৫ আশ্বিন ১৪২৪, বৃহস্পতিবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭ , ২:১৬ পূর্বাহ্ণ

অনিয়মের মাধ্যমে ম্যানেজিং কমিটি গঠনের চেষ্টা বার একাডেমী স্কুলে


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৯:০৪ পিএম, ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৭ সোমবার


অনিয়মের মাধ্যমে ম্যানেজিং কমিটি গঠনের চেষ্টা বার একাডেমী স্কুলে

শতবর্ষী ঐতিহ্যবাহী নারায়ণগঞ্জ বার একাডেমী হাইস্কুলে মেয়াদোত্তীর্ণ এডহক কমিটিকে বৈধ করার পায়তারা চলছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্কুলটির দুর্নীতিবাজ প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামান নিজের স্বার্থ হাসিলের জন্য অনিয়মের মাধ্যমে মেয়াদোত্তীর্ণ এডহক কমিটিকে বৈধ করার প্রচেষ্টা করছেন বলে অভিযোগ জানা গেছে। প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামানের অনিয়ম দুর্নীতি ও সেচ্ছাচারিতার কারণে ঐতিহ্যবাহী শতবর্ষী স্কুলটি ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে উপনীত হয়েছে বলে দাবি এলাকাবাসীর। একসময় স্কুলটিতে দুই হাজার শিক্ষার্থী অধ্যয়ন করলেও বর্তমানে শিক্ষার্থীর সংখ্যা অর্ধেকের কমে নেমে এসেছে। এছাড়া ফলাফলের দিক দিয়েও স্কুলটির অবস্থান তলানীতে নেমে এসেছে। গত ২১ আগষ্ট প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামান মনিরের বিভিন্ন অনিয়ম তুলে ধরে তাকে বরখাস্তের দাবিতে জেলা প্রশাসকের বরাবরে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে একটি লিখিত অভিযোগও দাখিল করা হয়েছে।

জেলা প্রশাসকের বরাবরে লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামানের অনিয়ম দুর্নীতির কারণে স্কুলটির শিক্ষার মান ও পাশের হার এখন সর্বনি¤œ পর্যায়ে। কারণ পাশের হার নগন্য যেহেতু অন্য স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের এই স্কুলের নামে রেজিষ্ট্রেশন করে এস.এস.সি ও জে.এস.সি পরীক্ষায় ফরম ফিলাপ করার সুযোগ দিয়ে এবং মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেন বলে অভিযোগ রয়েছে মনিরুজ্জামানের বিরুদ্ধে। স্কুলটিতে বিগত সময়ে ২০০০ ছাত্র-ছাত্রীর উপরে ছিল। কিন্তু বর্তমানে ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা প্রায় ৮০০ শতে নেমে গেছে এবং ছাত্র-ছাত্রীদেরকে জোর পূর্বক স্কুল ছুটির পরে বাধ্যতামূলক ১ হাজার টাকা মাসিক বেতনে কোচিং ক্লাস করতে বাধ্য করেন।

অভিযোগে আরো উল্লেখ করা হয়, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড ঢাকা এস.এস.সি পরীক্ষা -২০১৪ কালো তালিকাভুক্ত শিক্ষকদের নাম প্রকাশ করেন যাতে নারায়ণগঞ্জ বার একাডেমীর প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামান কোড নং-১০৬৬ (গণিত) স্মারক নং-৫০৮/মাধ্য/পরী/২০০০/ ৪৮৩নং মুলে ৫ বৎসরের জন্য শিক্ষা বোর্ডের কোন কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করতে পারিবে না এবং অত্র বিদ্যালয়ের পরীক্ষা কেন্দ্র বাতিল ঘোষণা করা হলো মর্মে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ডাঃ শ্রীকান্ত কুমার চন্দ্র উল্লেখ করে। ঢাকা কেরানীগঞ্জের তেঘরিয়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে দুর্নীতি, ক্ষমতা অপব্যবহার অসদচারণের জন্য মনিরুজ্জামানকে প্রধান শিক্ষকের পদ থেকে বরখাস্ত করেছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার। নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদ সংলগ্ন কমর আলী উচ্চ বিদ্যালয় থেকেও দুর্নীতি ও চুরির দায়ে ব্যবস্থাপনা কমিটি সদর নির্বাহী অফিসারে মাধ্যমে কমিটি গঠন করিয়া চাকুরীচ্যুত করা হয় এই মনিরুজ্জামানকে।

অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, নরসিংদীর চর মাধবপুরের সরকারি মদিনাতুল দাখিল মাদ্রাসার এমপিও ভুক্ত শিক্ষিকা বিউটি আক্তার মাসের পর মাস অবৈধ ভাবে বালিকা শাখায় বাংলা শিক্ষক হিসাবে নিয়োগ প্রদান করেছেন। যা অবৈধ ও আইন পরিপন্থি। একটি স্কুলের এমপিও ভুক্ত শিক্ষক যার পিআইটি নং-২১১১৩৫৮ সরকারি মদিনাতুল দাখিল মাদ্রাসা, চর মাধবপুর কর্মের অনুপস্থিতি থেকে তার ঘনিষ্ঠ জন অবৈধ ভাবে এবং তার সহযোগিতার শিক্ষকতা করে আসছেন। এই ক্ষমতা লোভী মনিরুজ্জামান তার স্বার্থের প্রয়োজনে ফেব্রুয়ারী ২০১৭ সালের ম্যানেজিং কমিটির মেয়াদ শেষ হলে নতুন শিক্ষাবর্ষের পাঠ্য পুস্তক ক্রয়ের তালিকা প্রকাশ করেন যাহাতে নি¤œমানের বাংলা ও ইংরেজী দ্বিতীয় পত্রের ব্যাকরণ বই পাঠ্যভুক্ত করেছেন। অভিভাবকদের থেকে জানা যায় যে, ২ লক্ষ টাকা খেয়ে নি¤œ মানের বই পাঠ্যসূচী করেন। এই পাঠ্য বই তার সিন্ডিকেটের অন্যতম সহযোগি মতলবের জহির মাষ্টারের নিজস্ব লাইব্রেরী “জহির ষ্টোর” মাধ্যমে প্রধান শিক্ষক বই বিক্রি করেন। এই বই নারায়ণগঞ্জের অন্য কোন লাইব্রেরীতে পাওয়া যায় না। নতুন বর্ষের বই ডিসেম্বর - জানুয়ারী মাসেই পাঠ্যসূচী করা কথা। কিন্তু তখন ম্যানেজিং কমিটির মাধ্যমে করতে হবে বলে তিনি কালক্ষেপন করেন।

এছাড়া চলতি বছরের ফেব্রুয়ারীতে কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ণ হলে নতুন ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন না দিয়ে গড়িমসি করে নিজ স্বার্থ ও খেয়ালখুশি মত ৬ মাসের একটি এডহক কমিটি আনেন। যার প্রধান হলেন প্রধান শিক্ষক দুর্নীতিবাজ মনিরুজ্জামান। এছাড়াও যাদেরকে এডহক কমিটিতে অর্ন্তভুক্ত করা হয়েছে তাদের বিরুদ্ধেও রয়েছে নানাবিধ অভিযোগ।

এ বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের এমপি মুক্তিযোদ্ধা সেলিম ওসমান, জেলা প্রশাসক ও জেলা শিক্ষা অফিসারের সু-দৃষ্টি ও হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

শিক্ষাঙ্গন -এর সর্বশেষ