২ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫, শুক্রবার ১৬ নভেম্বর ২০১৮ , ১০:৪০ অপরাহ্ণ

rabbhaban

৮০ লাখ টাকার নিয়োগ বাণিজ্য : সেই পুলিশ কর্মকর্তাকে অব্যাহতি


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:১১ পিএম, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ বৃহস্পতিবার


৮০ লাখ টাকার নিয়োগ বাণিজ্য : সেই পুলিশ কর্মকর্তাকে অব্যাহতি

নারায়ণগঞ্জে পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগের জন্য কোচিং সেন্টার খুলে ২০ জন চাকরি প্রার্থীদের প্রত্যেকের কাছ থেকে ৪ লাখ টাকা করে সর্বমোট ৮০ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে দায়েরকৃত মামলা থেকে ঢাকা রেঞ্জের পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) সাহাবুদ্দিনকে অব্যাহতির জন্য চূড়ান্ত প্রতিবেদন (ফাইনাল রিপোর্ট) দিয়েছে মামলার তদন্তকারী সংস্থা জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। একইসঙ্গে অব্যাহতির আবেদন জানানো হয়েছে অপর আসামী বাদশাকেও। সম্প্রতি ডিবি পুলিশের পরিদর্শক মোহাম্মদ রাশেদ মোবারক নারায়ণগঞ্জ চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদনটি দাখিল করেন।

ডিবি পুলিশের পরিদর্শক মোহাম্মদ রাশেদ মোবারক জানান, মামলার দুইজন আসামী এএসআই সাহাবুদ্দিন ও বাদশাকে অভিযুক্ত করার মতো কোন ধরনের আনুষাঙ্গিক ডকুমেন্ট উপস্থাপন করতে পারেনি মামলার বাদিসহ অন্যরা। ঘটনার সঙ্গে এএসআই সাহাবুদ্দিন ও বাদশার কোন সম্পৃক্ততা না পাওয়া যাওয়ায় তাদেরকে অব্যাহতি দিতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করা হয়েছে।

জানা গেছে, গত ২৪ ফেব্রুয়ারী সকাল থেকে বিকেল অবধি ফতুল্লার পুলিশ লাইনসের মাঠে প্রথম ধাপে শারিরীক ফিটনেসের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। ওই শারিরীক ফিটনেস পরীক্ষায় পুরুষ কনস্টেবল পদে হাজারো যুবক ও নারী কনস্টেবল পদে শতাধিক যুবতী অংশ নেয়। শারিরীক ফিটনেস পরীক্ষায় সর্বমোট ৬ শতাধিক উত্তীর্ন হন। তবে ওইদিন অর্থাৎ গত ২৪ ফেব্রুয়ারী শারিরীক পরীক্ষায় প্রতারণার শিকার হওয়া যুবকদের অনেকেই বাদ পড়লে ৮০ লাখ টাকা আত্মসাতের বিষয়টি ফাঁস হয়ে যায়। গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর ২৫ ফেব্রুয়ারী সকালে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ১০ জনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে নিয়ে যায়। আটককৃতদের মধ্যে কলাগাছিয়া ইউনিয়নের হাজরাদি চানপুর এলাকার মোতাহার হোসেন ভূইয়ার পুত্র স্বদেশ ভূইয়া বাদি হয়ে বন্দর থানায় একটি প্রতারণা মামলা দায়ের করেন। মামলায় আসামিরা হলেন ঢাকা রেঞ্জের পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) ও বন্দর উপজেলার কলাগাছিয়া ইউনিয়নের নিশং এলাকার সাহাবুদ্দিন ও একই এলাকার মোশারফের পুত্র বাদশা। এছাড়া মামলায় অজ্ঞাত আরো কয়েকজনকে আসামী করা হয়েছে।

মামলায় স্বদেশ ভূইয়া উল্লেখ করেন, বন্দর উপজেলার কলাগাছিয়া ইউনিয়নের বাইতুল্লাহ মসজিদের পূর্বপাশে গালাক্সি স্কুলের ভেতরে প্রতাশা নামে পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগ প্রদানের বিষয়ে একটি কোচিং সেন্টার খুলেন পুলিশের ঢাকার বিশেষ শাখার (এসবি) সহকারী উপ পরিদর্শক (এএসআই) শাহাবুদ্দিন ও বাদশা। বাংলাদেশ পুলিশ কনস্টবল চাকুরী দেয়া কথা বলে স্বদেশ, সিয়াম, মোস্তাকিম, রায়হান, তৌহিদ, মারুফা আক্তার মলি, রুবেলসহ ২০ জন সদস্যদের কাছ থেকে ৪ লাখ করে টাকা হাতিয়ে নেয় বাদশা ও ঢাকা এসবির সহকারী উপ-পরিদর্শক সাহাবুদ্দিন। ওই মামলা দায়েরের পর গত ২৭ ফেব্রুয়ারী রাত সাড়ে ৭টার দিকে ঢাকা রেঞ্জের পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) শাহাবুদ্দিন ঢাকা থেকে নারায়ণগঞ্জের উদ্দেশ্যে আসার পথে ফতুল্লার শিবুমার্কেট এলাকা থেকে গ্রেফতার করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের পরিদর্শক মোহাম্মদ রাশেদ মোবারক। পরে অসুস্থ দেখিয়ে তাকে ঢাকার একটি বেসরকারী হাসপাতালে দীর্ঘদিন ভতি রাখার পরে আদালত থেকে জামিন লাভ করেন এএসআই সাহাবুদ্দিন।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

আইন আদালত -এর সর্বশেষ