ইয়ার্ন মার্চেন্টে শনিবার ভোট : চাঁদাবাজ বনাম ব্যবসায়ীদের লড়াই!

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:১৩ পিএম, ২১ জুন ২০১৯ শুক্রবার

ইয়ার্ন মার্চেন্টে শনিবার ভোট : চাঁদাবাজ বনাম ব্যবসায়ীদের লড়াই!

সুতা ব্যবসায়ীদের জাতীয় সংগঠন বাংলাদেশ ইয়ার্ন মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের বহুল কাঙ্খিত নির্বাচনের ভোট শনিবার ২২ জুন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। দীর্ঘ ৭ বছর পরে ৯৩৬ জন ভোটারের প্রত্যক্ষ ভোটে নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন এসোসিয়েশনের ১৮ জন নেতা। সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৪ টা অবধি বিরতীহীনভাবে এসোসিয়েশনের টানবাজারস্থ নিজস্ব কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ভোটগ্রহণ। এবার নেতা নির্বাচনে কোন ধরনের বিতর্ক, চাঁদাবাজী আর অসৎ পন্থাকারীদের নেতৃত্বে দেখতে চান না নারায়ণগঞ্জের সুতা ব্যবসায়ীরা। সৎ, সজ্জন ব্যক্তিদের নেতা নির্বাচনের পক্ষেই আছেন ব্যবসায়ীরা। যে কারণে এবারের নির্বাচনটি পরিণত হয়েছে চাঁদাবাজ বনাম প্রকৃত ব্যবসায়ীদের লড়াইয়ে।

জানা গেছে, দীর্ঘ ৭ বছর পরে অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনে দু’টি প্যানেল থেকে ৩৬ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। শনিবার ২২ জুন দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। জেনারেল গ্রুপ থেকে ৭৭৪ জন ও এসোসিয়েট গ্রুপ থেকে ১৬২ জন ভোটার ভোট দিবেন।

নির্বাচন কমিশনের চেয়ারম্যানের দায়িত্বে রয়েছেন বিকেএমইএ’র প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মঞ্জুরুল হক। সদস্য হিসেবে রয়েছেন রাশেদ সারোয়ার ও ফারুক বিন ইউসুফ পাপ্পু।

এম সোলায়মানের নেতৃত্বাধীন প্যানেলের ১৮ জন প্রার্থীরা হলেন এম সোলায়মান, আব্দুল মান্নান মিঞা, আব্দুল্লাহ্ আল হোসেন বাপ্পি, মোঃ হুমায়ুন কবীর, মোঃ সাইদুর রহমান মোল্লা, দেবদাস সাহা, মোঃ আজহার হোসেন, মোঃ হাবিব ইব্রাহীম, মিন্টু চন্দ্র সাহা, মোঃ সাইদুর রহমান, মোঃ মহিউদ্দিন তুরান, মোঃ আব্দুল কাদির (সাধারণ গ্রুপ)। মোঃ মাহফুজুর রহমান খান মাহফুজ, মোঃ মকবুল হোসেন, মোঃ কামরুল হাসান, মোঃ খায়রুল কবীর, অসীম কুমার সাহা, মোঃ ফয়সাল আহাম্মদ দোলন (এসোসিয়েট গ্রুপ)।

লিটন সাহার নেতৃত্বাধীন প্যানেলের ১৮ জন হলেন লিটন সাহা, অশোক মহেশ্বরী, মোঃ মোজাম্মেল হক, মোঃ সেলিম রেজা, মোঃ মজিবুর রহমান, মোঃ আমিন উদ্দিন, মোঃ সিরাজুল হক হাওলাদার, মোঃ আকবর হোসেন, সঞ্জীত রায়, তাজুল ইসলাম, মোস্তফা এমরানুল হক মুন্না, জয় কুমার সাহা (সাধারণ গ্রুপ)। এবং মোহাম্মদ মুসা, মোঃ মুকুল হোসেন মল্লিক, মজিবর রহমান, মাওলানা নাজমুল হুদা বিন মাহিদ, মোঃ মেহেদী হাসান, আফসার আহমেদ (এসোসিয়েট গ্রুপ)।

ইতোমধ্যে নির্বাচনে বর্তমান সভাপতি এম সোলায়মানকে সমর্থন দিয়েছেন ব্যবসায়ী নেতা সেলিম ওসমান।

এদিকে নাম প্রকাশ না করার শর্তে ভোটাররা জানান, নানা সময়ে ইয়ার্ন মার্চেন্টে বিভিন্ন ধরনের নেতৃত্ব এসেছিল। কেউ বা ব্যাপক চাঁদাবাজী করেছিল। কারো কাছে মূলত জিম্মী ছিল ব্যবসায়ীরা। কার্যত ‘ঠুটো জগন্নাথ’ ছিলেন অনেক সুতা ব্যবসায়ী। একজন চাঁদাবাজ নেতার দৌরাত্ম্যে অনেক ব্যবসায়ী নিঃস্ব হয়ে পড়েছিলেন। বিগত দিনে চাঁদাবাজ নেতারা অনেক সুতা ব্যবসায়ীকে জিম্মি করে পথে বসিয়েছিলেন। এর মধ্যে একজন চাঁদাবাজ নেতার পিতার বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনের মামলাও হয়েছিল। সুতা ব্যবসার আড়ালে চোরাকারবারী ও মিথ্যা ঘোষণায় পণ্য আমদানীর কাজে জড়িত রয়েছেন চাঁদাবাজ ওইসকল ব্যবসায়ী নামধারী নেতারা। এছাড়া ক্ষমতার দাপটে অনেক ভুয়া ভোটারও তৈরী করিয়েছিলেন। যে কারণে এবার সুতা ব্যবসায়ীরা বিতর্কহীন নেতাদের পক্ষে রায় দেয়ার জন্য মুখিয়ে রয়েছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, চাঁদাবাজ নামধারী কয়েকজন প্রার্থীর বিরুদ্ধে ব্যবসায়ীদের চাপ প্রয়োগের অভিযোগ উঠেছে। ভোটার ও ব্যবসায়ীদের ফোন করে নানা ধরনের হুমকি দেয়ার অভিযোগও রয়েছে ওই সকল ব্যবসায়ী নেতা নামধারী চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে।

২০১৬ সালের ২৭ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সভাপতি পদে এম সোলায়মান, সিনিয়র সহ সভাপতি পদে হাজী আব্দুল মান্নান এবং সহ সভাপতি পদে মো. নিছারউদ্দিন কামাল নির্বাচিত হন।


বিভাগ : অর্থনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও