নারায়ণগঞ্জে ডিজিটাল ম্যাপিং প্রকল্পের পরিচিতি সভা

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৫:০৫ পিএম, ২ জুলাই ২০১৯ মঙ্গলবার

নারায়ণগঞ্জে ডিজিটাল ম্যাপিং প্রকল্পের পরিচিতি সভা

বিকেএমইএ ও ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌথ উদ্যোগে মঙ্গলবার (২ জুলাই) দুপুরে দেশের প্রথম ডিজিটাল ম্যাপিং প্রকল্প “ম্যাপড ইন বাংলাদেশ” এর আওতায় নারায়ণগঞ্জ জেলার পোশাক শিল্পের উদ্যোক্তাদের জন্য একটি পরিচিতি সভা আয়োজিত হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জের চাষাঢ়া বালুরমাঠে একটি কমিউনিটি সেন্টারে অনুষ্ঠিত এই সভায় সভাপতিত্ব করেন ম্যাপড ইন বাংলাদেশ প্রকল্পের দলনেতা এবং ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্টার ফর অন্ট্রেপ্রেনরশিপ ডেভেলপমেন্ট (সিইডি) এর উপদেষ্টা প্রফেসর ড. রহিম বি. তালুকদার। উক্ত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিকেএমইএ’র প্রথম সহ-সভাপতি মনসুর আহমেদ। বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন বিকেএমইএ’র দ্বিতীয় সহ-সভাপতি ফজলে শামীম এহসান, বিকেএমইএ’র সহসভাপতি (অর্থ) মো. হুমায়ুন কবির শিল্পী। সভায় মূল বক্তব্য পাঠ করেন প্রকল্প পরিচালক সৈয়দ হাসিবউদ্দিন হুসেইন। তিনি প্রকল্প বিষয়ে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ব্যক্তিবর্গের সামনে প্রকল্পের অগ্রগতি বিষয়ে বিভিন্ন তথ্য তুলে ধরেন এবং ডিজিটাল মানচিত্রটির বিভিন্ন ফিচারের সঙ্গে দর্শকদের পরিচয় করিয়ে দেন। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন বিকেএমইএ’র পরিচালক জিএম ফারুক, মজিবুর রহমান, জামাল পাশা, মোর্শেদ সারোয়ার সোহেল প্রমুখ।

বাংলাদেশের সকল রফতানিমুখী তৈরি পোশাক কারখানার কিছু সাধারণ তথ্য একটি ডিজিটাল মানচিত্রের (গুগল ম্যাপের অনুরূপ) আওতায় আনার জন্য সিঅ্যান্ডএ ফাউন্ডেশন এর অর্থায়নে, সেন্টার ফর অন্ট্রেপ্রেনরশিপ ডেভেলপমেন্ট ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়, ‘ম্যাপড ইন বাংলাদেশ’ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে।

বর্তমানে এই প্রকল্প নারায়ণগঞ্জ জেলার তৈরি পোশাক শিল্পের কারখানাগুলো থেকে তথ্য সংগ্রহের কাজ শুরু করেছে এবং এর অংশ হিসেব নারায়ণগঞ্জের পোশাক শিল্প উদ্যোক্তাদের জন্য বাংলাদেশ নিটওয়্যার ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যাান্ড এক্সপোরটার্স অ্যাাসোসিয়েশন (বিকেএমইএ) এবং সেন্টার ফর অন্ট্রেপ্রেনরশিপ ডেভেলপমেন্ট (সিইডি), ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয় এই পরিচিতি সভার আয়োজন করে। এই প্রকল্পের স্ট্র্যাটেজিক পার্টনার হল বিকেএমইএ এবং বিজিএমইএ। এছাড়া এই প্রকল্পটি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অধীনে থাকা কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরেরও আনুষ্ঠানিক সমর্থন পেয়েছে।

উল্লেখ্য যে, ২০১৮ সালের ১০ ডিসেম্বর ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে প্রকল্প সহযোগী হিসেবে বিকেএমইএ-এর একটি সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) স্বাক্ষরিত হয়। ‘ম্যাপড ইন বাংলাদেশ’ প্রকল্পটি ২০১৭ সালের এপ্রিল থেকে শুরু হয় এবং ২০২১ সালের মার্চে সমাপ্ত হবে বলে আশা করা হচ্ছে। ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব তত্ত্বাবধানে ‘ম্যাপড ইন বাংলাদেশ’ প্রকল্পের অধীনে নির্মিত হওয়া এই মানচিত্রটি তৈরি পোশাক খাত নিয়ে বাংলাদেশে প্রথম ডিজিটাল মানচিত্র। এ প্রকল্পের উদ্দ্যেশ্য হল বাংলাদেশের সকল রপ্তানিমুখী তৈরি পোশাক শিল্প কারখানাগুলোকে একটি ডিজিটাল মানচিত্রের আওতায় নিয়ে আসার মাধ্যমে বাংলাদেশের প্রগতিশীল তৈরি পোশাক খাতের স্বচ্ছতা নিশ্চিত করা।

সভার প্রধান অতিথি মনসুর আহমেদ প্রকল্পটির সফলতা তুলে ধরে বলেন, বাংলাদেশে বিশ্বের দ্বিতীয় নীটওয়্যার রপ্তানিকারক দেশ হিসেবে আন্তর্জাতিক ক্রেতা ও ব্র্যান্ডসমূহের কাছে যে বিশ্বাসযোগ্যতা অর্জন করেছে তাকে আরও স্বচ্ছতা জবাবদিহিতা ও প্রতিযোগিতাপূর্ণ সক্ষমতায় নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে এই প্রকল্প সুদূরপ্রসারী ভূমিকা রাখবে। আমরা চাই বাংলাদেশ বিশ্বের প্রথম নীটওয়্যার দেশে পরিণত হতে। এই ডাটাবেজ আগামী দিনে জনসাধারণসহ সর্বস্তরের মানুষকে দেশের নীট খাতের সকল ধরনের তথ্য সঠিকভাবে উপস্থাপনে সহযোগিতা করবে। তিনি আরো বলেন, ৮০’র দশকে যাত্রা শুরু করা বাংলাদেশের তৈরি পোশাক খাত বিশ্বব্যাপী যে সুনাম অর্জন করেছে তার পেছনে দেশীয় উদ্যোক্তাদের অক্লান্ত শ্রম নিয়োজিত। বর্তমানে প্রায় ২ হাজার ১০০টি ক্ষুদ্র, মাঝারি ও বৃহৎ নীট কারখানা আন্তর্জাতিক পর্যায়ে গুণগত মানসম্পন্ন পণ্য সরবরাহের মাধ্যমে ২০১৭-১৮ অর্থবছরে দেশের মোট রপ্তানিতে ৪১ দশমিক ৪২ শতাংশ (১৫ দশমিক ১৯ বিলিয়ন) অবদান রেখেছে। আগামী দিনে মধ্যম আয়ের বাংলাদেশ গঠনে নীট খাতের সমৃদ্ধি অর্জনে এই প্রকল্প স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার একটি সহায়ক নির্ণায়ক হিসেবে বিবেচিত হবে।

ব্র্যাক ও বিকেএমইএ-এর যৌথ সমঝোতায় ২০২১ সালের মধ্যে প্রকল্পটির দৃশ্যমান সফলতা প্রত্যাশা করে বিকেএমইএ-এর সহসভাপতি (অর্থ) মো. হুমায়ুন কবির খান শিল্পী বলেন, বৈশ্বিক প্রতিযোগিতায় বিভিন্ন অঞ্চলের স্বীকৃত ক্রেতা ও ব্র্যান্ডগুলোর সঙ্গে আমাদের মানসম্পন্ন নীটপণ্য সরবরাহের ক্ষেত্রে এই প্রকল্প আরও স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতে সহায়ক হবে।

অনুষ্ঠানের সভাপতি ও প্রকল্পের দলনেতা প্রফেসর ড. রহিম বি. তালুকদার বিকেএমইএ-এর সহ-সভাপতিদ্বয়কে এই প্রকল্পের সহযোগী হিসেবে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়কে সার্বিক সহায়তা প্রদান করার জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন এবং বলেন যে, বিকেএমইএ-এর সদস্য কারখানাসমূহের অধিকাংশ নারায়ণগঞ্জ জেলায় অবস্থিত হওয়ার কারণে নিট শিল্পের উন্নতির ক্ষেত্রে এই এলাকা দেশের অর্থনীতিতে যে অবদান রেখে চলেছে তার গুরুত্ব অপরিসীম।

প্রকল্প পরিচালক সৈয়দ হাসিবউদ্দিন হুসেইন বলেন, “আমরা, ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয় বিশ্বাস করি যে সম্পূর্ণরূপে প্রকাশিত হবার পর এই প্ল্যাটফর্মটির বহুবিধ ব্যবহারের পথ খুঁজে পাওয়া যাবে। সরকার, নগর পরিকল্পনাবিদ এবং জনস্বার্থে কাজ করা একটিভিস্টদের কাছে এই মানচিত্রে প্রদত্ত তৈরি পোশাক শিল্পের বিস্তারিত এবং অনন্য তথ্যাবলী প্রয়োজনীয় বলে মনে হবে। তৈরি পোশাক শিল্পের অর্জনসমূহ এখানে প্রদর্শন করা যাবে। সর্বোপরি, একাডেমিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে আমরা বেশ উদ্যমী হয়ে অনুভব করছি, যে এই মানচিত্রের এপ্লিকেশনের মাধ্যমে আমরা তৈরি পোশাক শিল্পের আরো অনেক গবেষণায় সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করতে পারবো।”

প্রকল্পের অধীনে ঢাকা জেলার তৈরি পোশাক শিল্পের কারখানাগুলো হতে তথ্য সংগ্রহের কাজ শেষ হয়েছে এবং গাজীপুর জেলার তথ্য সংগ্রহের কাজ শেষ পর্যায়ে রয়েছে। ঢাকা জেলার তৈরি পোশাক শিল্পের কারখানাগুলোর প্রকাশিত তথ্য নিয়ে এই ডিজিটাল মানচিত্রটি ২০১৯ সালের ২ ফেব্রুুয়ারি আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় বাণিজ্য মন্ত্রী টিপু মুন্সী। মানচিত্রটি বর্তমানে জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত রয়েছে এবং অনলাইনের সাধারণ ব্যবহারকারীরা ক্রাউডসোর্সিং এর মাধ্যমে এই মানচিত্রে কারখানার তথ্যের হালনাগাদ ও সত্যতা যাচাই করতে পারবে।

আশা করা হচ্ছে, নারায়ণগঞ্জের পোশাক শিল্প উদ্যোক্তাদের অংশগ্রহণ ও সহায়তায় নারায়ণগঞ্জ জেলার সকল রপ্তানিমুখী তৈরি পোশাক কারখানাগুলোকে ম্যাপড ইন বাংলাদেশ প্রকল্পের অধীনে নির্মিত ডিজিটাল মানচিত্রের আওতায় নিয়ে আসা সম্ভব হবে।

উক্ত সভায় নারায়ণগঞ্জ জেলায় অবস্থিত প্রায় ২৫০টি কারখানার বিভিন্ন উদ্যোক্তাবৃন্দ ও প্রতিনিধিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন বিকেএমইএ ও ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ।


বিভাগ : অর্থনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও