৫ আশ্বিন ১৪২৪, বৃহস্পতিবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭ , ২:১৬ পূর্বাহ্ণ

আনভীরের প্রতিদ্বন্দ্বি দিপু ভূইয়া!


রূপগঞ্জ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ১১:০৭ পিএম, ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ মঙ্গলবার | আপডেট: ০৮:২০ পিএম, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭ বৃহস্পতিবার


আনভীরের প্রতিদ্বন্দ্বি দিপু ভূইয়া!

নারায়ণগঞ্জ-১ তথা রূপগঞ্জ আসনে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের পক্ষে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের তালিকাতে নাম না থাকলেও বসুন্ধরা গ্রুপের পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীরের পক্ষে চলছে আগাম প্রচারণা। ফলে সেখানে বিএনপির প্রার্থী কে হতে পারেন সেটা নিয়েও শুরু হয়েছে আলোচনা। বয়সে আনভীর অনেক তরুণ। এতে বিএনপিতেও যদি তরুণ প্রার্থীদের অগ্রাধিকার দেওয়া হয় তাহলে শীর্ষে থাকবেন বিএনপির কেন্দ্রীয় ও জেলা কমিটির সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান ভূইয়া দিপু।

জানা গেছে, বিএনপিতে দলীয় মনোনয়ন পেতে মাঠে কাজ করছেন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা ও নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি এডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার, বর্তমান সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান ও বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান ভূঁইয়া দিপু। তৈমূর আলম খন্দকার এক সভায় ঘোষণা দেন, মনোনয়নে প্রয়োজনে দিপু ভূইয়াকে ছাড় দেয়া হবে। কিন্তু কাজী মনিরুজ্জামানকে নয়। এ ঘোষণার পর থেকে রূপগঞ্জ বিএনপিতে আলোচনার ঝড় শুরু হয়।

এদিকে এ আসনে দিপু অনেক জনপ্রিয়। তাছাড়া কাজী মনির সভাপতি হলেও তিনি বিএনপিকে গোছাতে পারছেন না বরং বিএনপিতে কোন্দল আর বিভাজন বেড়েই চলেছে। অপরদিকে ভোটের ক্ষেত্রে এখানে দলের প্রতীকের পাশাপাশি ব্যক্তি জনপ্রিয়তাও বড় ফ্যাক্টর। সেখানে দিপু ভূইয়ার রয়েছে পারিবারিক ও ব্যক্তি জনপ্রিয়তা।

সে কারণে সেখানে কাজী মনিরের চেয়ে দিপুরও জনপ্রিয়তা রয়েছে বেশী আন্তরিক। তাছাড়া কাজী মনিরের দল পাল্টানোর অভিযোগও অনেক। কখনো জাতীয় পার্টি কখনো বিএনপি করেছেন তিনি। ২০১৪ সালের জানুয়ারীতে যখন দেশে তুমুল আন্দোলন তখন তিনি সরকার দলের মন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। ওইসব বৈঠকে খালেদা জিয়াকে অশ্লীল ভাষায় আক্রমণ করা হলেও মুচকি হেসেছিলেন কাজী মনির। তাছাড়া তরুণ প্রার্থী হিসেবে দিপু ভূইয়া দলীয় মনোনয়নে অনেকটা এগিয়ে রয়েছেন বলে বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে।

দিপু ভূইয়া মনোনয়ন পেলে তৈমূর আলম খন্দকার তাঁর পক্ষেই মাঠে নেমে নির্বাচন করবেন। কিন্তু কাজী মনিরের পক্ষে কোনো প্রার্থী ও তৃণমূল বিএনপি মাঠে থাকবেনা বলে রূপগঞ্জ উপজেলা বিএনপি ও অঙ্গসংগঠন ঘোষণা দিয়েছেন।

বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার বলেন, দল যাকে যোগ্য মনে করবে, তাকেই মনোনয়ন দেবে। মনোনয়নের আশায় কাজ করি না। তাছাড়া দলের দুর্দিনে আমরা দল ছেড়ে যাইনি। যারা দলের সঙ্গে বেঈমানী করে জাতীয় পার্টিতে চলে যেতে পারে, তারা কখনো দলের প্রকৃত নেতা হতে পারে না। তারা দলে থেকে দলের বিরোধী কাজ করছে।

বিএনপির নির্বাহী সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান ভুঁইয়া দিপু জানান, তিনি সবার চেয়ে তরুণ। কর্মক্ষমতা প্রবীণদের চেয়ে তার বেশি আছে। তিনি দলছুট নেতা নয়। কখনো দল ছেড়ে যাবেন না।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ