৬ কার্তিক ১৪২৫, সোমবার ২২ অক্টোবর ২০১৮ , ৪:১৫ পূর্বাহ্ণ

UMo

তিন যুবক হত্যা : লাশ গুম করার অপরাধে পুলিশের মামলা


স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৬:০৩ পিএম, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮ শনিবার


তিন যুবক হত্যা : লাশ গুম করার অপরাধে পুলিশের মামলা

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার পূর্বাচল উপ-শহরের আলমপূরা এলাকার ৯ নং সেক্টরের ১১নং ব্রীজের নীচ থেকে তিন যুবকের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধারের ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। পরষ্পর যোগসাজশে হত্যা করে গুম করার অপরাধে রূপগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সফিউদ্দিন বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামী করে শনিবার ১৫ সেপ্টেম্বর দুপুরে মামলাটি দায়ের করেন।

বাদী সফিউদ্দিন মামলায় উল্লেখ করেন, তিনি স্পেশাল ৫ ডিউটি করার সময় শুক্রবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে লোকমুখে জানতে পারেন পূর্বাচল উপ-শহরের আলমপূরা এলাকার ৯ নং সেক্টরের ১১নং ব্রীজের নীচে পাকা কড়িডরের উপর ৩টি অজ্ঞাতনামা পুরুষের লাশ পড়ে আছে। পরে আরো পুলিশ ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখতে পান ওই ৩টি লাশ মাথা ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পড়ে আছে। পরে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে লাশ গুলো উলট পালট করে দেখা যায়, ওই ৩টি লাশের বুকের বাম পাশে, বুকের পাজরে, কনই উপরে, পিঠে ঘারের নিচে, পিঠের ডান পাশের কোমরের উপরে, বাম পায়ের রানের হাটুর উপরে, বুকের মাঝখানে, মাথার ডান পাশে, পিঠে, মাথার ডান পাশের কপালে, মাথার পেছনের মাঝ বরাবর গুলির জখম পরিলক্ষিত পাওয়া যায়। ৩ জনের মধ্যে এক জনের প্যান্টের পকেট থেকে ৬০ পিছ ইয়াবা ট্যাবলেট পাওয়া যায়। প্রাথমিকভাবে প্রথম অবস্থায় এলাকার লোকজন তাদেরকে চিনতে না পারায় ফেসবুক, ইমো ও বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে প্রচার করা হয়।

এর মধ্যেই ওই ৩ জনের নাম পরিচয় পাওয়া যায়। তারা হলো, ঢাকা জেলার মহাখালীর নিকেতন বাজার এলাকার মৃত শহিদুল্লাহর ছেলে সোহাগ (৩২), ঝিনাইদহ জেলার কালীগঞ্জ থানার গোরেলা এলাকার আব্দুল মান্নানের ছেলে শিমূল আজাদ ও মুন্সিগঞ্জ জেলার টুঙ্গিবাড়ির থানার পাইকপাড়া এলাকার মৃত আ. ওহাবের ছেলে নূর হোসেন বাবু।

মামলায় আরো উল্লেখ করা হয়, ধারনা করা হচ্ছে লাশ উদ্ধারের পুর্বে গত ১৩ সেপ্টেম্বর রাতে বা ১৪ সেপ্টেম্বর সকালে অজ্ঞাত নামা আসামীরা পরষ্পর যোগসাজশে হত্যা করে লাশ গুম করার উদ্দেশ্যে পূর্বাচল উপ-শহরের আলমপূরা এলাকার ০৯ নং সেক্টরের ১১নং ব্রীজের নীচে ফেলে রেখে ৩০২/২০১/৩৪ ধারা অপরাধ করেছে। ঘটনার পর মৃত ব্যক্তিদের নাম ঠিকানা সংগ্রহ করে সুরতহাল রিপোর্ট প্রস্তুত সহ ময়না তদন্তের জন্য কার্য সম্পাদক করা হয় কিন্তু মৃত ব্যক্তিদের পক্ষে কেউ কোন অভিযোগ দায়ের না করায় উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে এসআই সফিউদ্দিন বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

রূপগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রফিকুল ইসলাম জানান, নিহত সোহাগের বিরুদ্ধে বনানি থানায় একটি হত্যা মামলাসহ ৪টি মাদক মামলা রয়েছে। এছাড়া শিমুল আজাদ ও নুর হোসেন বাবুর বিরুদ্ধেও মাদকসহ বিভিন্ন মামলা রয়েছে পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা কেন দায়ের করা হয়নি ? এমন বিষয়ে জানতে নিহত শিমুল আজাদের স্ত্রী আয়শা আক্তারে নিপার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি এ ব্যপারে কথা বলতে রাজি হননি।

রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামান মনির বলেন, হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন চলছে।

rabbhaban

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

আইন আদালত -এর সর্বশেষ