১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫, বৃহস্পতিবার ১৫ নভেম্বর ২০১৮ , ৩:০৪ অপরাহ্ণ

UMo

আদমজী রণক্ষেত্র, আহত অর্ধশত


সিদ্ধিরগঞ্জ করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০১:১৫ পিএম, ২২ অক্টোবর ২০১৮ সোমবার


আদমজী রণক্ষেত্র, আহত অর্ধশত

নারায়ণগঞ্জের আদমজী ইপিজেডে বকেয়া বেতন বোনাসের দাবীতে আন্দোলনরত একটি রফতানিমুখী পোশাক কারখানার শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের ব্যাপক সংঘর্ষে অন্তত অর্ধশত আহত হয়েছে। ওই সময়ে অন্তত ১৫টি যানবাহন ভাঙচুর ও একটি কাভার্ডভ্যানে অগ্নিসংযোগ করা হয়। টানা সাড়ে ৫ ঘণ্টা বন্ধ ছিল নারায়ণগঞ্জ-আদমজী-শিমরাইল সড়কে যান চলাচল। রণক্ষেত্রে পরিণত হয়েছিল আদমজী ইপিজেডের সামনের সড়কটি।

শ্রমিক ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আদমজী ইপিজেডে ‘সোয়াদ ফ্যাশন’ নামের রফতানিমুখী গার্মেন্ট কারখানায় সাড়ে ৩ হাজার শ্রমিক কাজ করে। শ্রমিকদের অভিযোগ গত ৫-৬ মাস ধরে ঠিকমত বেতন পরিশোধ করছে না কর্তৃপক্ষ। গত ২২ সেপ্টেম্বরও বকেয়া বেতন পরিশোধের দাবিতে শ্রমিকেরা বিক্ষোভ করেছিল। কারখানাটি একটি বিদেশী কোম্পানীর কাছে বিক্রি করে দেওয়া হয়। এরই মধ্যে গতমাসে কারখানাটি বন্ধও করে দেওয়া হয়।

বকেয়া বেতনের দাবীতে ২২ অক্টোবর সোমবার সকাল ৭টায় প্রথমে আদমজী ইপিজেডের প্রধান ফটকের সামনে নারায়ণগঞ্জ-আদমজী-শিমরাইল সড়কে অবস্থান কারখানার কয়েক হাজার শ্রমিক। পরে পুলিশ তাদেরকে সরিয়ে দিতে চাইলে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। আবার ৮টায় শ্রমিকেরা সড়ক অবরোধ করে। সেখান থেকে তাদেরকে সরিয়ে দিতে চাইলে পুলিশের সাথে তাদের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার কারণে পুরো এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ করে ও শ্রমিকদের উপর লাঠিচার্জ করে। আগুন দেওয়া হয় একটি কাভার্ডভ্যানে। ভাঙচুর করা হয় ১৫টি যানবাহন। এতে তিন পুলিশ সদস্যসহ আহত হন অর্ধশত শ্রমিক। আহত শ্রমিকদের বিভিন্ন স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। সংঘর্ষের কারণে বন্ধ হয়ে যায় সড়কে যান চলাচল।

সোয়াদ ফ্যাশনের কর্মরত আরিফ হোসেন জানান, কর্তৃপক্ষ আমাদেরকে না জানিয়ে হঠাৎ কারখানা বন্ধ করে দেয়। শুনতে  পেরেছি মালিক অন্যত্র কারাখানা বিক্রি করে দিয়েছে। একই সাথে বিগত ৪ বছরের ছুটি, ফান্ড ও রিজার্ভের টাকাও আমাদেরকে পরিশোধ করা হয়নি।

কারখানার শ্রমিক মো. সবুজ জানান, আমরা বেপজার কর্মকর্তাদেরকে বিষয়টি অবহিত করেছি। তারা বলছে, এ ব্যাপারে তারা কিছুই জানে না। অথচ এর আগে মালিক পক্ষ বেতন নিয়ে গড়িমসি করলে আমরা বেপজার কাছে গেলে কারখানা এই সমস্যা সমাধানের জন্য তারা আমাদের বিভিন্ন ধরনের আশ্বাস প্রদান করেন। কিন্তু আজ তারা বলছে কিছুই জানেনা।

নারায়ণগঞ্জ শিল্প পুলিশের সুপার জাহিদুর রহমান বলেন, সম্প্রতি গার্মেন্টটি বিক্রি করা হয়েছে। কুয়েতের একটি প্রতিষ্ঠান গার্মেন্টটি কিনে নিয়েছে। কিন্তু চুক্তি সম্পাদন না হওয়ায় প্রমিকদের বেতন পরিশোধ করা সম্ভব হয়নি। সকাল ৭টায় শ্রমিকেরা সড়কে অবস্থান করে যান চলাচল বন্ধ করে দেয়। তখন পুলিশ তাদের সরিয়ে দিতে চাইলে ইটপাটকেল ছুড়লে পুলিশ পাল্টা অ্যাকশনে যায়।

বেলা ১১টায় নাসিক প্যানেল মেয়র মতিউর রহমান, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি মজিবুর রহমান, আদমজী আঞ্চলিক শ্রমিকলীগের সভাপতি আব্দুস সামাদ বেপারী ও যুবলীগ নেতা হুমায়ুন কবিরসহ নেতাকর্মীরা আন্দোলনরত শ্রমিকদের সাথে কথা বলেন। পরে বেপজা শিল্প পুলিশ ও সোয়াদ কারখানা কর্তৃপক্ষের সাথে আলাপ করে শ্রমিকদের পাওনা পরিশোধের জন্য ১৫নভেম্বর দিন ধার্য করা হয় বেপজা ও সোয়াদ কারখানা কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে।

পরে প্যানেল মেয়র মতি এবিষয়ে শ্রমিকদের সাথে কথা বলেন। এসময় তিনি আন্দোলনরত শ্রমিকদের আশ্বাস দেন আগামী ১৫নভেম্বর যদি প্রতিষ্ঠান বকেয়া পাওনা পরিশোধ না করে তাহলে তিনি নিজেই শ্রমিকদের সাথে রাস্তায় নামবেন তাদের দাবী আদায়ে। এবং যারা কর্মহীন আছেন তাদের ইপিজেডের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে চাকরিরও ব্যবস্থা তিনি করবেন। তার এই আশ্বাসের পর বেলা সাড়ে ১২টায় শ্রমিকরা তাদের আন্দোলন স্থগিত করলে ৫ ঘন্টা পর সড়ক দিয়ে যান চলা শুরু হয়।

rabbhaban

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

অর্থনীতি -এর সর্বশেষ