৪ আশ্বিন ১৪২৫, বুধবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ , ৯:৪৬ অপরাহ্ণ

নারায়ণগঞ্জ সরকারি তোলারাম কলেজ এখন ডিজে ক্লাব!


সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ১০:২১ পিএম, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ রবিবার


নারায়ণগঞ্জ সরকারি তোলারাম কলেজ এখন ডিজে ক্লাব!

নারায়ণগঞ্জ জেলার মধ্যে সর্বোচ্চ বিদ্যাপিঠ হলো নারায়ণগঞ্জ সরকারি তোলারাম কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়। এখানে জেলার বিভিন্ন থানা, উপজেলা এমনকি বাইরের বিভিন্ন জেলা থেকেই শিক্ষার্থীরা এখানে পড়ালেখা করতে আসেন। দীর্ঘ সময়ের পাঠদানের সুনামের পাশাপাশি কলেজটির রয়েছে রাজনৈতিক অনেক ইতিহাসও।

তবে সম্প্রতি সময়ে কলেজটির একটি বিশেষ শ্রেণীর ছাত্রছাত্রীদের নিয়োমিত কিছু সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে কলেজে পড়তে আসা শিক্ষার্থীরা যেমন অতিষ্ঠ হয়ে উঠছে তেমনি কলেজের আশেপাশে আবাসিক এলাকার বাসা বাড়ির মানুষও হয়ে উঠছে বিরক্ত। কলেজটিতে গত ৪ থেকে ৫ সপ্তাহ ধরে নিয়মিত প্রতিদিনই দেখা যায় কোন না কোন অনুষ্ঠান থাকছেই। কারণে অকারনে করা এসব অনুষ্ঠানে সকাল ৭টা থেকেই শুরু হয় উচ্চশব্দে ডিজে হিন্দি ও ইংলিশ গান। একাধিক পেয়ারের (জোড়া) সাউন্ড সিস্টেম দিয়ে চালানো এসব অনুষ্ঠানে উচ্চ শব্দে হিন্দি ও ইংলিশ গান বাজায় শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থী এবং এলাকাবাসী তো বটেই স্বয়ং শিক্ষকরাও বিরক্ত এসব অনুষ্ঠানে। তবে কেউই এতে বাধা দিচ্ছেন না। এলাকাবাসী সম্প্রতি অনুষ্ঠানের ব্যাপারে দৃষ্টি আকর্ষন করে অভিযোগ করলে সরেজমিনেও এমন অবস্থাই লক্ষ্য করা যায়।

রোববার (২৫ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টায় দেখা যায় এমন একটি অনুষ্ঠান চলছিল কলেজে। অনুষ্ঠানে একের পর এক হিন্দি গান বাজছে। কলেজের শিক্ষার্থীদের একটি অংশও এখানে নাচছেন। দুপুর গড়িয়ে বিকেল পর্যন্ত চলে অনুষ্ঠানটি। স্থানীয় দোকানদারদের সাথে কথা বলে জানা গেছে এমন অনুষ্ঠান শুধু রবিবারই নয় প্রতিদিনই চলে। অনুষ্ঠানের উচ্চ শব্দের কারণে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েন তারা।

এলাকাবাসী ঢলি বেগম জানান, সকাল থেকেই শুরু হয় কলেজের এই গানবাজনা। আগে এমন ছিলনা। সম্প্রতি এ গানের মাত্রায় বাসায় টিকাই মুশকিল হয়ে পড়েছে। কলেজ লেখাপড়ায় স্থান, প্রতিদিন এখানে যদি এমন ডিজে পার্টি হয় তবে কিভাবে! এখানে লেখাপড়া করবে কিভাবে সন্তানরা।

কলেজের শিক্ষার্থী সুবির জানান, প্রায় প্রতিদিনই কলেজে এমন অনুষ্ঠান থাকে। আমাদের অনেকেই এখানে অংশ নিয়ে থাকি। ডিজে হিন্দি গান হয়, সাথে নাচও হয়। শিক্ষার্থীরা আনন্দ করি অনুষ্ঠানে।

আরেক শিক্ষার্থী আব্দুল্লাহ জানান, আমি সেই আড়াইহাজার থেকে কলেজে আসি। গত কিছুদিন এসে এখানে গানের জন্য একটি ক্লাসও করতে পারিনি। শিক্ষকও গানের শব্দের কারণে ক্লাসে এসে বসে থাকেন কারণ শব্দে তার কথা আমরা শুনতে পাইনা।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) রেজাউল বারী জানান, আমি শুনেছি। আমি বাইরে ছিলাম মাত্র অফিসে এসেছি। দেখছি ব্যাপারটি।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

শিক্ষাঙ্গন -এর সর্বশেষ