শেষ সময়ে নারায়ণগঞ্জে নতুন টাকার ব্যবসা জমেছে

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:১১ পিএম, ৩ জুন ২০১৯ সোমবার

শেষ সময়ে নারায়ণগঞ্জে নতুন টাকার ব্যবসা জমেছে

সারি সারি নতুন টাকা। দুই, পাঁচ, ১০, ২০, ৫০ আর ১০০ টাকার কচকচা নোট। তবে এতগুলো নতুন টাকার ভিড়ে হঠাৎ করেই ৪০, ৬০ অথবা ৭০ টাকার নোট দেখে কারো চক্ষু চড়কগাছ হতেই পারে! এমনই নতুন নতুন টাকা নিয়ে দোকানিরা বসেছেন পসরা সাজিয়ে শহরের কালিরবাজারে। অনেকেই একে টাকার দোকানও বলে থাকেন।

শহরের কালিরবাজারে টাকার দোকানগুলোতে এখন বেচাবিক্রির ধুম চলছে। বাড়তি টাকা দিয়ে বদল করতে হচ্ছে নতুন টাকা। প্রতি বছরই এমন দোকান সাজিতে ঈদ মৌসুমে ব্যবসা করেন তারা।

ঈদের আনন্দে সবসময়ই বাড়তি মাত্রা যোগ করে সেলামির নতুন টাকা। তাইতো লাইনে দাঁড়িয়ে নতুন টাকা সংগ্রহ করতে ভিড় দেখা গেছে সাধারণ মানুষের। সালামি ছাড়াও দান-খয়রাতের জন্যও নতুন টাকা দেওয়ার কথা জানালেন অনেকে।

নতুন টাকার ক্রেতা ফয়সাল আহমেদ বলেন, ঈদ মানেই আনন্দ। তবে বড়দের চেয়ে ঈদে ছোটদের মধ্যেই উৎসাহ উদ্দীপনা খানিকটা বেশি থাকে। তাদের জন্য তো সেলামি প্রায় বাধ্যতামূলক। আর নতুন টাকায় সেলামি দিলে তাদের আনন্দটা যেনো আরো বেশি বেড়ে যায়।

বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ঈদ উপলক্ষে বাংলাদেশ ব্যাংক টাকার নতুন নোট বাজারে ছাড়ে। সেখান থেকেই টাকা সংগ্রহ করে তারা বিক্রি করেন খুচরা ও পাইকারি হিসেবে।

এবার দুই টাকা, পাঁচ টাকা, ১০ টাকা, ২০ টাকা, ৫০ আর ১০০ টাকার নতুন নোট কিনতে প্রতি হাজারে অতিরিক্ত খরচ হবে ৬০ থেকে ১২০ টাকা পর্যন্ত। তবুও টাটকা কচকচে নোট দিয়ে শিশুদের সীমাহীন আনন্দ এনে দিতে বড়দেরও যেন চেষ্টার কমতি নেই। কেননা তাদের কাছে টাকার মানের চেয়ে ‘নতুনের আহ্বানটাই’ বেশি।


বিভাগ : অর্থনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও