সেলিম ওসমানের মধ্যস্থতায় প্যানটেক্সের অসন্তোষের অবসান (ভিডিও)

স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৭:৩৯ পিএম, ২০ আগস্ট ২০১৮ সোমবার



সেলিম ওসমানের মধ্যস্থতায় প্যানটেক্সের অসন্তোষের অবসান (ভিডিও)

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লার বিসিকে ছুটি বাড়ানোর দাবীতে আন্দোলনরত শ্রমিকদের অবরোধ ও ভাঙচুরের পর নীট গার্মেন্টস মালিকদের সংগঠন বিকেএমইএ এর সভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের এমপি সেলিম ওসমানের মধ্যস্ততায় শ্রমিকদের দাবীকৃত ১১ দিনের ছুটি মেনে নিয়েছেন মালিক পক্ষ। মেনে নেওয়া দাবী অনুযায়ী আগামী ১ সেপ্টেম্বর শনিবার সকাল থেকে সাধারণ নিয়মে কারখানাটিতে কার্যক্রম শুরু হবে।

সোমবার ২০ আগস্ট দুপুর ১১ টায় পঞ্চবটি বিসিক শিল্পনগরীতে শ্রমিক অসন্তোষ দেখা দেওয়া প্যানটেক্স গার্মেন্টে উপস্থিত হয়ে মালিক এবং সাধারণ শ্রমিকদের সাথে আলোচনার মাধ্যমে বিষয়টি সুষ্ঠু সমাধান দিয়েছেন বিকেএমইএ সভাপতি সেলিম ওসমান। দাবী পূরণ হওয়ায় শ্রমিকেরা রাস্তায় গাড়ি থামিয়ে  বিকেএমইএ সভাপতি সেলিম ওসমানের হাতে গোলাপ ফুল উপহার দিয়ে ঈদের আগাম শুভেচ্ছা জানান।

তবে শ্রমিক অসন্তোষ সৃষ্টি এবং কারখানা ভাঙচুর ও রাস্তা অবরোধ করে অগ্নি সংযোগের ঘটনায় বিকেএমইএ, শিল্প পুলিশ ও কল-কারখানা অধিদপ্তরের সমন্বয়ে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের সিদ্ধান্ত দিয়ে ছিলেন এমপি সেলিম ওসমান। এক্ষেত্রে মালিক ও শ্রমিক পক্ষ উভয়ের রোববার রাতের ঘটনায় নিজেদের ভুল স্বীকার করে পরস্পরের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেন এবং ভবিষ্যতে এমন ঘটনা আর ঘটবে না বলে মালিক-শ্রমিক উভয় পক্ষ প্রতিশ্রুতি প্রদান করলেন বিকেএমইএ সভাপতি তদন্তের বিষয়টি বাতিল করেন এবং শ্রমিকদের পাওনা বুঝিয়ে দিয়ে ঈদের আনন্দ উপভোগ করতে সবার বাড়িতে যাওয়ার অনুরোধ রাখেন। পাশাপাশি প্যানটেক্স গার্মেন্টের মালিক পক্ষের পরিচালনায় অদক্ষতায় রয়েছে বলে প্রতিষ্ঠানটির কার্যক্রমের উপর বিশেষ নজরদারী রাখতে কল-কারখানা অধিদপ্তর ও শিল্প পুলিশকে তিনি অনুরোধ করেন। পাশাপাশি কারখানাটিতে সমস্যা সৃষ্টি এবং শ্রমিক অসন্তোষের বিষয়ে সঠিক ভাবে দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হওয়ায় দুইজন কর্মকর্তাকে সাময়িক ভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন বিকেএমইএ সভাপতি সেলিম ওসমান।

বিকেএমইএ সভাপতি দুপুরে বিসিকে পৌছে প্রথমে মালিক পক্ষের সাথে কথা বলেন। এ সময় মালিকপক্ষকে জিজ্ঞাসাবাদের তাঁদের ত্রুটির বিষয়টি নজরে আসে বিকেএমইএ সভাপতির। এমনকি ঈদের পূর্বে বিকেএমইএ পক্ষ থেকে সংগঠনটির সকল সদস্য প্রতিষ্ঠানকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের ব্যাপারে লিখিত ভাবে অবহিত করা হয়েছিল সেটিও সম্পূর্ন ভাবে প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা অনুসরন করেনি বলেও স্পষ্ট হয়।

মালিক পক্ষের সাথে আলোচনার পর বিকেএমইএ সভাপতি কারখানার উপস্থিত সকল সাধারণ শ্রমিকদের সাথে কথা বলেন এবং তাদের পক্ষ থেকে ঘটনার সম্পূর্ন বিষয়টি জানতে চান।

এ সময় শ্রমিকেরা জানান, বিসিকের ২নং গলিতে প্যানটেক্স গার্মেন্টে ১৭শ শ্রমিক রয়েছে। ঈদে ১১দিনের ছুটির জন্য দীর্ঘদিন ধরে নিয়মিত ডিউটির পাশাপাশি ৪ ঘণ্টা করে ওভার টাইম করানো হয়েছে তাদেরকে দিয়ে। শ্রমিকদের এ পরিশ্রমে মালিক পক্ষ সন্তুষ্ট। কিন্তু ছুটির সময় হওয়ায় মালিক পক্ষ শ্রমিকদের ১১দিনের ছুটি মানেছিল না। মালিক পক্ষ শ্রমিকদের ৭ দিনের ছুটি দিতে চেয়েছে। এ সময় শ্রমিকেরা ১১ দিন ছুটির দাবী জানালে কর্মকর্তারা রোববার বিকেল ৩টার মধ্যে উর্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে ছুটির ব্যবস্থা করবেন বলে শ্রমিকদের আশ্বাস দেন। পরে শ্রমিকেরা বিকেল সোয়া ৩টা পর্যন্ত অপেক্ষা করার পর ৭দিনের বেশি ছুটি দেওয়া যাবে না বলে মালিক পক্ষ জানিয়ে দেন। এ সময় শ্রমিকেরা ৭দিনের ছুটি মেনে না নেওয়ায় মালিক পক্ষের লোকজন শ্রমিকের মারধর করে এবং বহিরাগতদের এনেও মারধর করানো হয় বলে শ্রমিকেরা অভিযোগ করেন। এ সময় তাঁরা পুলিশের বিরুদ্ধেও আন্দোলনে বাধা প্রদানের অভিযোগ তুলেন।

এ সময় সেলিম ওসমান মালিক পক্ষের বিরুদ্ধে শ্রমিকদের অভিযোগের সত্যতা পেয়ে শ্রমিকদের ১১ দিনের ছুটি দাবী মেনে নিয়ে সবাইকে ১ সেপ্টেম্বর থেকে কাজে যোগ দেওয়ার অনুরোধ করেন।

পাশাপাশি পুলিশের বিরুদ্ধে শ্রমিকদের করা অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সেলিম ওসমান বলেন, শ্রমিকের অত্যন্ত ভাল মানুষ। তাঁরা পরিশ্রমের মাধ্যমে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করে বাংলাদেশের অর্থনীতিকে সচল রাখছে। কিন্তু কতিপয় শ্রমিক রয়েছে তাঁরা উস্কে দিয়ে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে চায়। শ্রমিকেরা যদি উচ্ছৃঙ্খল কিছু করে তাহলে পুলিশ তাদের গ্রেপ্তারও করতে পারবে। কিন্তু শ্রমিক ভাইদের প্রতি আমার অনুরোধ কোন সমস্যা হলে আপনারা লিখিত ভাবে শিল্প পুলিশকে জানাবেন, কল-কারখানা অধিদপ্তরকে জানাবেন, আর বিকেএমইএ এর দরজা আপনাদের জন্য সব সময় খোলা। কিন্তু কোন অবস্থায় রাস্তায় নেমে অবরোধ, ভাঙচুর, অগ্নি সংযোগের মত কাজ করবেন না। কালকে বিসিকে যেটা হয়েছে সেটা আসলেই একটি ন্যাক্কার জনক ঘটনা। এ সময় তিনি ধৈর্য্যরে সাথে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রেখে বিষয়টি সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ন ভাবে সমাধান করার ব্যাপারে শিল্প-পুলিশ, কল-কারখানা অধিদপ্তর ও ফতুল্লা থানা পুলিশের প্রতি কৃতজ্ঞতার সাথে ধন্যবাদ জানিয়েছেন বিকেএমইএ সভাপতি সেলিম ওসমান।

এ ব্যাপারে সেলিম ওসমান জানান, শ্রমিকদের দাবী ১১ দিন ছুটি মেনে নেওয়া হয়েছে। ১ সেপ্টেম্বর কারখানা খুলবে। মালিকপক্ষ বিকেএমইএ এর প্রেরিত চিঠিতে ‍উল্লেখিত নিয়ম মানেনি বলে প্রমাণ পাওয়া গেছে। শ্রমিক অসন্তোষের বিষয়টি বিকেএমইএ এর দায়িত্বরতরা সঠিকভাবে পালনে ব্যর্থ হওয়ায় দুইজন কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

তিনি আরো জানান, প্যানটেক্স গার্মেন্ট কর্তৃপক্ষকে সাবধান করে দেওয়া হয়েছে। কারখানাটি আরো দক্ষতার সাথে পরিচালনা করতে বলা হয়েছে। অতিতে প্যানটেক্সের কারণে বিসিক উত্তপ্ত হয়েছিল ও লাশ পড়ে ছিল। ভবিষ্যতে এমন ঘটনা ঘটলে প্রয়োজনী আইন মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণ করে স্থায়ীভাবে কারখানা বন্ধ করে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে।

ফতুল্লা মডেল থানার ওসি মঞ্জুর কাদের জানান, শ্রমিকেরা ছুটি চেয়েছিল ১১ দিন আর মালিক ছুটি দিবে ৭ দিন। এনিয়ে শ্রমিকেরা বিক্ষোভ করে। পরে এমপি ও বিকেএমইএ সভাপতি সেলিম ওসমানের পক্ষে থেকে মালিক শ্রমিকদের সমঝোতার মাধ্যমে দাবি মেনে নেয়া হলে শ্রমিকেরা অবরোধ প্রত্যাহার করে।


বিভাগ : অর্থনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও