৫ আশ্বিন ১৪২৪, বৃহস্পতিবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭ , ২:১৬ পূর্বাহ্ণ

সাখাওয়াত ও খোরশেদকে ভয় কালামের


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:০৩ পিএম, ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ মঙ্গলবার


সাখাওয়াত ও খোরশেদকে ভয় কালামের

নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন খান ও মহানগর যুবদলের আহবায়ক মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদকে নিয়ে ভীত মহানগর সভাপতি আবুল কালাম। এর আগে কালাম নিজেকে বেশ অপ্রতিরোধ্য ভাবলেও এখন তাঁর সামনে দুই প্রার্থী পথের কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

আর সেটাও আবুল কালামের বক্তব্যে উঠে আসছে। আবুল কালামের ঘনিষ্টজনেরাই বলছেন, সাখাওয়াত ও খোরশেদ দুইজনই বিএনপি করে। তারা বিএনপির সক্রিয় নেতা। তাদের মনোনয়ন চাওয়ার অধিকার আছে। কিন্তু আবুল কালাম তাদের নিয়ে বক্তব্য দেওয়া মানেই নিজের দুর্বল অবস্থান পরিস্কার করা।

কারণ নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে নিজেকে অপ্রতিরোধ্য এমপি প্রার্থী হিসেবেই ভাবতেন আবুল কালাম। তিনবারের এমপি আবুল কালাম এখন মহানগর বিএনপির সভাপতি। তবে আগামী নির্বাচনের আগে কালামের সে ভাবনাতে চিড় ধরিয়েছেন মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন খান ও মহানগর যুবদলের আহবায়ক মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ। এ দুই প্রার্থী শুরু করেছেন প্রচারণা।

এ অবস্থায় সোমবার ১১ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় নারায়ণগঞ্জের কালিরবাজারে মহানগর বিএনপির অস্থায়ী কার্যালয়ে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার ১০ম কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে আয়োজিত দোয়া ও আলোচনা সভায় নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সভাপতি আবুল কালাম বলেছেন, নির্বাচনের খবর নেই এখনো আন্দোলন চলছে আমাদের। আমাদের নির্বাচনে আমাদের নেত্রী যাকেই মনোনয়ন দিবেন তাকেই আমরা গ্রহণ করবো কিন্তু এখনই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নিজেকে প্রার্থী ঘোষণা করে মাঠে নেমে প্রচারনা চালানোর রাজনীতি বেয়াদবি ও অপরাজনীতির শামিল।

অপরদিকে সাখাওয়াত বলেছেন, আমাদের মাঝে প্রতিযোগিতা আছে কিন্তু কোন বিভেদ নেই। যারাই বলেন আমাদের দলে বিভেদ আছে তারা ভুল বুঝছেন। বিএনপির এখন সবচেয়ে প্রয়োজন ঐক্য আর এ ঐক্যের জন্য আমরা একসাথে মাঠে কাজ করবো। আমরা সকল কিছুর উপরে উঠে নেত্রীর ডাকে আগামীতে যেকোন আন্দোলন সংগ্রামে মাঠে থাকবো আমরা সবাই।

গত কয়েক মাস ধরেই সাখাওয়াত বেশ আটঘাট বেধে মাঠে নামলেও ৯ সেপ্টেম্বর শনিবার বন্দরে যুবদলের একটি অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে খোরশেদ যিনি টানা তিনবারের সর্বোচ্চ ভোটে কাউন্সিলর নির্বাচিত তিনি নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, মনোয়ন চাওয়া কর্মীদের অধিকার। বেগম খালেদা জিয়া ঘোষিত ভিশন-২০৩০ সফল করতে আপনাদের সমর্থন পেলে আসন্ন নির্বাচনের তৃণমূলের প্রতিনিধি হিসাবে অংশ নিতে চাই। তবে মনোনয়নের লোভে আমরা নেতাকর্মীদের বিভ্রান্ত করবো না। কাঁদা ছোড়াছুড়ি করে দলের বদনাম করব না, দলের কাজ করবো। নেত্রী যাকে যোগ্য মনে করবে, যাকে দিবে তার পাশে থাকবো আমরা।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ