গার্মেন্টস শিল্পে নৈরাজ্য বরদাশত করা হবে না : সেলিম ওসমান

প্রেস বিজ্ঞপ্তি || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:১৩ পিএম, ৬ ডিসেম্বর ২০১৮ বৃহস্পতিবার



গার্মেন্টস শিল্পে নৈরাজ্য বরদাশত করা হবে না : সেলিম ওসমান

৬ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় বাংলাদেশ সচিবালয়ের শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ক্রাইসিস ম্যানেজমেন্ট বিষয়ক কোর কমিটি-এর ৩৮তম সভা শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মোঃ মুজিবুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সভায় বিকেএমইএ’র পক্ষ থেকে অংশগ্রহণ করেন বিকেএমইএ’র সভাপতি সেলিম ওসমান।

সভায় আগামী ৩০ ডিসেম্বর আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রাক্কালে কেউ যাতে বিভিন্ন স্বার্থান্বেষী গোষ্ঠী বা মহলের ইন্ধনে বা যোগসাজসে কোনো ধরনের রাজনৈতিক ফায়দা লুটতে না পারে এবং গার্মেন্টস সেক্টরে কোনো ধরনের অরাজক পরিস্থিতি তৈরি করতে না পারে, সেবিষয়ে মালিক-শ্রমিক সকলকে সজাগ থাকার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে।

বিকেএমইএ সভাপতি সেলিম ওসমান বলেন, যারা তৃতীয় পক্ষের সুবিধাবাদী গোষ্ঠীর উষ্কানীতে এধরনের নৈরাজ্যকর শ্রম পরিস্থিতির তৈরি করে, তারা অবশ্যই দেশ ও জাতীয় শত্রু। তাদের অপরাধ রাষ্ট্রদ্রোহীতা/দেশদ্রোহীতার সামিল।

উল্লেখ্য যে, গত ২৯ অক্টোবর’খ বিকেএমইএ থেকে পত্র (সূত্র নং-বিকেএমইএ: ৫৫/কমপ্লায়েন্স/জাতীয় নির্বাচন/২০১৮/৮২২৪) মারফত বিকেএমইএ সদস্যভূক্ত সকল প্রতিষ্ঠানকে আসন্ন নির্বাচনের পূর্ব পর্যন্ত বিকেএমইএ’র সাথে আলোচনা ব্যতীত কোন ধরনের শ্রমিক ছাঁটাই না করা, কারখানা স্থানান্তর না করা, শ্রমিকদের মাসিক বেতন ১০ তারিখের মধ্যে পরিশোধ করার জন্য এবং ছোট-খাট বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি সতর্কতার সাথে সমাধানের অনুরোধ করার বিষয়টি বিকেএমইএ’র সভাপতি সভায় তুলে ধরলে উপস্থিত সকলে তা সাধুবাদ জানায় এবং সামনের দিনগুলোতেও এ নির্দেশনা মেনে চলার ব্যাপারে ঐক্যমত্য হয়।

জাতীয় নির্বাচন জাতীয় স্বার্থেই গুরুত্বপূর্ণ। তাই জাতীয় স্বার্থেই উদ্যাক্তা, শ্রমিক নেতৃবৃন্দ, তথা শ্রমিক-সকলকে সমন্বিতভাবে যে কোনো ধরনের অস্থিতিশীল ও অরাজক পরিস্থিতি এড়াবার জন্য একত্রে কাজ করার জন্য শ্রম মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে কঠোর নির্দেশনা প্রদান করা হয়। এক্ষেত্রে জাতীয় স্বার্থ যে সবার আগে, তা সকলকে অনুধাবনের কথা বলা হয়। তাই, নির্বাচন পূর্ববর্তী সময় পর্যন্ত কোনো গার্মেন্টস-এ কোনো ধরনের শ্রমিক ছাঁটাই করা যাবে না, কারখানা স্থানান্তর করা যাবে না, কিংবা শ্রমিকদের বেতন-ভাতাদি যথাসময়ে প্রদানের বিষয়ে কোনোধরনের শৈথল্য প্রদর্শন করা যাবে না। আর যেসমস্ত ফ্যাক্টরি এখনো পর্যন্ত নভেম্বর মাসের বেতন প্রদান করেননি, তাদেরকে আগামী ৩ দিনের মধ্যে যে কোনো উপায়ে বেতন পরিশোধের জন্য নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে। এর কোনো ব্যত্যয় ঘটালে উক্ত প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে সরকার ও বিকেএমইএ’র পক্ষ থেকে আইনানুগ ও প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বিকেএমইএ সভাপতি সেলিম ওসমান দুঃখের সাথে নারায়ণগঞ্জের ভোলাইল-এ অবস্থিত এন.আর গ্রুপ অব গার্মেন্টসে ভুলবুঝাবুঝির কারণে সৃষ্ট বৃহস্পতিবার ৬ ডিসেম্বর অস্থিতিশীল শ্রম পরিস্থিতির কথা উল্লেখ করে বলেন, শুধুমাত্র শ্রমিক নেতৃবৃন্দের দায়িত্বশীল ভূমিকা না থাকার কারণেই এ ধরনের ঘটনাগুলো বৃদ্ধি পাচ্ছে। তিনি সভায় শ্রম প্রতিমন্ত্রী মহোদয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করে এধরনের ক্ষেত্রে শিল্প পুলিশের পাশাপাশি শ্রমিক নেতৃবৃন্দকে দেশের স্বার্থে যে কোনো ধরনের অরাজক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করার জন্য দাবী জানান।

উল্লেখ্য যে, এন.আর গ্রুপ অব গার্মেন্টস-এ সৃষ্ট ঘটনার কারণে শ্রমিকরা মারমুখো হয়ে উঠে এবং এক পর্যায়ে কারখানা থেকে বের হয়ে যায়। তাদের দেখাদেখি পাশাপাশি অন্যান্য গার্মেন্টস-এর শ্রমিকরাও নেমে আসতে শুরু করে। ফলে একটি অরাজকতার পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়

এছাড়াও সভায় যে সকল গার্মেন্টস-এ শ্রমিক অসন্তোষ সহ এ ধরনের পরিস্থিতি বিরাজ করছে, তা নির্মুল করার জন্য সংশ্লিষ্ট সকল মন্ত্রণালয়, দপ্তর, অধিদপ্তর, বিকেএমইএ, বিজিএমইএ’র প্রতিনিধির সমন্বয়ে মনিটরিং কমিটি গঠন করা হয়। এছাড়াও শিল্প পুলিশ, বাংলাদেশ পুলিশ, গোয়েন্দা সংস্থা, শ্রমিক নেতৃবৃন্দসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে আসন্ন নির্বাচনের পূর্ব পর্যন্ত সমন্বিতভাবে শিল্প উদ্যোক্তাদের সাথে কাজ করে যে কোনো ধরনের সমস্যা মিটানোর নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে। তাই নির্বাচন পূর্ববর্তী যে কোনো ধরনের অরাজকর পরিস্থিতি সরকারীভাবে কঠোর হস্তে দমন করা হবে।


বিভাগ : অর্থনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

এই বিভাগের আরও