৪ অগ্রাহায়ণ ১৪২৪, রবিবার ১৯ নভেম্বর ২০১৭ , ৩:০৬ পূর্বাহ্ণ

অবশেষে আনোয়ার ও খোকন সাহার জয়


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৯:৪৩ পিএম, ২৪ জুলাই ২০১৭ সোমবার | আপডেট: ০৯:৫৬ পিএম, ২৫ জুলাই ২০১৭ মঙ্গলবার


অবশেষে আনোয়ার ও খোকন সাহার জয়

দীর্ঘ বিতর্কের পর জয়ী হলেন আনোয়ার হোসেন ও খোকন সাহা। পেরে ওঠলেন না জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আবদুুল হাই, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবু হাসনাত মোহাম্মদ শহীদ বাদল ও আওয়ামীলীগ নেতা আরজু রহমান ভুইয়া। তাদের দাবি ফিকে করে দিলেন কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ। শুধু বন্দরের ৫টি ইউনিয়নই নয় সেই সঙ্গে আনোয়ার হোসেন ও খোকন সাহা জয় করলেন নারায়ণগঞ্জ সদর থানাধীন গোগনগর ইউনিয়ন ও আলীরটেক ইউনিয়ন এলাকাও। সিটি কর্পোরেশনের পার্শ্ববর্তী এলাকা বন্দরের ৫টি ইউনিয়ন ও সদর থানার আরো দুটি ইউনিয়নকে মহানগর আওয়ামীলীগের আওতাধীন হিসেবে ঘোষণা দিয়েছেন কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ। এর আগে বিতর্ক সৃষ্টি করেছিলেন উল্লেখিত তিন নেতা।

জানা গেছে, রোববার ২৩ জুলাই নারায়ণগঞ্জ সিটি করকর্পোরেশনের ২৭টি ওয়ার্ড ও বন্দর উপজেলার ৫টি ইউনিয়ন এলাকা সহ নারায়ণগঞ্জ সদর থানাধীন দু’টি ইউনিয়নকে নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের আওতাধীন পরিচালিত হবে বলে সিদ্ধান্ত দিয়েছে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ। রোববার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খোকন সাহার সঙ্গে দীর্ঘ এক ঘন্টা বৈঠক শেষে এ সিদ্ধান্ত দেন ঢাকা বিভাগীয় আওয়ামীলীগের দায়িত্ব প্রাপ্ত কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. দিপু মনি এমপি। আওয়ামীলীগের ধানমন্ডি কার্যালয়ে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের নেতাদের সঙ্গে বিকেল সাড়ে ৪টা থেকে সাড়ে ৫টা পর্যন্ত বৈঠক শেষে এ সিদ্ধান্ত দেন ড. দিপু মনি।

এ সিদ্ধান্তের বিষয়ে সত্যতা স্বীকার করে নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খোকন সাহা মিডিয়াতে জানিয়েছিলেন, রোববার ঢাকার ধানমন্ডি কার্যালয়ে বৈঠকে ড. দিপু মনি আওয়ামীলীগের গঠনতন্ত্র দেখে সিদ্ধান্ত দিয়েছেন যে, বন্দরে সিটি কর্পোরেশনের ৯টি ওয়ার্ড এলাকা ও বাকি ৫টি ইউনিয়ন এলাকা নিয়ে বন্দর থানা কমিটি গঠিত হবে এবং বন্দর থানা কমিটি মহানগর আওতাধীন পরিচালিত হবে। এছাড়া সিদ্ধিরগঞ্জের ১ থেকে ১০নং ওয়ার্ড পর্যন্ত সিদ্ধিরগঞ্জ থানা কমিটি হবে এবং সদরের ১১নং ওয়ার্ড থেকে ১৮নং ওয়ার্ডের সঙ্গে আলীরটেক ইউনিয়ন ও গোগনগর ইউনিয়ন এলাকা নিয়ে সদর থানা আওয়ামীলীগের কমিটি হবে। এসব থানা কমিটি মহানগর আওয়ামীলীগের আওতাধীন হবে। প্রতিটি থানায় একটি করে কমিটি হবে। আমাদের এ সিদ্ধান্ত মোতাবেক কর্মী সংগ্রহ অভিযান চালিয়ে যাওয়ার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। আমরা কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সিদ্ধান্ত মোতাবেক এবং নির্দেশনা অনুযায়ী সদস্য সংগ্রহ অভিযান পরিচালনা করব।

এখানে উল্লেখ্য যে, সম্প্রতি বন্দর মুছাপুর ইউনিয়ন এলাকায় মহানগর আওয়ামীলীগের কর্মী সভা নিয়ে বিরোধীতা করে জেলা আওয়ামীলীগ। জেলা আওয়ামীলীগ নেতা আরজু রহমান ভুইয়া কেন্দ্রে অভিযোগ দিয়েছিলেন। এ নিয়ে পাল্টা পাল্টি বক্তব্য দিয়েছিল জেলা ও মহানগর আওয়ামীলীগ। উভয় পক্ষ দাবি করেছিলেন বন্দরের ৫টি ইউনিয়ন তাদের স্বস্ব কমিটির আওতাধীন। এদিকে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সিদ্ধান্তে বন্দরের ৫টি ইউনিয়ন এলাকাই নয় শুধু সদর থানাধীন আরো দুটি ইউনিয়ন মহানগর আওয়ামীলীগের আওতাধীন হবে বলে ঘোষণা দিয়েছে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ। যে কারনে অনেকেই বলেছেন আনোয়ার হোসেন ও খোকন সাহাই জয়ী হয়েছেন এ লড়াইয়ে।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ