জন, জিপিএ-৫ কেউ পায়নি, পাশের হার ৫২ দশমিক ৩৮ ভাগ। হাজী ইব্রাহিম আলম চান মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ২৯৪জন, পাশ করেছে ২২১ জন, জিপিএ-৫ ১ জন, পাশের হার ৭৫ দশমিক ১৭ ভাগ। বন্দর গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ২৪৪জন, পাশ করেছে ২১৯ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১৪ জন, পাশের হার ৮৯ দশমিক ৭৫ভাগ। বিএম ইউনিয়ন স্কুল অ্যান্ড কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ৭৫জন, পাশ করেছে ৬১ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২ জন, পাশের হার ৮১ দশমিক ৩৩ ভাগ। কদমরসুল কলেজে পরীক্ষার্থী ছিলেন ৫৮৫জন, পাশ করেছে ৪৪৬ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৯ জন, পাশের হার ৭৬ দশমিক ২৩ ভাগ।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

শিক্ষাঙ্গন -এর সর্বশেষ