২৯ কার্তিক ১৪২৫, বুধবার ১৪ নভেম্বর ২০১৮ , ১১:২৪ পূর্বাহ্ণ

UMo

নারায়ণগঞ্জের স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের আরো সতর্ক ও সোচ্চারের তাগিদ এসপির


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:৩১ পিএম, ১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ শনিবার


নারায়ণগঞ্জের স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের আরো সতর্ক ও সোচ্চারের তাগিদ এসপির

নারায়ণগঞ্জের স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের আরো সোচ্চার হওয়ার জন্য আহবান জানিয়ে বিভিন্ন দিক নির্দেশনা দিয়েছেন জেলা পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান। একই সঙ্গে চোরাই স্বর্ণ না কেনার জন্যও হুশিয়ারী দেন তিনি। 

১ সেপ্টেম্বর শনিবার বেলা ১১টায় জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। পরে তিনি স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের সমস্যা ও সকল ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

সম্প্রতি শহরের কালীবাজার এলাকার স্বর্ণ ব্যবসায়ী প্রবীর ঘোষ হত্যার পর নগরীরর স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের নিরাপত্তা সহ সমস্যা ও সমাধানের কী করণীয় বিষয়ে পুলিশ সুপারের নির্দেশে ওই মতবিনিময় সভায়র আয়োজন করা হয়। সেখানে নারায়ণগঞ্জ শহরের কালীবাজার স্বর্ণ ব্যবসায়ী, স্বর্ণ শিল্পী ও কর্মচারী , মিনাবাজার স্বর্ণ ব্যবসায়ী সহ বিভিন্ন মার্কেটের স্বর্ণ ব্যবসায়ীরা উপস্থিত ছিলেন।

বেলা সাড়ে ১১টা থেকে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত ঘণ্টাব্যাপী আলোচনার প্রথমে স্বর্ণ ব্যবসায়ী ও শ্রমিকেরা প্রবীর ঘোষ ও তার বন্ধু স্বপন হত্যার বিষয়ে বিভিন্ন কথা বলেন। পরে নিরাপত্তার বিষয়ে বিভিন্ন সহযোগিতা কামনা করেন। 

কালিরবাজার জুয়েলারি মালিক সমিতির সভাপতি মো. শহিদুল্লা বলেন, ২০০৭ ও ২০১২ সালের পরপর একই দোকানে দুই বার ডাকাতি হওয়ার পর তৎকালীন পুলিশ সুপারের নির্দেশে প্রায় ৩০০ গজের কালীরবাজারের রাস্তায় সিসি ক্যামেরা লাগানো হয়। আর এ সিসি ক্যামেরায় ধরা পরে প্রবীর ঘোষের সব শেষে অবস্থান। আর যার প্রেক্ষিতে হত্যাকান্ডের ক্লু বের হয়। কিন্তু এসব সিসি টিভি ক্যামেরাগুলো পুলিশের আইটি সেক্টরের লোকজনই বসিয়ে দিয়েছিল। এখন এগুলো পর্যবেক্ষন করা প্রয়োজন। তাই মাঝে মাঝে যদি পুলিশের পক্ষ থেকে এগুলো পর্যবেক্ষন করা হয় তাহলে ভালো হয়। এছাড়াও পূজার সময় লাইটিং ক্যামেরার উপরে করা হয়। এসবের থেকে বড় সমস্যা ইন্টারনেট লাইন, ডিসের লাইন টানতে গিয়ে প্রায় সময় ক্যামেরাগুলো নষ্ট করে ফেলে। এজন্য পুলিশের পক্ষ থেকে ব্যবস্থা নেওয়া হোক।

তিনি আরো জানান, এমনিতে স্বর্ণপট্টিতে পুলিশের ব্যবস্থা আছে। ২৪ ঘণ্টা দুটি টিম দায়িত্ব পালন করছে। আমরা পুলিশের সহযোগিতায় সন্তষ্ট। 

একই কথা বলেন, মিনাবাজার জুয়েলারি মালিক সমিতির সভাপতি আতাউজ্জামান তোতা বলেন, পুলিশের পর্যাপ্ত নিরাপত্তা রয়েছে। আর দুইদিন থেকে গেট লাগানো থাকে তাই আমরা সন্তুষ্ট। 

নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ইসলাম জানান, স্বর্ণপট্টিতে সকল ধরনের স্বর্ণ ব্যবসায়ী মিলে ৩শতাধিক দোকান রয়েছে। কিন্তু সেখানে মাত্র ১২টি সিসি টিভি ক্যামেরা রয়েছে। আরো ১২টি ক্যামেরা লাগানো প্রয়োজন। 

পরবর্তীতে পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান বলেন, ব্যবসায়ীদের আরো সোচ্চার হতে হবে। অবশ্যই সিসি টিভি ক্যামেরা লাগাতে হবে। এবং সেগুলো ভালো ভাবে মনিটরিং করা হবে। প্রয়োজনে পুলিশের আইটি সেক্টর থেকে লোকজন গিয়ে পর্যবেক্ষন করবে। নাইট গার্ড পর্যাপ্ত রাখতে হবে। আর সেই সব নাইটগার্ড যাতে শারীরিক ভাবে অক্ষম না হয়। পাশাপাশি প্রতিটি দোকানে বাশির ব্যবস্থা করতে হবে। যাতে কোন ধরনের ঘটনা ঘটার মাত্র বাশি বাজিয়ে জানানো যায়। পাশাপাশি আগুনের নিরাপত্তায় পর্যাপ্ত পানি সরঞ্জাম রাখতে হবে। তাছাড়া পুলিশ আপনাদের সার্বিক ভাবে সহযোগিতা করবে।’

এতো কিছু বলার পর স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের সর্তক করে দিয়ে এসপি আনিসুর রহমান বলেন, পুলিশের সঙ্গে স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের সম্পর্ক থাকবে। আর চোরাই স্বর্ণ কেনা বেচার জন্য সর্তক থাকতে হবে। ছবি আইডি কার্ড নিবেন। সংশিল্ট থানাকে জানাবেন তারপর স্বর্ণ কিনবেন। আর এক কথায় চোরাই স্বর্ণ কিনবেন না। কারণ এসব স্বর্ণ কেনার পর পুলিশ তদন্ত করতে গিয়ে ব্যবসায়ীকে তোল নিয়ে এনে কোটের বারান্দায় দাড় করিয়ে রাখবে সেটা সম্মান জনক নয়। তাই আগে থেকেই সচেতন হোন।

এসময় উপস্থিথ ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মো. ফারুক হোসেন, নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ইসলাম, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি ও নিতাইগঞ্জ ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি শংকর সাহা, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সুজন সাহা, এসি ধর রোড ব্যবসায়ী অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি রহমত উল্লাহ ফারুক, সাধারণ সম্পাদক মো. মহসীন আলী, কালিবাজার জুয়েলারি মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কৃষ্ণ কমল দেব, কোষাধ্যক্ষ মো. সহিদুল ইসলাম তুহিন, মিনাবাজার স্বর্ণ মার্কেটের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল খালেক সিদ্দিকী, কালিরবাজার স্বর্ণ শিল্পী শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি অরুন কুমার দত্ত, সাধারণ সম্পাদক মুকুল মজুমদার,  সহ সাধারণ সম্পাদক রতন চন্দ্র ঘোষ, সাংগঠনিক সম্পাদক তাপস কর্মকার, প্রচার সম্পাদক উত্তম সরকার, টানবাজার মৃধা অলংকার প্লাজা স্বর্ণ সমিতির সভাপতি মো. আমীর হোসেন খান,  সাধারণ সম্পাদক আব্দুল গাফার খন্দকার লিটন প্রমুখ।

rabbhaban

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

অর্থনীতি -এর সর্বশেষ