৮ আশ্বিন ১৪২৪, রবিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭ , ৭:২৯ পূর্বাহ্ণ

আমি হয়তো টার্গেট, ৭ খুনের বাইরেও ভিন্ন খাত থাকতে পারে : পিপি


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:২১ পিএম, ২৪ আগস্ট ২০১৭ বৃহস্পতিবার


আমি হয়তো টার্গেট, ৭ খুনের বাইরেও ভিন্ন খাত থাকতে পারে : পিপি

নারায়ণগঞ্জের আলোচিত সাত খুনের মামলার পিপি ওয়াজেদ আলী খোকন বলেছেন, আসলে এখানে এমনও হতে পারে অন্য কোন পক্ষ ঘটনাটি ঘটিয়ে থাকতে পারে। কারণ আমি একই সাথে রাজনীতিও করি। তবে আমি এ ঘটনায় মামলা করবো, পরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা প্রসিকিউশনের মধ্য দিয়ে ঘটনা উদঘাটনের চেষ্টা করবেন।

বৃহস্পতিবার (২৪ আগস্ট) দুপুরে নিজ বাসায় সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে এসব কথা বলেন তিনি।

প্রসঙ্গত ২৩ আগস্ট বুধবার রাতে সাত খুন মামলা পরিচালনা করা পিপি ওয়াজেদ আলী খোকনের মেয়ে মাইশা ওয়াজেদ প্রাপ্তি শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কে হাজী মঞ্জিলে কোচিং পড়ে বাসায় ফেরার পথে তার মুখে মুখে মিষ্টির সঙ্গে বিষাক্ত কিছু খাইয়ে দেয় অজ্ঞাত পরিচয় দুর্বৃত্তরা। পরে প্রাপ্তিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাতেই সে বাসায় ফিরে আসে।

ওয়াজেদ আলী খোকন নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক। তিনি নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, আমি সাত খুনের মামলায় একাই কাজ করেছি আমার সাথে কাউকে নেইনি কারণ কেউ বায়াস্ট হয়ে মামলার বিচারকে প্রভাবিত করতে পারে। ৯১ জন এপিপি থাকা সত্ত্বেও আমি কাউকে আমার সাথে রাখিনি। সাখাওয়াত হোসেন সহ অন্যরা মামলার বাদীপক্ষের সাথে এবং বিচারের দাবিতে আন্দোলনে ছিলেন কিন্তু মামলার কাজ আমি সম্পূর্ণ সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা করেছি। হয়তো এতেই আমার উপর কোন ক্ষোভ থেকেই এ ধরনের ঘটনা ঘটতে পারে।

তিনি আরো বলেন, আমার কারো সাথে শত্রুতা নেই, আমি কারো কোন ক্ষতিও করিনি এমনকি মামলার বিচারের আগে পরে ও রায়ের আগে পরে আমাকে কেউ কোন প্রকার হুমকি ধমকিও দেয়নি। এখনো আমার উপর কোন হুমকি নেই কিন্তু সকাল থেকেই প্রশাসনের পক্ষ থেকে আমার বাড়িতে পুলিশের নিরাপত্তা দেয়া হচ্ছে। গতকাল বুধবার রাতে যখন আমি আমার মেয়েকে নিয়ে বাসার ফিরি তখনো আমাকে তারা আসতে দিচ্ছিলনা রাতে। তিন থানার পুলিশ আমাকে ও আমার মেয়েকে নিরাপত্তা দিয়ে বাড়ি পৌছে দিয়ে গেছে। এ থেকে বুঝা যাচ্ছে যে আমি হয়তো অপরাধীদের টার্গেটে থাকতে পারি।

খোকন বলেন, ‘আমার ড্রাইভার আমার থেকে চাবি নিয়ে ওকে (প্রাপ্তি) আনতে যাবে এমন সময় আমাকে আমার মেয়ে পৌনে ছয়টায় দিকে ফোন দিয়ে বলে বাবা কারা জানি তোমার বন্ধু পরিচয়ে আমাকে মিষ্টির সাথে বিষ মিশিয়ে খাইয়ে দিয়েছে, আমি মরে যাবো আমাকে বাচাও। তখন আমি দৌড়ে গ্যারেজের সামনে যাই ততক্ষনে আমার মেয়ে গলাচিপা পার হয়ে যায়। আমি লুঙ্গি পরিহিত অবস্থায় আমার মেয়েকে নিয়ে হাসপাতালে যাই। মেয়ে বার বার বলতে থাকে বাবা গলা বুক জ্বলছে হয়তো আমি মরে যাবো আমাকে বাঁচাও। প্রাপ্তি তখন একাধিক বমি করে এবং বমি থেকে বিশ্রী দুর্গন্ধ বের হয় যা থেকে বুঝা যায় যে বিষজাতীয় কিছুই তাকে খাওয়ানো হয়েছিল।’

তিনি বলেন, ‘আমি পিপি তাই মামলার পরে হয়তো অনেকে আমাকে বলতে পারে আমি মামলা প্রভাবিত করছি তাই আমি না আমার স্ত্রী বাদী হয়ে ৩০৭ ও ২৭ ধারাও দুটি হত্যাচেষ্টা মামলা দায়ের করবে। রাত থেকে ঘটনাস্থলে আমাদের এসপি, ডিবি, পুলিশ, র‌্যাব এবং সাংবাদিকরা ঘটনার সূত্র খুঁজে বের করার চেষ্টা করছেন। আমি নিজেও এখনো বুঝতে পারছিনা ঠিক কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে।’

তিনি বলেন, যারাই এ ঘটনা ঘটিয়েছে তারা আমার সম্পর্কে অনেক খোঁজ খবরও রেখেছে কারণ তা যদি না হতো তাহলে তারা আমার ভাই মারা গেছে কিছুদিন আগে সেটাও আমার মেয়েকে বলেছে, আমার পরিবার সম্পর্কে আরো কিছু কথা বলে আমার মেয়েকে বুঝানোর চেষ্টা করেছে যে আসলেই তারা আমার বন্ধু। তবে আমি আশাবাদী খুব শিগগির আমাদের প্রশাসনের লোকজন এ ঘটনার সাথে যারা জড়িত তাদেরকে খুঁজে বের করবেন।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Loading...
Shirt Piece

সাক্ষাৎকার -এর সর্বশেষ