৮ আশ্বিন ১৪২৪, রবিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭ , ৭:২৯ পূর্বাহ্ণ

২০ দলীয় জোটের সভা

সাখাওয়াতকে পিটিয়ে বন্দনা কালামের কণ্ঠে


|| নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:৫৯ পিএম, ১৯ আগস্ট ২০১৭ শনিবার


সাখাওয়াতকে পিটিয়ে বন্দনা কালামের কণ্ঠে

নারায়ণগঞ্জে বিএনপির সদস্য সংগ্রহ অনুষ্ঠান করতে গিয়ে হামলার শিকার হন মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন খান যিনি অভিযোগ করেছিলেন ওই হামলায় সভাপতি আবুল কালামের লোকজন জড়িত। তবে ঘটনার ৮দিন পরে নারায়ণগঞ্জ মহানগর ২০ দলীয় জোটের সভায় সেই সাখাওয়াত হোসেন খানের ‘বন্দনা’ শোনা গেছে কালামের কণ্ঠে। ওই সময়ে তিনি সাখাওয়াত বন্দনা করতে করতে এতটাই আবেগপ্রবণ হয়ে উঠেন যে পাশে থাকা অপর সহ সভাপতি অ্যাডভোকেট জাকির হোসেনকে বার বার ‘সাখাওয়াত হোসেন খান’ বলেই পরিচয় করিয়ে দিতে থাকেন।

১৯ আগস্ট শনিবার বিকেলে শহরের শায়েস্তা খান সড়কে আবুল কালামের বাসায় ওই সভাটি হয় যেখানে তিনি নিজেই সভাপতিত্ব করেন। এতে মহানগর জামায়াতে ইসলামীর আমীর মাওলানা মাঈনউদ্দিন আহমদ, মহানগর বিএনপির সেক্রেটারী এটিএম কামাল, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু আল ইউসুফ খান টিপু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে বন্দর উপজেলার কলাগাছিয়া ইউনিয়ন বিএনপির আয়োজিত সদস্য সংগ্রহ অনুষ্ঠানে যাবার পথে মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খানকে বাধা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে মহানগর বিএনপির সভাপতি আবুল কালাম সমর্থিত নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে। এসময় সাখাওয়াত হোসেনের অনুষ্ঠানের আয়োজকরা তাকে গিয়ে উদ্ধার করে। শুক্রবার ১১ আগস্ট বিকেল সাড়ে ৪টায় বন্দরের কলাগাছিয়া এলাকায় শুভকরদি উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে কলাগাছিয়া ইউনিয়ন বিএনপি নেতা আমিনুল ইসলামের আয়োজিত সমাবেশে যাবার পথে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় অনুষ্ঠানস্থল থেকে প্রায় ৫০ গজ দূরে চোনাঘোড়া মসজিদের সামনে দিয়ে সাখাওয়াত হোসেন অনুষ্ঠানে যাবার সময় তার গাড়ি আটকে সেখানে যেতে তাকে বাধা প্রদান করে কালাম সমর্থিত নেতা শতাধিক নেতাকর্মী। বাধা প্রদানের নেতৃত্ব দেয় ইউনিয়ন বিএনপি নেতা আলতাফ হোসেন। উপস্থিত ছিল ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা।  পরে অনুষ্ঠানস্থল থেকে জাকির খানের সমর্থিত আয়োজকরা বাধার সংবাদ পেয়ে দৌড়ে এসে সাখাওয়াত হোসেনকে উদ্ধার করে মিছিল করে নিয়ে যার অনুষ্ঠানস্থলে। এ সময় বাধাপ্রদানকারীদের সাথে তাদের তুমুল বাক বিতন্ডা ঘটে।

মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান জানান, কলাগাছিয়ায় অনুষ্ঠানস্থল থেকে প্রায় ৫০গজ দূরে চোনাঘোড়া মসজিদের সামনে দিয়ে সাখাওয়াত হোসেন অনুষ্ঠানে যাবার সময় তার গাড়ি আটকে সেখানে যেতে তাকে বাধা প্রদান করে কালাম সমর্থিত নেতা শতাধিক নেতাকর্মী। আমার গাড়িতে কালাম সাহেবের লোকজন বাধা দিয়েছে, পরে নেতাকর্মীরা গিয়ে তাদের সরিয়ে আমাকে অনুষ্ঠানে নিয়ে আসে। আমি দলের কর্মসূচী করতে এসেছি, দলের একজন নেতা হয়ে এভাবে নেতাকর্মী দিয়ে বাধা দেয়ার নিন্দা জানানোর ভাষা আমার জানা নেই।

শনিবার ২০ দলীয় জোটের সভায় আবুল কালাম বলেন, ‘সাখাওয়াত হোসেন খান আমাদের সহ সভাপতি তিনিও কাজ করে যাচ্ছেন। আমার পাশেই তিনি আছেন।’

ওই সময়ে তিনি জাকির হোসেনকে বার বার সাখাওয়াত পরিচয় করিয়ে দেওয়ায় সেখানে গুঞ্জনের সৃষ্টি হয়। তখন অনেকেই বলে উঠেন, যে সাখাওয়াত ও কালামকে নিয়ে এত কিছু সেই সাখাওয়াতকে নিয়ে কালামের বন্দনা প্রশ্নবিদ্ধ। কারণ এর আগে সাখাওয়াত হোসেন খান বেশ কয়েকবার বক্তব্যে আবুল কালামে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘৫ তলায় বসে মনোনয়নের স্বপ্ন দেখা ঠিক না।’ প্রসঙ্গত আবুল কালামের অফিসটি শায়েস্তা খান সড়কের ৫ম তলাতেই।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Loading...
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ