৮ অগ্রাহায়ণ ১৪২৪, বুধবার ২২ নভেম্বর ২০১৭ , ৩:২২ অপরাহ্ণ

শ্যামল কান্তি যদি ড্রাইভার হতেন!


শিপন ভূঁইয়া || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৬:৩৭ পিএম, ২৫ মে ২০১৭ বৃহস্পতিবার


শ্যামল কান্তি যদি ড্রাইভার হতেন!

নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলায় পিয়ার সাত্তার উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্ত আজ কারাগারে। ইংলিশ শিক্ষিকা মোর্শেদা আক্তার এমপিওভুক্ত হওয়ার আশায় শ্যামল কান্তিকে ১ লক্ষ ৩৫ হাজার টাকা ঘুষ দিয়েছিল বিদ্যালয় ছুটিকালিন কোন এক নিরব সময়ে। ঘুষের টাকা ফেরত চাইলে শিক্ষক কান্তি অস্বীকার করায় মোর্শেদা আক্তার মামলা করে। পুলিশ মামলাকে দায়িত্ব হিসাবে গ্রহণ করে গত ১৭ এপ্রিল শ্যামল কান্তি ভক্তকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে।

২৪ মে বুধবার আদালত তার বিরুদ্বে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে। আদালতে আতœসমপর্ন করে শ্যামল কান্তি জামিন চাইলে তা নাকচ করে জেল হাজতে প্রেরন করে। জ্যৈষ্ঠ মাসের আম পাকার গরমে কারাগারে শিক্ষক শ্যামল কান্তির ভক্তের হলো কারাবাস। চারদিকে ধষর্ণের যে মহা উৎসব শ্যামল কান্তির ভাগ্য সহায় হয়েছে যে ধর্ষণ মামলা হয়নি। ইংলিশ ম্যাডাম কে ধন্যবাদ এই অভিযোগ না করার জন্য। যদি ধর্ষেেণর অভিযোগ হতো যারা কান ধরে ছবি দিয়েছিল তাদের কি অবস্থায় না হতো? আবার শিক্ষিকা মোর্শেদা আক্তার কে ও ডাক্তারি পরীক্ষা করাতে হতো। উভয় পক্ষের বিপদ হতো। ঘুষ গ্রহণ করা যেমন আপরাধ তেমনি ঘুষ দেওয়া ও আপরাধ। এই মানদন্ডে দুইজনই অপরাধী। তা হলে শ্যামল কান্তি ভক্ত কেন একা অপরাধী ? শ্যামল কান্তি যদি ড্রাইভার হতো আজ সব ধরনের পাবলিক পরিবহন বন্ধ থাকত। ড্রাইভার শ্যামল কান্তিকে মুক্তির জন্য। পরিবহন ধর্মঘট শুরু হয়ে যেতো। সরকারকে আলটিমেটাম দিতো মুক্তির জন্য। সরকার বাধ্য হয়ে মুক্তি দিত। শ্যামল কান্তি তুমি কি হলে ? শ্যামল কান্তি স্যার আপনি কি জানেন না গরিবের আইন হলো মাকড়সার জালের মত। শুনেছি অর্ধ কোটি টাকা আপনাকে অফার করা হয়েছিল, যাতে টাকা নিয়ে এই শহর ছেড়ে শিক্ষার আদর্শ টুকু নিয়ে আদর্শপুরে চলে যেতে। সেই আদর্শপুরে আদর্শের দীপ জ্বালিয়ে বসবাস করতে। হয়তো তাই উচিত ছিল।

বি:দ্র: মতামত বিভাগের কোন লেখার সঙ্গে নিউজ নারায়ণগঞ্জ এর সম্পাদকীয় নীতিমালার কোন সম্পৃক্ততা নেই। এটা লেখকের নিজস্ব মতামত।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

মন্তব্য প্রতিবেদন -এর সর্বশেষ