রিভারভিউ হাবিব কমপ্লেক্স নয়ামাটি উকিলপাড়ায় ব্যবস্থা গ্রহণের তাগিদ

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৫:২৫ পিএম, ৩০ মে ২০১৯ বৃহস্পতিবার

রিভারভিউ হাবিব কমপ্লেক্স নয়ামাটি উকিলপাড়ায় ব্যবস্থা গ্রহণের তাগিদ

ভবিষ্যতে নারায়ণগঞ্জে রানাপ্লাজা বা চকবাজারের বড় ধরনের দুর্ঘটনার ঝুঁকি রয়েছে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান। নারায়ণগঞ্জবাসীকে যাকে এমন দুর্ঘটনার সম্মুখীন হতে না হয় সেজন্য ঈদের পর পরই এ ব্যাপারে জরুরি ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে পরিবেশ অধিদপ্তর ও কলকারখানা অধিদপ্তরের অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি। ভবিষ্যত নারায়ণগঞ্জকে নিরাপদ রাখতে তিনি আইন প্রয়োগে কঠোর হওয়ার অনুরোধ রাখেন।

বৃস্পতিবার ৩০ এপ্রিল দুপুর সাড়ে ১২টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসক রাব্বি মিয়ার সভাপতিত্বে নারায়ণগঞ্জ জেলা ক্রাইসিস কমিটি অঞ্চল-১,২,৩ এর সভায় এমপি সেলিম ওসমান এসব কথা বলেন।

শহরের রিভারভিউ কমপ্লেক্স এবং হাবিব কমপ্লেক্সের নাম উল্লেখ করে এমপি সেলিম ওসমান বলেন, মার্কেট দুটিতে নামে বেনামে হাজার হাজার প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে। যারা গার্মেন্টস ও নীটওয়্যার নাম দিয়ে তারা বিভিন্ন ব্রান্ডের নাম ব্যবহার অবৈধভাবে পন্য বিদেশে পাচার করছে। এরা বিকেএমইএ, বাংলাদেশে হোসিয়ারী অ্যাসোসিয়েশন বা নারায়ণগঞ্জ চেম্বারের কোন সদস্য পদ নেই। সম্পূর্ণ অবৈধভাবে প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করে আমরা যারা বৈধভাবে ব্যবসা করছি তাদেরকে ক্ষতিগ্রস্থ করছে। দেশের রপ্তানি আয়ে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে।

অথচ খোঁজ নিলে দেখা যাবে এরা কোন প্রকার ইউডি প্রদান করেনা, এদের কোন টিন সার্টিফিকেট নাই, কারখানাগুলোতে অগ্নি নির্বাপক কোন ব্যবস্থা নেই। নেই জরুরি অবতরণ ব্যবস্থা। এখানে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে প্রতিদিন কয়েক হাজার পাইকার সমাগম হয়। তারা হয়তো জানেনই না মার্কেটের কোথায় কি রয়েছে। এখানে যদি রানা প্লাজা বা চকবাজারের মত ঘটনা ঘটে তাহলে কয়েক হাজার মানুষের প্রাণহানি ঘটবে। মানুষের জীবনকে ঝুঁকির মধ্যে রেখে পয়সা উপর্জান করবে এটা কোন অবস্থাতেই কাম্য নয়। তাই ঈদের পর উক্ত দুটি মার্কেট সহ নারায়ণগঞ্জে যেখানে যেখানে নীটওয়্যার বা গার্মেন্টস নাম দিয়ে অবৈধভাবে ব্যবসা করে দেশের রপ্তানি বাণিজ্যকে ক্ষতিগ্রস্থ করতে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হোক। আর যদি ব্যবস্থা গ্রহন করা হয় তাহলে যারা বিকেএমইএ, বাংলাদেশ হোসিয়ারী অ্যাসোসিয়েমন এবং নারায়ণগঞ্জ চেম্বারের সদস্য নয় এদের কোন দায়িত্ব এই সংগঠন গুলো নিবেনা।

এ ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য বিকেএমইএ এর পক্ষ থেকে একটি লিখিত আবেদন জেলা প্রশাসকের কাছে আবেদন জমা দিয়েছেন।

অপরদিকে শহরের নয়ামাটি ও উকিলপাড়া হোসিয়ারী শিল্প এলাকা দুটিকেও ঝুকিপূর্ণ এলাকা উল্লেখ করে তাদেরকে অন্যত্র স্থানান্তরের ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহনের কথা উল্লেখ করেছেন বিকেএমইএ সভাপতি সেলিম ওসমান। তিনি বলেন, শহরের নয়ামাটি ও উকিলপাড়ায় কয়েক হাজার হোসিয়ারী কারখানা রয়েছে। এই এলাকা দুটির একটি ঐতিহ্য রয়েছে। একটা সময় এখানে টিনের ঘরে ব্যবসা পরিচালিত হতো। সময়ের পরিবর্তে এখানে একের পর এক ভবন গড়ে উঠেছে। যেখানে একই সাথে উপরে ফ্যামেলি বাসা এবং নিচে হোসিয়ারী কারখানা পরিচালিত হচ্ছে। এখানেও যথেষ্ট নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেই। উক্ত এলাকা দুটিতে যদি চকবাজারের মত অগ্নি কান্ডের ঘটনা ঘটে তাহলে তার ভয়াবহতা কি হতে পারে তা ধারণা করা অসম্ভব। অথচ এই হোসিয়ারী শিল্পকে স্থানান্তরিত করার জন্য পঞ্চবটিতে বিসিক নির্মাণ করা হয়েছিল। আজকে যেখান থেকে প্রতিদিন প্রায় ৩৫ লাখ ডলারের পন্য বিদেশে রপ্তানি হচ্ছে। তাই নারায়ণগঞ্জ শহরের নিরাপত্তার স্বার্থে এবং শহরটিকে জঞ্জাট মুক্ত রাখতে বিসিক শিল্পনগরীর ন্যায় নয়মাটি ও উকিলপাড়া হোসিয়ারী শিল্পকে অন্যত্র স্থানান্তর করতে হবে। পাশাপাশি হোসিয়ারী শিল্পের উন্নয়নের মাধ্যমে রপ্তানি যোগ্য পন্য উৎপাদনের ব্যবস্থাগ্রহনের কথা উল্লেখ করে তিনি।

সম্প্রতি সময়ে দুটি প্রতিষ্ঠানে সৃষ্ট শ্রমিক অসন্তোষের ঘটনায় তিনি বলেন, প্যারাডাইজ ক্যাবল যদিও গার্মেন্টস প্রতিষ্ঠান নয় তবুও আমি বলবো মালিকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হোক। শ্রমিকদের সমস্ত পাওনা ক্ষতিপূরণ সহ পরিশোধ করার পরই তারা পুনরায় ব্যবসা শুরু করতে পারবে। প্রয়োজনে প্রতিষ্ঠানটির মালিককে গ্রেপ্তারের মাধ্যমে আইনের আওতায় এনে ব্যবস্থা গ্রহন করা হোক। অপরদিকে ক্রোনি গ্রুপের একটি গার্মেন্টে অশান্তি সৃষ্টি হয়েছিল। যেটি সমাধান করা হয়েছে। তারপরও আমি বলবো রমজান মাসে কোন অবস্থাতেই কোন গার্মেন্টসে শ্রমিক ছাটাই করা যাবেনা।

কল কারাখানা পরিদর্শন অধিদপ্তর ও পরিবেশ অধিদপ্তরকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, একটা সময় এই দুটি অধিদপ্তরের কার্যক্রম ঢাকা থেকে নিয়ন্ত্রন করা হতো। কিন্তু আমরা বিকেএমইএ এর মাধ্যমে এ দুটি দপ্তরকে নারায়ণগঞ্জে নিয়ে এসেছি। কিন্তু এ দুটি অধিদপ্তরের কর্মকান্ডে নারায়ণগঞ্জ বাসী কাঙ্খিত সুফল পায়নি। দুটি অধিদপ্তরের দায়িত্ব পালনে আরো গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা পালন করার অনুরোধ জানাচ্ছি।

এমপি সেলিম ওসমানের উপস্থাপন করা বিষয় গুলো গুরুত্ব দিয়ে ঈদের পর রিভারভিউ মার্কেট, হাবিব কমপ্লেক্স মার্কেটের অভ্যন্তরে অবৈধ কারখানার সহ সকল অবৈধ কারখানার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য দুটি দপ্তরকে অনুরোধক্রমে নির্দেশ প্রদান করেন।

জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়ার সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স অ্যা›ড ইন্ডাস্ট্রিজের সভাপতি খালেদ হায়দার খান কাজল, বিকেএমইএর সহ সভাপতি মনসুর আহমেদ, পরিচালক জিএম ফারুক ও র‌্যাব-১১-এর সিপিএসসির সহকারী পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান সহ বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা।


বিভাগ : অর্থনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও