প্রতিবাদ করার কারণেই শাকিলকে হত্যা

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১০:১৩ পিএম, ৩১ জুলাই ২০১৯ বুধবার

নিহত শাকিল
নিহত শাকিল

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লার দেওভোগে তুচছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে শাকিল নামের যুবক খুনের ঘটনায় একজন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী প্রদান করেছেন। এতে তিনি স্বীকার করেছেন, ঘটনাস্থলে একজন মটরসাইকেল আরোহীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানের প্রতিবাদ করার কারণেই শাকিলকে হত্যা করা হয়েছে।

৩১ জুলাই বুধবার সন্ধ্যায় নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আহমেদ হুমায়ন কবীরের আদালত বুলেট নামের আসামী ওই জবানবন্দী প্রদান করে। এর আগে মঙ্গলবার ভোরে অভিযান চালিয়ে মুন্সিগঞ্জ থেকে তাকে গ্রেফতার করে ফতুল্লা থানা পুলিশ।

গত ২৭ জুলাই রাতে ফতুল্লার দেওভোগ হাশেম নগর এলাকায় মোটর সাইকেলের লাইটের আলো চোখে পড়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে শাকিলকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরো ৬ জন। পরদিন শাকিলের ভাই সাঈদ বাদী হয়ে তুহিন, নিক্সন ও চান্দুর নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ৮ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন। ইতোমধ্যে চান্দু গ্রেপ্তার হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ কোর্ট পুলিশের এসআই কামাল হোসেন এর সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বুলেটের জবানবন্দি গ্রহণ শেষে তাকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

মামলার তদন্তকারী অফিসার ফতুল্লা মডেল থানার এসআই মিজানুর রহমান জানান, বুলেট আদালতে দায়স্বীকার করে বলেছে সে ইয়াবা ব্যাবসায়ী তুহিনের বডিগার্ড হিসেবে কাজ করতো। বিভিন্ন স্থানে ইয়াবা সাপ্লাই দিতো এবং ইয়াবা বিক্রির টাকা কালেকশন করতো। ঘটনার দিন তুহিনসহ অন্তত ২০ জন বাংলাবাজার এলাকা থেকে মাদক বিক্রির টাকা কালেকশন করে দেওভোগের দিকে পায়ে হেঁটে যাচ্ছিল। এসময় হাশেমবাগ এলাকায় আসা মাত্র একটি মোটরসাইকেলের আলো সকলের চোখে পড়ে। তখন তুহিন মোটর সাইকেল আরোহীকে থামায় এবং গালাগাল করে মারধর করতে থাকে। এক পর্যায়ে মোটরসাইকেল আরোহী দ্রুত মোটর সাইকেল চালিয়ে পালানোর চেষ্টা করলে তাকে ধাওয়া করে এলোপাথারী কোপায়। এসময় আশপাশের লোকজন ছুটে আসলে রিকশার গ্যারেজ থেকে শাকিল ও সজিবও এগিয়ে এসে প্রতিবাদ করে। তখন ক্ষিপ্ত হয়ে সকলে শাকিল, সজিব ও শানকে ধরে এবং দুজন মিলে তাদের তিনজনকে কোপায়। এরপর যে যার মত চলে যায়।


বিভাগ : আইন আদালত


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও