লকডাউন নারায়ণগঞ্জ, লোকারণ্যে ব্যস্ত সরগরম নিতাইগঞ্জ

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:০৭ পিএম, ৭ এপ্রিল ২০২০ মঙ্গলবার

লকডাউন নারায়ণগঞ্জ, লোকারণ্যে ব্যস্ত সরগরম নিতাইগঞ্জ

করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের দিক থেকে নারায়ণগঞ্জ জেলাকে রেড জোন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এরপরই জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সিটি করপোরেশন এলাকা, সদর ও বন্দর উপজেলা লকডাউন করা হয়েছে। কিন্তু এমন পরিস্থিতিতেও পরিবর্তন আসেনি শহরের নিতাইগঞ্জ এলাকা। জনসমাগম তো আছেই সঙ্গে আছে এক সঙ্গে আড্ডা, গল্পগুজব করা সহ এক কাপে একাধিক মানুষের চা পান করা। এ বিষয়ে প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

৭ এপ্রিল মঙ্গলবার সকাল থেকে দুপুরে শহরের নিতাইগঞ্জ এলাকায় ঘুরে দেখা গেছে, নিতাইগঞ্জ মোড়, বি দাস রোড, আরকে মিত্র রোড সহ আশে পাশে এলাকায় প্রচুর লোক সমাগম। প্রতিনিয়ত গাড়িতে পণ্য লোড আনলোড করা হচ্ছে। এতে করে মোড়ে সৃষ্টি হচ্ছে যানজট। এখানকার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান সকলই খোলা রয়েছে। আর এসব প্রতিষ্ঠানের হাতে গুনা কয়েকজন ছাড়া কারো মাস্ক নেই, গ্লাভস নেই কিংবা সুরক্ষার নূন্যতম কোন সরঞ্জামও তারা ব্যবহার করছেন না। এছাড়াও এসব এলাকায় চায়ের দোকান, টঙ দোকান সহ ছোট বড় সকল দোকানই খোলা। চায়ের দোকানগুলোতে একই সঙ্গে ২০ থেকে ২৫ জন শ্রমিক শ্রেনির লোকজন চা পান করছেন। তাও একই কাপ অন্যজনকে দেওয়া হচ্ছে। কোন পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন ছাড়াই।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জ শহরের নিতাইগঞ্জ দেশ জুড়ে পরিচিত খাদ্য সামগ্রী পাইকারী বিক্রয় কেন্দ্র হিসেবে। যেখানে তেল, ডাল, চাল, লবণ, আটা, ময়দা, মশলা, চিনি ইত্যাদি খাদ্য সামগ্রী পাওয়া যায়। এখান থেকে নদীপথে ও সড়ক পথে দেশের বিভিন্ন জেলায় পণ্য সামগ্রী যায়। যার জন্য বিভিন্ন জেলা থেকে ক্রেতারা নিতাইগঞ্জে আসে। এছাড়াও নারায়ণগঞ্জ জেলার অভ্যন্তরে প্রতিটি দোকানের পণ্য নিতাইগঞ্জ থেকে সরবরাহ করা হয়। ফলে খাদ্য সামগ্রীর জন্য নিতাইগঞ্জ খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি ব্যবসায়িক এলাকা।

স্থানীয় বাসিন্দা মাসুম বলেন, নিতাইগঞ্জ ব্যবসায়িক এলাকা হলে এখানে অনেক পরিবার বসবাস করেন। যার ব্যবসা করেন তাদের পরিবারও এখানেই থাকেন। যেভাবে এখানে জনসমাগম হচ্ছে তাতে আক্রান্ত হওয়ার শঙ্কা অনেক বেশি। কারণ নারায়ণগঞ্জ জেলাকে ইতোমধ্যে রেডজোন ঘোষণা করা হয়েছে।

তিনি বলেন, খাদ্য সামগ্রী বিক্রয় কেন্দ্র হলেও এখানে একটা নূন্যতম নিয়ম শৃঙ্খলা মানা হচ্ছে না। কেউ হাত ধুচ্ছে না, এক কাপে সবাই চা খাচ্ছে, মাস্ক ব্যবহার করছে না। অপ্রয়োজনে লোকজন ঘর থেকে বের হয়ে আড্ডা দিচ্ছে। এতে সংক্রামণ বাড়ার সন্ধেহ হচ্ছে।

চায়ের দোকানদার বলেন, গরম পানিতে করোনা ভাইরাস মইরা যায় তাই বার বার গরম পানি দিয়ে কাপ ধুয়ে দিচ্ছি। আর এখানে কোন করোনার রোগী নাই। তাই চিন্তা নাই।

চা পান করা শ্রমিক বলেন, আমাদের করোনা হবে না। সরকার বলতেছে ঘরে থাকলে খাওয়াবে কে। ত্রাণ তো আমাদের দিচ্ছে না। ঘরে বসে থাকলে না খেয়ে থাকতে হবে। আর এখান থেকে বিভিন্ন খাদ্য সামগ্রী অন্যান্য জেলায় যায় তখন এগুলো বন্ধ হয়ে থাকবে।

তিনি বলেন, ‘এখানে কোন প্রশাসনের কেউ আসেনি। আর মাস্ক ও গ্লাভসও কেউ দেয়নি। গাড়িতে পণ্যলোড আনলোড করে যে যে টাকা উপার্জন হয় তা দিয়ে সংসার চলাতে কষ্ট হয়। গ্লাভস আর মাস্ক ব্যবহার করতে টাকা কোথায় পাবো। আমাদের গামছাই মাস্কের মতো ব্যবহার করি।’

স্থানীয় ব্যবসায়ীরা কেউ এ বিষয়ে কোন কথা বলতে রাজি হয়নি।

তবে এক বিক্রেতা নাম প্রকাশ না করা শর্তে বলেন, ‘আমাদের নাম পত্রিকায় দিয়েন না। এখানে ডাল, চাল, লবণ, চিনি, তেল, আটা ময়দা এসব খাদ্য সামগ্রী বিক্রি হয়। এছাড়া অন্য কোন দোকান এখানে নেই। এখন এদিকে দোকান বন্ধ রাখলে খাদ্য সংকট দেখা দিবে। তখন বাজারে দাম বেড়ে যাবে। তাই প্রশাসন থেকেও দোকান বন্ধ রাখার জন্য তেমন কোন দিক নির্দেশনা নেই।’

তিনি বলেন, জীবনের ঝুঁকি আছে কিন্তু আমরা সেই ঝুঁকি নিয়েই বের হচ্ছি। কারণ দেশও দেশের মানুষের কথা চিন্তা করেই। আমরা গ্লাভস ব্যবহার না করলেও মাস্ক ব্যবহার করছি। আর সবাইকে বলছি দূরত্ব বজায় রাখতে।’

এদিকে নিতাইগঞ্জ ব্যবসায়ী মালিক সমিতির সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল কাদিরের মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে সেটা বন্ধ পাওয়া যায়।

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর অসিত বরণ বিশ্বাস বলেন, এখানকার ব্যবসায়ী মালিক সমিতির সভাপতির সঙ্গে একাধিকবার বলা হয়েছে। যাতে তারা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখে। কিন্তু প্রতিবার তারা প্রশাসনের দোহায় দেয় প্রশাসন তাদের বিকেল ৫টা পর্যন্ত খোলা রাখতে নির্দেশ দিয়েছে। তারপরও তাদের বলা হয়েছে স্বেচ্ছাসেবক নিয়োগ দিয়ে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ব্যবসা করতে কিন্তু তারা কোন কর্ণপাত করছেনা।

তিনি বলেন, আমি প্রশাসনের কাছে জোর দাবি জানাই অবিলম্বে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণে করা হোক। প্রয়োজনে তাদের জেল জরিমানাও করা হোক। কারন তাদের জন্য একটি আবাসিক এলাকার ক্ষতি হতে পারে না।


বিভাগ : অর্থনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও