টানবাজারে সুতার ব্যবসায় মন্দাভাব

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১০:০১ পিএম, ২৪ ডিসেম্বর ২০১৮ সোমবার

টানবাজারের ছবি।
টানবাজারের ছবি।

দিন দিন বিদেশি সুতার চাহিদা বাড়ায় দেশি সুতায় আগ্রহ হারাচ্ছে পোশাক শিল্পের ব্যবসায়িরা। সে কারনে টানবাজার সুতা ব্যবসায়ও দিন দিন আগ্রহ হারাচ্ছেন সুতা ব্যবসায়িরা।

টানবাজারের একজন সুতা ব্যবসায়ী সুভাষ সাহা। জিএন কটন নামের তার একটি সুতা কারখানা রয়েছে। তিনি নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ‘আজকাল মিলের সংখ্যা অনেক বেশি এবং তার ফলে উৎপাদনও বেশি। তবে সে অনুযায়ী রপ্তানি অনেক কম। কারণ মানুুষের মধ্যে দেশি সুতার চাহিদা কমছে। গার্মেন্টস ব্যবসায়ীরা আজকাল বিদেশি সুতা বেশি কিনে।’

তুলার দাম কমায় দেশি সুতার উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে দেশি সুতার চাহিদা বাড়েনি গ্রাহকদের মধ্যে। তাছাড়া দিন দিন ব্যবসায়ীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায়ও সুতা ব্যবসায় মন্দা দেখা যাওয়ার কারন বলে মনে করছেন অনেকে।

ইয়ার্ন মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন কর্মকর্তা বলেন, ‘সুতা ব্যবসায়ীদের সংখ্যা বাড়ছে। এবং ব্যবসা সবার মধ্যে ভাগ হয়ে যাচ্ছে। তাছাড়া আমাদের দেশে তুলার উৎপাদন নেই। তুলা বাইরে থেকে আমদানি করতে হয়। ফলে আমাদের দেশের সুতার মূল্য বাইরের দেশ থেকে তুলনামূলক বেশি। তাই গার্মেন্টস ব্যবসায়িরা বিদেশি সুতার প্রতি আগ্রহ বেশি দেখান। দেশি সুতার ব্যবসা টিকিয়ে রাখতে সরকারি হস্তক্ষেপ কাম্য।’

তবে অনেকেই মনে করছেন আসন্ন জাতীয় নির্বাচনের প্রভাবে সুতার বাজারে মন্দা দেখা দিচ্ছে।

ইয়ার্ন মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি হাজী সোলেমান নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ‘সুতার ব্যবসা এখন অনেক খারাপ যাচ্ছে এবং তার অনেক কারণই তো রয়েছে। তবে আমাদের তুলাটা ইমপোর্ট করতে হয়। সে হিসেবে খরচটা পরে যায়। আর এ সিজনটায় সুতার ব্যবসাটা একটু খারাপ যায়। তাছাড়া সামনে জাতীয় নির্বাচন, সেটাও একটা বড় বিষয়। আমরা আশা করছি ৩ থেকে ৪ মাসের মধ্যে আবার ব্যবসাটা আগের জায়গায় ফিরে আসবে।’


বিভাগ : অর্থনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও

আরো খবর