১ পৌষ ১৪২৪, শনিবার ১৬ ডিসেম্বর ২০১৭ , ১১:১৬ পূর্বাহ্ণ

বার একাডেমীর প্রধান শিক্ষকের অনিয়ম তদন্তে গঠন হচ্ছে কমিটি


সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৯:৩০ পিএম, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭ বৃহস্পতিবার


বার একাডেমীর প্রধান শিক্ষকের অনিয়ম তদন্তে গঠন হচ্ছে কমিটি

নারায়ণগঞ্জে শত বছরের ঐতিহ্যবাহী প্রাচীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ‘নারায়ণগঞ্জ বার একাডেমী’ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামান সরকারকে সাময়িক বরখাস্তের পর তার অনিয়ম ও দুর্নীতি তদন্তে ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। স্কুলটির সাবেক ম্যানেজিং কমিটির একাধিক সদস্যের সঙ্গে আলাপকালে এমন তথ্য মিলেছে। এছাড়া বুধবার সন্ধ্যায় প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব হস্তান্তরকালে হিসাবের খাতা নিয়ে চম্পট দেয়ার পায়তারার বিষয়টি গণমাধ্যমে প্রকাশের পরে সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

জানা গেছে, গত ২০ আগস্ট মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস স্কুলটির ম্যানেজিং কমিটির তফসিল ঘোষণা করলেও স্কুলটির প্রধান শিক্ষক ও এডহক কমিটির সদস্য সচিব মনিরুজ্জামান পুরো বিষয়টি গোপন রাখেন বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর। পূর্বতন কমিটির সভাপতি শামীম চৌধুরীকে প্রধান রেখে একটি কমিটি জমা করে সেটাকে অনুমোদন আনার চেষ্টা করেন মনিরুজ্জামান। গত ২১ আগষ্ট প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামান মনিরের বিভিন্ন অনিয়ম তুলে ধরে তাকে বরখাস্তের দাবিতে জেলা প্রশাসকের বরাবরে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করা হয়। ওই অভিযোগের প্রেক্ষিতে জেলা প্রশাসকের নির্দেশে জেলা শিক্ষা অফিসার শরিফুল ইসলামকে প্রধান করে ৩ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। অন্য দুইজন সদস্য হলেন জেলা শিক্ষা অফিসের গবেষণা কর্মকর্তা নাজমুন্নাহার খানম ও প্রধান সহকারী মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম। এদিকে গণমাধ্যমে বিষয়টি নিয়ে সংবাদ প্রকাশের পরে অভিভাবক, শিক্ষার্থীরা ও স্থানীয়রা ক্ষোভে ফুঁসে উঠতে থাকে। তারা এ ব্যাপারে কয়েকদিন ধরেই আন্দোলন করার প্রস্তুতি নেয়। এছাড়া ঈদুল আযহার কয়েকদিন পূর্বে কয়েকজন ছাত্রের চুল কেটে দেন প্রধান শিক্ষক। এতে করে অভিভাবকদের ক্ষুব্দতা আরো বাড়ে।

সোমবার (১৮ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে তদন্ত কমিটির প্রধান জেলা শিক্ষা অফিসার শরীফুল ইসলামের নেতৃত্বে ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি স্কুলটি পরিদর্শনে আসেন। তবে এর আগেই স্কুলটির সামনে বিক্ষুব্দ অভিভাবক, শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী ব্যানার ও ঝাড়– নিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করতে থাকে। তদন্ত কমিটি স্কুল আসলে তারা তাদেরকে ঘেরাও করে বিক্ষোভ প্রদর্শণসহ নানা অভিযোগ প্রদান করতে থাকে। খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ স্কুলটিতে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। এরপর তদন্ত কমিটি প্রধান শিক্ষকের কক্ষে বসে অভিভাবক, প্রাক্তন শিক্ষার্থী ও স্থানীয়দের নানা অভিযোগ শোনেন। এসময় প্রধান শিক্ষকের উপস্থিতিতেই তার বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করতে থাকেন বিক্ষুব্দরা। ওইসময় প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামান মনির তদন্ত কমিটিকে বলেন, আমি হুকুমের গোলাম। আমাকে ম্যানেজিং কমিটি যেভাবে নির্দেশ দিয়েছে আমি সেটা পালন করেছি। তিনি একটি কমিটি উপজেলা শিক্ষা অফিসে জমা দিয়েছেন বলেও স্বীকার করেন। এদিকে জেলা শিক্ষা অফিসার পার্শ্ববর্তী শিক্ষকদের মিলনায়তনে গিয়ে শিক্ষকদের সঙ্গে কথা বলতে গেলে তখন বিক্ষুব্দরা এক পর্যায়ে প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামানকে টেনে হিচড়ে বের করে আনা হয়। এসময় তাকে লাঞ্ছিতও করা হয়। তখন পূর্বতন ম্যানেজিং কমিটির অভিভাবক প্রতিনিধি সদস্য নুরুজ্জামান তাকে উদ্ধার করে গাড়িতে করে বাড়িতে পাঠিয়ে দেন। এরপর স্কুলটির ৩৫ জন শিক্ষক তদন্ত কমিটির কাছে প্রধান শিক্ষকের অনিয়মের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দেন।

মঙ্গলবার দুপুরে স্কুলটিতে আসেন স্কুলটির এডহক কমিটির সভাপতি শামীম চৌধুরী, এডহক কমিটির সদস্য আলী হায়দার শামীম, সাবেক ম্যানেজিং কমিটির কো-অপ্ট সদস্য জিয়াউদ্দিন আহম্মেদ, সাবেক ম্যানেজিং কমিটির অভিভাবক প্রতিনিধি সদস্য নুরুজ্জামান, আজাহারুল ইসলাম। পরে তারা স্কুলটির শিক্ষকদের সঙ্গে দীর্ঘ বৈঠকে বসেন। এসময় স্কুলটির শিক্ষকরা প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামানের বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম ও সেচ্ছাচারিতার অভিযোগ তুলে ধরেন। এসময় শিক্ষকরা অভিযোগ করেন, নরসিংদীর চর মাধবপুরের সরকারি মদিনাতুল দাখিল মাদ্রাসার এমপিও ভুক্ত শিক্ষিকা বিউটি আক্তার মাসের পর মাস অবৈধ ভাবে বালিকা শাখায় বাংলা শিক্ষক হিসাবে নিয়োগ প্রদান করেছেন। যা অবৈধ ও আইন পরিপন্থি। একটি স্কুলের এমপিও ভুক্ত শিক্ষক যার পিআইটি নং-২১১১৩৫৮ সরকারি মদিনাতুল দাখিল মাদ্রাসা, চর মাধবপুর কর্মের অনুপস্থিতি থেকে তার ঘনিষ্ঠ জন অবৈধ ভাবে এবং প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামানের সহযোগিতার শিক্ষকতা করে আসছেন।

বৈঠক শেষে এডহক কমিটির সভাপতি শামীম চৌধুরী সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে জানান, প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামানের সঙ্গে সোমবার যে ঘটনাটি ঘটেছে সেটা পূর্ব পরিকল্পিত। পূর্বে থেকেই ব্যানার করার বিষয়টিতেই সেটা প্রমানিত হয়। তবে তারা বিষয়টি টের পাননি। এছাড়া প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামানকে বদমেজাজী উল্লেখ করে তিনি বলেন, তার বিরুদ্ধে শিক্ষকদের কাছ থেকে নানাবিধ অভিযোগ পেয়ে তাকে সাময়িক বরখাস্তের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। তবে তার বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের কোন দালিলিক প্রমাণ পাওয়া যায়নি। এছাড়া দুর্নীতির অভিযোগে শিক্ষিকা বিউটি আক্তারকেও সাময়িক বরখাস্তের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

বুধবার দুপুরে তদন্ত কমিটি স্কুলটি পরিদর্শনে যান। এসময় তারা শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলেন। এরপর সন্ধ্যায় এডহক কমিটির সদস্য আলী হায়দার শামীম ওরফে পিজা শামীমকে সঙ্গে নিয়ে স্কুলটিতে আসেন সাময়িক বরখাস্তকৃত প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামান। এসময় তিনি ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক হুমায়ন কবিরকে দায়িত্ব বুঝিয়ে দেন। পরে তিনি হিসাবের খাতাটি ফটোকপি করে নিয়ে যেতে চান। তখন এডহক কমিটির সদস্য আলী হায়দার শামীম ওরফে পিজা শামীম ও সাময়িক বরখাস্তকৃত প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামানের সঙ্গে দুইজন শিক্ষকও ফটোকপির দোকানে যান। তখন প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামান মনির হিসাবের খাতাটি নিয়ে চম্পট দেয়ার চেষ্টা করেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

এ বিষয়ে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন কারী হুমায়ন কবির জানান, বুধবার সন্ধ্যায় মনিরুজ্জামান সাহেব আমাকে দায়িত্ব বুঝিয়ে দিয়ে গেছেন। ওই সময় তার সঙ্গে এডহক কমিটির সদস্য আলী হায়দার শামীমও এসেছিলেন। পরে তারা হিসেবের খাতাটি ফটোকপি করে নিয়ে যেতে চাইলে আমি সঙ্গে দু’জন শিক্ষককেও পাঠিয়েছিলাম। তবে এর বেশী কিছু মন্তব্য করতে তিনি রাজী হননি।

এদিকে পূর্বতন ম্যানেজিং কমিটির কয়েকজন সদস্য নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, সাময়িক বরখাস্তের পরে এখন মনিরুজ্জামানের অনিয়ম ও দুর্নীতি তদন্তে একটি ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। ওই কমিটিতে শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটির সদস্যদের রাখা হবে। তারা অনিয়ম ও দুর্নীতির বিষয়টি তদন্ত করে দেখবেন। এছাড়া মনিরুজ্জামানকে কি কি কারণে বরখাস্ত করা হয়েছে সেটার ব্যাখ্যাসহ একটি চিঠি শীঘ্রই দেয়া হবে। এরপর তদন্ত শেষ হলে তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এদিকে তদন্ত কমিটির প্রধান জেলা শিক্ষা অফিসার শরীফুল ইসলাম জানান, তদন্ত প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। বেশ কিছু তথ্য এখনো পাইনি। আশা করছি দ্রুতই তদন্ত রিপোর্ট দাখিল করতে পারবো।  

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

শিক্ষাঙ্গন -এর সর্বশেষ