৯ শ্রাবণ ১৪২৪, সোমবার ২৪ জুলাই ২০১৭ , ২:৩৮ অপরাহ্ণ

diamond world

জেলা বিএনপির মেরুকরণে বিভ্রান্তিতে নেতাকর্মীরা


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৯:২৭ পিএম, ১৬ জুলাই ২০১৭ রবিবার


জেলা বিএনপির মেরুকরণে বিভ্রান্তিতে নেতাকর্মীরা

নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির নতুন মেরুকরণ ও জেলার বিএনপির সভাপতির নিজের একাকী মেরুকরণের চেষ্টায় বিভ্রান্তিতে রয়েছে দলের তৃনমুল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা। দলের নেতাদের মেরুকরণে কিছুটা অস্বস্তিতেও রয়েছে দলের এসব কর্মীরা। তবে এসব মেরুকরণে থাকলেও দলের স্বার্থে ও আগামীতে নির্বাচনে দল অংশ নিলে দলের সর্বোচ্চ নেতা বেগন খালেদা জিয়ার কথাই শেষ কথা হিসেবে গম্য করে প্রাধান্য দেবে নেতারা এমনটাই প্রত্যাশা দলের সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের।
 
জানা যায়, সম্প্রতি জেলা বিএনপির শীর্ষ নেতারা জেলার নেতাদের নিয়ে না ভেবে নিজেদের কথা চিন্তা করায় জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার, নারায়ণগঞ্জ ৪ আসনের সাবেক সাংসদ গিয়াসউদ্দিন, কুতুবপুর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি মনিরুল আলম সেন্টুসহ অনেক নেতারা একদিকের মেরুকরণে যোগ দিয়েছেন। এ মেরুকরণে জেলা বিএনপির সাবেক ও বর্তমান অনেক নেতাই রয়েছেন এমনকি তারা দলের সকল কর্মসূচীতে দলের নেতাকর্মীদের সম্পৃক্ত করে অংশ নিচ্ছেন।
 
আবার জেলা বিএনপির সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান ও মামুন মাহমুদ আলাদা বলয়ের চেষ্টা করতেও নিজেরাই ব্যর্থ হচ্ছেন। কারণ কাজী মনিরের কর্মচারীসুলভ আচরন ও জেলা বিএনপির নেতাকর্মীদের নিয়ে না ভেবে নিজ বলয়ের কিছু নেতাকর্মী নিয়ে ভাবার কারণে কর্মীরাই তাদের সাথে আর গাটছাটা বাধতে চাচ্ছেন না। তার উপর তারা দলের সকল কর্মসূচীকে ভাবেন রূপগঞ্জ কেন্দ্রীক যার ফলে সকল থানার নেতাকর্মীরা তাদের সাথে থাকলে কিছুটা সন্দিহান ভাবভঙ্গি প্রকাশ করেন।
 
দলের এসব বলয়ের কারণে জেলা বিএনপির কোন বলয়ে এখন দলের তৃনমুলের কর্মীরা রাজনীতি করবেন তা নিয়ে রয়েছেন বিভ্রান্তিতে। কারণ জেলা বিএনপির শীর্ষ নেতা দুজন কর্মীদের কথা না ভাবলেও তারা রয়েছেন জেলার পদে যদিও জেলা ও থানা বিএনপির নেতাকর্মীদের পদ দেয়া নিয়ে তারা ভাবছেন না বা ভেবে এখন পর্যন্ত দলের নেতাদের সাথে বসতেও পারেননি। দলের এসব নেতারা আগামীতে দলের হয়ে কর্মীদের জন্য পদের চেষ্টা করবেন এমন কোন আভাসও দেখছেন না কর্মীরা তাই তাদের সাথে থাকতে চেয়ে আবার পিছিয়ে পড়ছেন নেতাকর্মীরা। অপরদিকে জেলা বিএনপির পদ না থাকলেও অপর বলয়ের তৈমুর বিগত সময়ে ছিলেন আন্দোলন সংগ্রামে সক্রিয়, কর্মীরা ডাকলেও তাকে পান। আবার সাবেক সাংসদ গিয়াসউদ্দিন এখন পুরোদমে মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন এবং নেতাকর্মীদের নিয়ে নিয়মিত বসছেন ও দলের হয়ে রাজনীতি চাঙ্গা করার চেষ্টা করছেন তাই তাদের সঙ্গে থাকতে চাচ্ছেন নেতাকর্মীরা কিন্তু পদের নেতাকর্মীরা এ বলয়ের সঙ্গে দূরত্ব বজায় রাখে বিধেয় তারা সেই কাজটিও করছেন না প্রকাশ্যে। তাই এখন জেলা বিএনপির মেরুকরণে স্বভাবতই বিভ্রান্তিতে রয়েছে নেতাকর্মীরা আর তাই তারা দ্রুত দলের এয় চলমান অবস্থা থেকে মুক্ত হতে দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ