৩ আশ্বিন ১৪২৫, বুধবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ , ৬:১২ পূর্বাহ্ণ

সেলিম ওসমানের কারখানা ভাঙচুর, পূর্ব পরিকল্পনা


স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:৪২ পিএম, ২৪ জুন ২০১৮ রবিবার


সেলিম ওসমানের কারখানা ভাঙচুর, পূর্ব পরিকল্পনা

নারায়ণগঞ্জে ফতুল্লার শিল্পাঞ্চলে বেতন ভাতা বকেয়া না থাকলেও বিভিন্ন অভিযোগ ও দাবী তুলে ৬টি রপ্তানীমুখী পোশাক কারখানার প্রায় সাত হাজার শ্রমিককে ফুঁসিয়ে তুলার চেষ্টা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

তাৎক্ষনিক পুলিশ ও গোয়েন্দাদের তৎপরতায় তা ভেস্তে গেছে বলে আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর পক্ষ থেকে দাবী করা হয়। পুলিশ ও গোয়েন্দারা এর পেছনে ইন্ধনদাতা হিসেবে কয়েকজনকে চিহ্নিত করেছে।

২৪ জুন রোববার সকাল ৮টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত শ্রমিকেরা ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোড ও পুরাতন সড়কে বিক্ষোভ করে ব্যাপক ভাংচুর করে। পরে পুলিশের দেয়া আশ্বাসে শ্রমিকরা শান্ত হয়।

শ্রমিকদের অভিযোগ ও দাবীর মধ্যে রয়েছে, মেডিকেল ছুটি ও পারিবারিক ছুটি দেয়া হয়না, গার্মেন্ট হতে শ্রমিক বের করে দিলে আইনগত কোন সুবিধা দেয়া হয়না, বার্ষিক ছুটির টাকা ও মাতৃত্বকালিন ছুটির টাকা দেয়া হয়না এবং বিনা কারণে শ্রমিকদের গার্মেন্ট হতে বের করে দেয়া হয়, প্রতিবাদ করলে ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী দিয়ে হুমকি দেয়া হয়। আরিফ, আল মামুন ফারুক, আল আমিন, সেলিনা আক্তার, মঞ্জুর ইসলাম, ওমর আলী নামে ৬জন শ্রমিক থানায় ৬টি অভিযোগে একই অভিযোগ ও দাবী উল্লেখ করেছেন।

জানা যায়, রোববার সকাল ৮টায় কুতুব আইল এলাকার সাকুরা গার্মেন্ট, টেক্স এশিয়া গার্মেন্ট, কায়েমপুর এলাকার ওসমান গার্মেন্ট, সস্তাপুর এলাকার রেডিক্যাল গার্মেন্ট, কাঠেরপুল এলাকার আবির ফ্যাশন-১ ও আবির ফ্যাশন-২ এর শ্রমিকরা শিবুমার্কেট ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডে জড়ো হয়। এখানে প্রায় আধা ঘন্টা অবস্থান নেয়ায় লিংক রোডের উভয় পাশে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। এরপর শ্রমিকরা কুতুবআইল সড়ক দিয়ে ফতুল্লা মডেল থানার দিকে যাওয়ার পথে প্রায় ১০ থেকে ১২টি পোষাক কারখানায় ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে ভাংচুর চালায়। এরমধ্যে কুতুবআইল সড়ক থেকে অনেকটা ভিতরে দাপা ইদ্রাকপুর এলাকায় অবস্থিত বিকেএমইএ’র সভাপতি নারায়ণগঞ্জ-৫ (সদর-বন্দর) আসনের এমপি সেলিম ওসমানের মালিকানাধীন উইজডম গার্মেন্টের কাছে গিয়ে ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে জানালার গ্লাস ভাংচুর করে। পরে পোস্ট অফিস হয়ে ফতুল্লা মডেল থানার সামনে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ পুরাতন সড়কে প্রায় ৪ থেকে ৫শ শ্রমিক অবস্থান নেয় সাড়ে ১১টায়।

প্রথমে কয়েক হাজার শ্রমিক এ বিক্ষোভে অংশ নিলেও পরে তা থানার সামনে এসে কমে যায়। এরপর দুপুর ১২টায় ফতুল্লা মডেল থানার ওসি মঞ্জুর কাদের এসে শ্রমিকদের বুঝিয়ে থানার অদূরে ডিআইটি মাঠে পাঠায়। সেখানে ইউনাইটেড ফেডারেশন অব গার্মেন্ট ওয়ার্কাস জেলা শাখার সহ-সভাপতি রফিকুল ইসলাম শ্রমিকদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য দেন।

রফিকুল বক্তব্যে বলেন, শ্রমিকদের প্রত্যেকটি সুবিধা মালিকপক্ষকে দিতে হবে। আর নয়তো আইন অনুযায়ী পাওনা দিয়ে বের করে দিতে হবে। কোন সন্ত্রাসী দিয়ে হুমকি দেয়া চলবেনা। আন্দোলনরত ৬টি গার্মেন্টের ১০জন করে ৬০ জন শ্রমিককে সমস্যা নিয়ে শ্রমিক লীগ নেতা কাউছার আহমেদ পলাশের সঙ্গে আলোচনা করার জন্য অনুরোধ করেন রফিক। এরপর রফিক ৬টি গার্মেন্টের ৬জন শ্রমিককে দিয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ করায়। অভিযোগে কোন কারখানায় বকেয়া বেতন ভাতা দেখানো হয়নি।

এব্যাপারে গোয়েন্দা সংস্থার একটি জানান, এটি পরিকল্পিত ভাবে বিশৃংখলা সৃষ্টির চেষ্টা করা হয়েছিল। কিন্তু যারা এটি করেছে তারা সফল হতে পারবেনা বুঝতে পেরে শান্ত হয়ে গেছে।

ফতুল্লা মডেল থানার ওসি মঞ্জুর কাদের জানান, বিশৃংখলতার সাথে সাথেই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে নিয়েছে পুলিশ। শ্রমিকদের সুবিধা অসুবিধা দেখবে ব্যবসায়ী সংগঠন, শিল্প পুলিশ, শ্রম কল্যাণ সহ সংশ্লিষ্টরা। কিন্তু শ্রমিকদেরকে সেখানে না নিয়ে বিশৃংখলা সৃষ্টির জন্য সড়ক অবরোধ করা হয়। অনেক শ্রমিক বিষয়টি বুঝতে পেরে বিক্ষোভ থেকে সরে গেছে। অল্পকিছু শ্রমিক নিয়ে পরে থানার সামনে কয়েকজন শ্রমিক নেতা অবস্থান নেয়। ওইসব নেতাদের সতর্ক করা হয়েছে। পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। ৬টি অভিযোগ শ্রমিক নেতা রফিকের কাছ থেকে রেখেছি। এসব অভিযোগ তদন্ত করতে একজন পরিদর্শককে দায়িত্ব দিয়েছি।

গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি এমএ শাহীন জানান, অভিযোগ ও দাবী দাওয়ার বিষয়গুলো ব্যবসায়ী সংগঠনকে জানানোর জন্য শ্রমিকদের অনুরোধ করেছিলাম। একই সঙ্গে শ্রমিকদের সড়ক অবরোধ থেকেও সরে যাওয়ার কথা বলেছিলাম। কিন্তু একজন শ্রমিক নেতা বিষয়টিকে ঘোলাটে করে শ্রমিকদের থানার সামনে নিয়ে যায় এবং সড়ক অবরোধ করে বিশৃংখলতা সৃষ্টি করে। এরপরও শ্রমিকদের বুঝিয়েছি সমস্যা সমাধানের জন্য ব্যবসায়ী সংগঠনগুলোতে যেতে হবে।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

অর্থনীতি -এর সর্বশেষ