বাজার মনিটরিংয়ের অভাবে দ্রব্য মূল্যের ঊর্ধ্বগতি

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:০৯ পিএম, ১০ মে ২০১৯ শুক্রবার

বাজার মনিটরিংয়ের অভাবে দ্রব্য মূল্যের ঊর্ধ্বগতি

কয়েকদিন ধরে বাজারে চলছে অস্থিরতা। এই অস্থিরতার বেশির ভাগই কাঁচাবাজারে। একে সবজির যোগান অনেক কম। আর যাও আছে তা অনেক দামে বিক্রি হচ্ছে। বাজারের এই পরিস্থিতিতে মানুষের মধ্যে হাহাকার শুরু হয়ে গেছে। এর জন্য অনেকই দায়ী করেছে বাজার মনিটরিং এর অভাব। নিয়মিত বাজার মনিটরিং না করার কারনেই এই ঊর্ধ্বগতি চলছে দিনের পর দিন। রোজায় এই অস্থিরতা কমছে না।

পাঠানটুলি এলাকার রেললাইনের সবজি ব্যবসায়ী চঞ্চল বলেন, পন্যের সরবরাহ কম থাকায় দাম বেড়েছে। সব সবজিই আড়ত থেকে বেশি দামে কিনে আনতে হচ্ছে, যে কারণে বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে। সামনে দাম আরো বাড়তে পারে। কারণ অনেক সবজিই এখন খুব কম পাওয়া যাচ্ছে। অনেক সবজি পাওয়াই যাই না। আর যেগুলো পাওয়া যায় তার মান খুবই খারাপ। এর মাঝে আবার বৃষ্টি। অন্য সবজির সরবরাহও কম, তাই দামও বাড়তি।

একই অবস্থা মুদি ও মাংসের বাজারেও। গরু, ছাগল, মুরগীর মাংসের দাম দিন দিন বাড়ছে। বাড়ার পরিমান কম হলেও এই বাড়তি অনেক বলে ভোক্তারা মনে করেন। তবে দাম কমেছে শুধু ব্রয়লার মুরগী ও ডিমের।

রহমত উল্লাহ বলেন, কোন কিছুর দাম এই দেশে কমে না। শুধুই বাড়ে। এই বাড়তি এখন মধ্যেবিত্তদের কপালেও চিন্তার ভাঁজ ফেলছে। তাদের পিঠ এখন দেয়ালে ঠেকছে। এতে অনেকেই বিকল্প খুঁজবে। কিন্তু যারা দরিদ্র বা নি¤œবিত্ত তাদের অবস্থা কী হবে। তারাতো না খেয়ে থাকবে। এতে পুষ্টিহীন হতে থাকবে জনগোষ্ঠি। যা এক সময় বড় আকাড়ে প্রভাব পড়বে জাতীর উপর। তখন অন্যান্য ব্যায়ের সঙ্গে চিকিৎসা ও কর্মহীনতাদের বোঝা জাতীর বইতে হবে।

শফিউল্লাহ বলেন, বাজারের লাগাম টানতে কোন ব্যবস্থা নাই সরকারের। বাজার মনিটরিং এর নামে শুধু সময় ক্ষেপন। রোজা আসছে। এখনই যদি মনিটরিং শুরু না করে তাহলে বাজারের এই লাগাম টনতে আর সক্ষম হবে না প্রশাসন।


বিভাগ : অর্থনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও