৯ শ্রাবণ ১৪২৪, সোমবার ২৪ জুলাই ২০১৭ , ২:৩১ অপরাহ্ণ

diamond world

ফেসবুকে যা লিখেছেন মালা অয়ন ওসমান ও ছাত্রলীগ


সোশ্যাল মিডিয়া ডেস্ক || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ১২:৫৭ পিএম, ১২ জুলাই ২০১৭ বুধবার


ফেসবুকে যা লিখেছেন মালা অয়ন ওসমান ও ছাত্রলীগ

নারায়ণগঞ্জে সাম্প্রতিক নানা ইস্যুতে প্রভাবশালী এমপি শামীম ওসমানের অনুগামীদের সঙ্গে তাঁরই সঙ্গে এখন বৈরিতায় থাকা নেতাদের মধ্যে বাকযুদ্ধ ক্রমশ সংঘাতের দিকে যাচ্ছে। পাল্টাপাল্টি তির্যক মন্তব্য আর সমালোচনা সে সংঘাতের দিকেই নিয়ে যাচ্ছে পরিস্থিতি। একে অন্যকে করেও সংঘাতের দাওয়াত ও হুমকিও দিচ্ছে। সবশেষ ছাত্রলীগের মহানগরের আহবায়ক হাবিবুর রহমান রিয়াদের ফেসবুকের একটি স্ট্যাটাসের পর পাল্টা প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাহমুদা আক্তার মালা। এসব নিয়ে এখন চলছে তুমুল উত্তেজনা।

সম্প্রতি যুব মহিলা লীগের জেলা ও মহানগর কমিটি নিয়ে এমপি শামীম ওসমানের সঙ্গে তারই বন্ধু সহ অনুজদের সঙ্গে বিরোধ দেখা যাচ্ছে। শামীম ওসমানের ঘনিষ্টজনেরা এ বিষয়টিকি সাময়িক উল্লেখ্য করলেও ভেতর ভেতর এ ফাটল দিন দিন বেড়েই চলছে। আর এ ফাটলে উস্কে দিচ্ছে বিশেষ কয়েকজন ব্যক্তি। তাছাড়া শামীম ওসমানের আংশিক বিরোধীতা করা নেতাদের বিরুদ্ধেও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য ও ফেসবুকে বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখানোর ফলে এ ফাটল বাড়ছে। মহানগর ও জেলা যুব মহিলা লীগের কমিটি গঠনের পর মহানগরের সভাপতি আনোয়ার হোসেন ও সেক্রেটারী খোকন সাহা অনেকটাই চুপ ছিলেন। পরে বিভিন্ন সময়ে আকার ইঙ্গিতে খোকন সাহা ও তার জুনিয়র আইনজীবী মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাহমুদা আক্তার মালাকে ইঙ্গিত করে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করা হয়। এটা নিয়ে তাঁরাই মূলত ক্ষোভে ফুঁসে উঠে।

এরই মধ্যে মাহমুদা আক্তার মালা বলেছেন, ‘শামীম ভাইয়ের মনের মত না হলেই সে ছেলে হলে রাজাকার আর মেয়ে হলে চরিত্র খারাপ হয়ে যায়। নারায়ণগঞ্জে অনেক রাজাকারের ছেলে নেতা হয়ে গেছে।’

শামীম ওসমান পুত্র অয়নের ফেসবুক স্ট্যাটাস
নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমানের ছেলে অয়ন ওসমানের একটি মন্তব্য নিয়ে বেশ তোলপাড় চলছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ৯ জুলাই রাত ২টা ২৫মিনিটি ওই স্ট্যাটাসটি পোস্ট করা হয়।

এতে তিনি ইংরেজী অক্ষরে লিখেনে, ‘মুখ খুললে অনেক কিছুই বলা যায়, যাই হোক না কেন আমার মুরুব্বি এবং আব্বার শিক্ষায় সম্মান করে চুপ আছি। কিন্তু কিছু আছে যারা ক্ষমতার ও টাকার এতটাই পাগল যেটার জন্য এতদিনের তৈরী বিশ্বাস চোখের পলকে নষ্ট করতে পারে। লম্বা মানুষদের মই বানাইয়া ছাঁদে উঠসেন এখন বলেন মই কাট। মানুষের দোয়া আছে, ছিল আমাদের সাথে তাই এখনো আছি। যারা ছাঁদে দাড়িয়ে আছেন উপরে তাকান দেখেন আকাশ দেখা যায় কিনা। অপেক্ষায় রইলাম এবং গ্যারান্টি দিলাম এটা সাপ বেঁজির খেলা হবেনা, বাঘ শিকারীও না। খেলা হবে মানুষ আর কুত্তার এবং কুকুরদের লেঞ্জা সোজা কেমনে করা লাগে উত্তর চাষাঢ়ার পাগল দেলপুরি চাচী ও শাবানার জামাই ছোট বেলায় শিখায় গেছে।’

ছাত্রলীগের স্ট্যাটাস
এরই মধ্যে মহানগর ছাত্রলীগের হাবিবুর রহমান রিয়াদ ১০ জুলাই ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেছেন, ‘কিছু না বলে আর পারছিনা। নিজের সাথে বেঈমানি হলে মেনে নেই কিন্তু একেএম শামীম ওসমান এম.পি মহোদয়ের সাথে বেঈমানি আমরা মানিনা। যেই মানুষটি আপনাদের বিভিন্ন পোস্টে বসিয়ে সম্মান দিল যে মানুষটি দিনরাত পরিশ্রম করে সবাইকে একটা মঞ্চে নিয়া আসলো তার সাথে বেঈমানি। মনে রাখবেন বাংলাদেশে শামীম ওসমান একজনই। যার কোন পদ লাগেনা। এসব পদ নিয়াও আপনাদের কোন টাইম থাকবনা। আপনারা কি মানুষ নাকি জানোয়ার? নেতাকর্মী দুরের কথা আগে রাস্তার কুকুর ও জিজ্ঞেস করতনা আপনি কে? আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রির ভ্যানগার্ড, আওয়ামীলীগের ভ্যানগার্ড একেএম শামীম ওসমান এমপি আমাদের অভিভাবক। আমরা এসব নেতাদের সংবর্ধনা দিছি। ওদের জন্য রাস্তাঘাটে আমাদের শ্রম দিতে হইছে। সবার আগে ছাত্রলীগের জন্ম। ছাত্রলীগ যেমন আপনাদের রক্ষা করে পাহারা দেয় আবার বেঈমানী করলে ব্যবস্থা নিতে ভুল করেনা এটা মনে রাখবেন সবাই।’

মালার স্ট্যাটাস

১১ জুলাই মাহমুদা আক্তার মালা ফেসবুকে লিখেছেন, ‘সত্য কথা জানি তোমাদের ভালো লাগবেনা। ফেসবুকে ঝড় তুলে হয়তো কিছু টু পাইস আমদানি হয়, কিন্তু বঙ্গবন্ধুর ছাত্রলীগের নাম ভাঙ্গিয়ে আমাদের হুমকি দিবা, আমি খুব ভয় পাইলাম, তাই কাঁথা গায়ে দিয়া শুইয়া রইছি। আসো চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করলাম, নতুন কোন মঞ্চ কিংবা....তুমি বা তোমরা আমাকে প্লিজ বোকা বোকা থ্রেট দিওনা, এটা মিডিয়ার যুগ, আমি বাসায় আছি, চায়ের দাওয়াত দিলাম, আমাদের বাসায় লাইব্রেরী আছে, বই পড়, আলোকিত মানুষ হও, মানুষ হও, কেননা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশকে উন্নত রাষ্ট্র, ডিজিটাল রাষ্ট্র বানিয়েছেন, সেখানে তোমার অগ্রজকে তুমি ভয় না দেখিয়ে, কিছু ভালো কাজ করো তুমি এবং তোমরা। যারা প্রতিনিয়ত থ্রেট দিচ্ছেন তারা হলেন রিয়াদ ভাই, মেহেদী, রাসেল প্রধান, আশরাফুল ইসলাম অপু, রাকিবুল আলম, এমএস সানি, এমএ মান্নান, তানিম ইসলাম, সাফা, ইমরান আহমেদ শুভ, সাফায়েত ইসলাম, রাকিব, মিজান, আতাউর। দয়া করে আরো বেশী বেশী করে থ্রেট করো, যাতে ভয় পাই। সাবধান ছাত্রলীগের নাম ব্যবহার করে নয়। তোমরা কি পারো কয়টা বাঘ মারছো, আমি সব জানি, তাই আমারে ভয় দেখাইতে হইলে আর একটু ভাবতে হবে।’

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

স্যোশাল মিডিয়া -এর সর্বশেষ