৫ কার্তিক ১৪২৪, শুক্রবার ২০ অক্টোবর ২০১৭ , ৯:৫১ অপরাহ্ণ

রোহিঙ্গা ইস্যুতে শহরে ব্যাপক চাঁদাবাজী!


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৩:৫৩ পিএম, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭ বুধবার


রোহিঙ্গা ইস্যুতে শহরে ব্যাপক চাঁদাবাজী!

‘মঙ্গলবার ১৯ সেপ্টেম্বর সকাল ১১টা। নারায়ণগঞ্জ শহরের চাষাঢ়ায় বঙ্গবন্ধু সড়কের পাশে মর্ডাণ ডায়াগনস্টিক সেন্টারের সামনে দুই যুবক হাতে দুটি কাগজের বাক্স বানিয়ে মানুষের কাছে হাত পেতে দাঁড়িয়ে ছিল। বাক্সে লেখা ছিল রোহিঙ্গাদের জন্য দান করুন। ওই সময়ে সামনের এক দোকানদার হঠাৎ দুই যুবককে চিনে বলতে লাগলো ‘তোরা না টোকাই কাগজ কুড়াস এই কাজ করে থেকে’ বলতেই ওই বাক্স ফেলেই দৌড়ে পালিয়ে গেল।’

কাকতালীয় ওই সময়ে এ প্রতিবেদক বিষয়টি অবলোকন করে। রাস্তায় থাকা ওই ডাবের দোকানদার সোলায়মান মিয়া জানান, যে দুই যুবক টাকা উঠাচ্ছিল তারা শহরের নন্দীপাড়া এলাকাতে ভাঙারী দোকানে কুড়ানো কাগজ বিক্রি করতো। এখন হঠাৎ রোহিঙ্গাদের জন্য দেখলাম টাকা উঠাচ্ছে। তাই ডাক দেওয়ার সাথে সাথে দৌড়ে পালিয়ে যায়।

ওই দোকানদার সোলায়মান আরো জানান, প্রতিদিন শহরের বিভিন্ন সড়কে তিনি ডাব বিক্রি করেন। প্রায়শই দেখেন এ রকম বিভিন্ন শ্রেণির লোকজন বাক্স নিয়ে রোহিঙ্গাদের জন্য টাকা উঠাচ্ছেন। ‘এসব টাকা আদৌ রোহিঙ্গাদের কাছে যাচ্ছে কী না’ সেটা নিয়েও যথেষ্ট সন্দেহ পোষণ করেন তিনি।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, রোহিঙ্গা ইস্যুতে অনেক সামাজিক সংগঠন ও ব্যক্তি উদ্যোগে ত্রাণ সংগ্রহ করা হচ্ছে। অনেকেই এসব ত্রাণ ও টাকা হয়তো পৌছে দিচ্ছে। কিন্তু অনেক ভূইফোড় সংগঠন ও ব্যক্তি এটাকে প্রতারণা হিসেবে নিয়েছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন নির্বাচিত সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর জানান, তিনি এখন প্রায়শই বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে এভাবে লোকজনদের ত্রাণ সংগ্রহ করতে দেখছেন। অনেক যুবককে এ টাকা সংগ্রহে দেখা যায় যাদেরকে তিনি ঠিকমত চিনেন না। এরা বহিরাগত লোকজন। জানতে পেরেছি অনেক বহিরাগত লোকজন এসে এভাবে টাকা তুলে নিচ্ছে।

শহরের ডনচেম্বার এলাকার বাসিন্দা হাবিবা আক্তার জানান, তার বাসায় কয়েকজন যুবক ‘রোহিঙ্গা পুনর্বাসন কমিটি’ পরিচয় দিয়ে সহযোগিতা চান। তবে তাদের আচরণ ও কথা বলার ভঙ্গি আমার কাছে সাবলীল তথা সুস্থ মনে হয়নি। তার পরেও সন্দেহ নিয়েই রোহিঙ্গাদের মানবিকতার কথা চিন্তা করে টাকা দিয়েছি। জানি না ওই টাকা পৌছাবে কী না।

শহরের বেশ কয়েকজন জানান, রোহিঙ্গা ইস্যুতে বেশ স্পর্শকাতর ও মানবিক আবেদনময়ী। সে কারণেই বিশ্বাস করে যারাই তহবিল সংগ্রহের নামে আসছে দিচ্ছি। যদিও এর সুষ্ঠু বন্টন নিয়ে প্রশ্ন আছে। মাঝেমধ্যে অনেক স্থানেই দেখেই অনেক অপরিচিত ও নেশাখোর প্রকৃতির লোকজনও ভালো জামা কাপড় পড়ে হাতে বাক্স নিয়ে মাঠে নেমে যাচ্ছে। প্রশাসনের পাশাপাশি আমাদেরও এ ব্যাপারে একটু সচেতন হওয়া প্রয়োজন। কারণ মানুষের ইমোশনকে এভাবে ব্ল্যাকমেইলিং করা ঠিক হচ্ছে না।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

মহানগর -এর সর্বশেষ