৮ শ্রাবণ ১৪২৪, রবিবার ২৩ জুলাই ২০১৭ , ৬:৩২ অপরাহ্ণ

diamond world

শামীম ওসমানের বিরুদ্ধে প্রথম বিদ্রোহ ফতুল্লায়


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:২৬ পিএম, ১৬ জুলাই ২০১৭ রবিবার | আপডেট: ০১:৩৫ পিএম, ১৮ জুলাই ২০১৭ মঙ্গলবার


শামীম ওসমানের বিরুদ্ধে প্রথম বিদ্রোহ ফতুল্লায়

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় শ্রমিকদের চাঁদা না দেয়া নিয়ে আওয়ামীলীগ-শ্রমিকলীগের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনার যে মামলা হয় মূলত তখন থেকেই এমপি শামীম ওসমানের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ শুরু হয়। আর সেটার প্রভাব ফেলে পরবর্তীতে যুব মহিলা লীগের কমিটি গঠন ও এ নিয়ে নেতাদের বক্তব্যের প্রতিফলনে।

আওয়াম লীগের একাধিক নেতা জানান, ঈদের আগে রোজার মধ্যে ফতুল্লায় এনায়েতনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামানের সঙ্গে পাগলার শ্রমিক লীগ নেতা কাউসার আহমেদ পলাশ গ্রুপের মধ্যকার মারামারির পরেই থানায় পাল্টাপাল্টি মামলা হয়। আসাদুজ্জামান মূলত এমপি শামীম ওসমানের লোক হিসেবেই পরিচিত। তিনি ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি। গত বছরের এপ্রিলে ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে আসাদুজ্জামানের পক্ষে নারায়ণগঞ্জ সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে কেন্দ্র দখল ও সেখানে নৌকার পক্ষে জোর করে সীল মারতে দেখা গিয়েছিল শামীম ওসমান পন্থীদের। তাছাড়া ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের নেতারাও আসাদুজ্জামানের পক্ষে। এ অবস্থায় গত ২১ জুন আসাদুজ্জামানের সঙ্গে পলাশ পন্থীদের ব্যাপক সংঘর্ষের সময়ে আসাদুজ্জামান নিজেও রক্তাক্ত হন। পরে থানায় মামলাও ঠুকে দেয় পলাশ পন্থীরা।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, আসাদুজ্জামানের বিরুদ্ধে মামলা গ্রহণ ছিল শামীম ওসমানের বিরুদ্ধে রীতিমত বিদ্রোহ। এখানে পলাশ নিজের শক্তি ও ক্ষমতার প্রদর্শণ দেখিয়েছেন। আর সে কারণেই পুলিশ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা গ্রহণ করেছেন। সবচেয়ে বড় বিষয় ছিল তিনি চেয়ারম্যান ছাড়াও শামীম ওসমানের ঘনিষ্টজনদের একজন। এখানে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা করা মানে শামীম ওসমানের চেইন অব কমান্ডের বিরোধীতা তথা ভঙ্গ করা। তাছাড়া মামলা ছাড়াও আসাদের বিরুদ্ধে ফতুল্লাতে সড়ক অবরোধ ও মিছিলও হয়েছে।

এদিকে আওয়ামীলীগ নেতা ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের উপর হামলা ও তার বিরুদ্ধে মামলা দায়েরে বিভিন্ন মহলে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনা নিয়ে সরকারী দলের দু’পক্ষের মধ্যে প্রকাশ্যে বিরোধের রূপ নেয়ার সম্ভবনা রয়েছে। চেয়ারম্যানের পক্ষে অবস্থান নিবে ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি এম সাইফউল্লাহ বাদল, সাধারন সম্পাদক শওকত আলী এবং শ্রমিক নেতাদের পক্ষে অবস্থান নিবে জাতীয় শ্রমিক লীগ নেতা কাউছার আহম্মেদ পলাশ।

এনায়েতনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান সরকারী দলের নেতা হলেও তার পক্ষে সরকারী দলের নেতাদের শক্ত কোন ভুমিকা দেখা যাচ্ছে না। চেয়ারম্যানের উপর হামলা আবার তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হলেও ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগ নিরব ভুমিকা পালন করছে বলে অভিযোগ সাধারন নেতাকর্মীদের। তবে ট্রাক শ্রমিক ও লোড আনলোড ও জাহাজী শ্রমিক নেতাদের উপর হামলার ঘটনার পর পর শ্রমিক নেতৃবৃন্দরা প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ করেছে এবং সন্ত্রাসী গ্রেপ্তার দাবি জানিয়েছে। প্রতিবাদকারীরা জাতীয় শ্রমিক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির শ্রমিক উন্নয়ন ও কল্যান বিষয়ক সম্পাদক কাউছার আহম্মেদ পলাশের সমর্থীত লোকজন। তারা শ্রমিক নেতা নুরুল ইসলাম, রুহুল আমিনসহ যেসকল লোকদের উপর হামলা চালানো হয়েছে তার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে। তবে শ্রমিকদের চাঁদা দিতে নিষেধ করায় এনায়েতনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান হামলার শিকার হওয়ায় সদর উপজেলার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নিন্দা জানিয়েছে। একজন চেয়ারম্যানের উপর হামলা চালিয়ে তাকে অবরূদ্ধ করে রাখাটা খুবই দু:খজনক। তার পর আবার চেয়ারম্যানকে প্রধান আসামী করে মামলা দায়ের।
 
এনায়েতনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামানের উপর হামলা ও মামলা দায়ের বিষয় নিয়ে নিরপেক্ষ তদন্ত শুরু করছে গোয়েন্দা সংস্থা। এছাড়া শ্রমিক নেতা নুরুল ইসলাম, রুহুল আমিন মেম্বার, আব্দুল লতিফ গংরা শ্রমিকদের কাছ থেকে কিভাবে পন্থা চাঁদা আদায় করে এবং তাদের পিছনে কার শেল্টার ও ইন্ধনে রয়েছে তা খতিয়ে দেখছেন গোয়েন্দা সংস্থা। নারায়ণগঞ্জের এক গোয়েন্দা সংস্থার অফিসারের সাথে আলোচনা করে এমন তথ্য জানা গেছে।

২১ জুন ধর্মগঞ্জে দু’গ্রুপের সংঘর্ষে ঘটনায় বৃহস্পতিবার ফতুল্লা মডেল থানায় পাল্টাপাল্টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এনিয়ে উভয়পক্ষের মধ্যে প্রতিনিয়ত উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ছে। তারা কেউ কাউকে ছাড় দিতে নারাজ। আর চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামানের দায়েরকৃত মামলায় আসামী করা হয়েছে ট্রাক শ্রমিক নেতা নুরুল ইসলাম, লতিফ বেপারী, সাবেক মেম্বার রুহুল আমিন, সেলিম মিয়া, ইউসুফসহ অজ্ঞাতনামা আরো ১০/১২জন। আর ট্রাক শ্রমিক নেতা নুরুল ইসলামের দায়েরকৃত মামলায় আসামী করা হয়েছে এনায়েতনগর ইউনিয়ন পরষিদের চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান, থানা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোশারফ হোসেন, রিপন, মাহবুবুল আলম শাহিন, পল্টু, কাওসার পাক, ইকবাল, আব্দুর রহিম, সোহেল।
 

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ