ব্যবসার টাকা নিয়ে প্রতারণা

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৫:৪১ পিএম, ১৩ মে ২০১৯ সোমবার

ব্যবসার টাকা নিয়ে প্রতারণা

নারায়ণগঞ্জে ব্যবসায়ের প্রলোভন দেখিয়ে অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে রাইসুল ইসলাম জুয়েল নামে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। এদিকে জোর জুলুম সহ মারধরের পাল্টা অভিযোগ তুলেছেন অভিযোগকারী মো. বাব্বীর বিরুদ্ধে। এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্য দ্বন্দ্ব কোন্দল চরম আকার ধারণ করেছে।

১২ মে রোববার খানপুর ব্যাংক কলোনির সেলিম মিয়ার ছেলে মো. রাব্বি এ অভিযোগ তোলেন। অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনার গভীরে প্রবেশ করতেই পাল্টা অভিযোগ পাওয়া যায়।

রাইসুলের ব্যবসায়ীক পার্টনার মো. রাব্বি অভিযোগ করে বলেন, শহরের পাইক পাড়া এলাকার সাহ সুজা রোডের সাহাবুদ্দিন মিয়ার ছেলে রাইসুল ইসলাম জুয়েল (২৬) এর সাথে গত দেড় বছর আগে পার্টনারে খানপুর হাসাপাতালের সামনে খাবার দোকানের ব্যবসা শুরু করি। বর্তমানে আমাদের ব্যবসা বন্ধ আছে। জুয়েলের কাছে ৩০ হাজার টাকা এখনো পাওয়া রয়েছে। ব্যবসার শুরুতে মোটা অংকের টাকা দিলেও পরবর্তীতে নানা টালবাহানা করে ব্যবসা বন্ধ করে দেয়। এরপর টাকার জন্য চাপ দিলে নানা ফের টালবাহানা শুরু করে। এছাড়া টাকা চাইলে টাকা দিবেনা বরে হুমকি দেয়। গত বছরের ৬ নভেম্বর ফোন করে টাকা চাইলে আমাকে টাকা দিবেনা বলে জানায়। বিবাদী মূলত আমাকে টাকা না দেওয়ার পাঁয়তারা করছে। এছাড়া সে এরুপভাবে অন্যান্নদের সাথেও ব্যবসার প্রলোভন দেখিয়ে টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।

তিনি আরো বলেন, সে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ধরনের ব্যবসায়ের নাম করে বিভিন্ন জনের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নিয়ে প্রথমে ব্যবসা শুরু করে। পরে টালবাহানা করে ব্যবসা বন্ধ করে দেয়। এর এক পর্যায়ে পার্টনারের পুরো টাকা হাতিয়ে নেয়। পরে পার্টনারদের যাকে যেভাবে পারে সেভাবে গোজামিল দেয়। এভাবে একের পর এক একাধিক জনের সাথে এই প্রতারণা করে আসছেন।

রাইসুলের আরেক ব্যবসায়ী পার্টনার অপু জানায়, রাইসুল ইসলাম জুয়েল একজন প্রতারক। ২০১৭ সালের খানপুরে ফুড কর্ণার নামে একটি খাবার দোকানের ব্যবসা শুরু করি। পরে মোটা অংকের টাকা নিয়ে পার্টনারে দুজনে ব্যবসা শুরু করি। কিন্তু সে আমাকে ব্যবসার কোন হিসেব দিতে পারেনা। এ নিয়ে টালবাহানা শুরু করলে ব্যবসা গুটিয়ে টাকার হিসেব চাইলে তা নিয়ে গড়িমসি শুরু করে। অবশেষে হিসেব করে ৪০ হাজার টাকা ফেরত দেয়ার কথা থাকলেও রাইসুল আমাকে মাত্র ১০ হাজার টাকা ফেরত দেয়। এখনো বাকি ৩০ হাজার টাকা ফেরত দিচ্ছেনা। এখনো সেই টাকা নিয়ে টালবাহানা করছে। এই প্রতারকের কাছ থেকে টাকা আদায় করা কষ্টকর হয়ে পড়ছে। এভাবে আমার মত আরো অনেকের কাছ থেকে ব্যবসার নাম করে টাকা নিয়ে টালবাহানা গিলে খাচ্ছে।

অন্যদিকে রাইসুল ইসলাম পাল্টা অভিযোগ করে বলেন, রাব্বি আমার কাছ থেকে জোর জুলুম করে ব্যবসায়ের এতোগুলো টাকা নিয়েছে। ব্যবসায়ে লাভ-লোকসান হতেই পারে। তারপরও আমি বলেছি, ওর পাওনা সব টাকা পরিশোধ করে দিব। ইতোমধ্যে সব টাকা পরিশোধ করা হলে মাত্র ১০ হাজার টাকা বাকি আছে। ১৫ রমজানে সেই টাকা পরিশোধ করার কথা দিয়েছে। কিন্তু তারপরও রাব্বি আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে এসে কর্মচারীদের মারধর সহ আমাকে বিভিন্নভাবে হুমকি দিয়ে আসছে। এখন সে মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে আমার সম্মান ক্ষুন্ন করতে চাইছে। তাই বিভিন্ন মহলে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা ও বানোয়াট অভিযোগ দিয়ে আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করার চেষ্টা করছে।


বিভাগ : অর্থনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও