গভমেন্ট গার্লস ও আইইটি স্কুলের নানা অভিযোগ

সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:১৩ পিএম, ২১ এপ্রিল ২০১৮ শনিবার



গভমেন্ট গার্লস ও আইইটি স্কুলের নানা অভিযোগ

নারায়ণগঞ্জে সরকারী দুটি হাই স্কুলগুলোতে প্রয়োজনীয় অবকাঠামো এবং পর্যাপ্ত শিক্ষক থাকলেও শিক্ষার পরিবেশ মানসম্মত শিক্ষা নেই - অভিযোগ অভিভাবকদের। কোন স্কুলেই অভিভাবকদের অভিযোগ শোনার জন্য কেউ নেই। সরকারী প্রতিষ্ঠান হওয়ায় এ দুটি স্কুলের পরিচালনা করছেন জেলা প্রশাসন। কিন্তু প্রশাসনিক অন্যান্য কাজে ব্যস্ত থাকায় তারাও স্কুলগুলোর সঠিক পরিচালনায় সময় দিতে না পারায় শিক্ষকদের জবাবদিহি করার কেউ নেই।

নারায়ণগঞ্জে মেয়েদের একমাত্র সরকারী স্কুল হচ্ছে নারায়ণগঞ্জ সরকারী উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় যা গভমেন্ট গার্লস স্কুল হিসেবে পরিচিত। ৫০ বছরের পুরনো এ স্কুলটি মাসদাইর এলাকায় অবস্থিত। বর্তমানে এ স্কুলে ৩২০০ মেয়ে দুই শিফটে পড়াশোনা করছে। ১২০জন শিক্ষকের মধ্যে অধিকাংশ শিক্ষকই ঢাকায় অবস্থান করেন।

ষষ্ঠ শ্রেণীর শিক্ষার্থীর অভিভাবক আমিনা বেগম জানান, ভর্তি পরীক্ষায় মেধার ভিত্তিতে তার মেয়েকে এ স্কুলে ভর্তি করার পর এখন স্কুলে পড়াশোনার বাস্তব অবস্থা দেখে তার সন্তানের ভবিষৎ নিয়ে তিনি শংকিত। বছরের শুরুতেই শিক্ষকরা ক্লাশে ক্লাশে গিয়ে শিক্ষার্থীদের তাদের ব্যাচে পড়ার জন্য চাপ প্রয়োগ করতে থাকে। মেয়েদের স্কুলে অপরিচ্ছন্ন বাথ রুম। নেই খাবার পানির ব্যবস্থা। কম্পিউটার টিচার থাকলেও ক্লাশ হয়না। লাইব্রেরীতে বই উইপোকায় খাচ্ছে।

প্রধান শিক্ষক আবুল কালাম মোস্তফা জানান, নিয়মিত যাতে শিক্ষকরা ক্লাশ করেন সে ব্যাপারে তিনি চেষ্টা করছেন। কিছু অভিযোগের কথা তিনি স্বীকার করে বলেন জেলা প্রশাসনের সাথে যোগাযোগ করে বাথরুম এবং পানির সমস্যা  সমাধান করবেন।

হাজীগঞ্জে অবস্থিত আইইটি সরকারী বালক বিদ্যালয়। ১৯২৬ সালে প্রতিষ্ঠিত এ স্কুলে প্রায় তিনহাজার শিক্ষার্থী পড়াশোনা করছে। কয়েকটি ভবন থাকলেও এ স্কুলের শিক্ষার মান নিয়ে অসন্তোষ শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকদের মধ্যে।

অষ্টম শ্রেনীর একজন শিক্ষার্থী জানান, ক্লাশ নিয়মিত হয় না। নবম শ্রেনীর শিক্ষার্থীর অভিভাবক শুশান্ত রায় অভিযোগ করেন, পড়াশোনার মান কমে যাওয়ার কারণে প্রতিবছর রেজাল্ট খারাপ হচ্ছে। জেলা প্রশাসন স্কুলটি পরিচালনার জন্য কোন প্রকার দায়িত্ব পালন করছেন না যে কারণে শিক্ষকরা তাদের ইচ্ছে মতো স্কুল পরিচালনা করছে।

স্কুলের প্রধান শিক্ষক রমেশ চন্দ্র কুন্ড জানান, আমরা চেষ্টা করছি শিক্ষার মান বাড়াতে। পাবলিক পরীক্ষায় গত চার বছর যাবত শতভাগ পাশ করতে পারেনি। সুষ্ঠু পরিচালনার অভাবে শিক্ষার পরিবেশ ব্যহত হচ্ছে।

জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়া জানান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা) এ দুইটি স্কুলে আমার পক্ষে মনিটরিং করেন। সরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কোন প্রকার অনিয়ম মেনে নেয়া হবেনা। অভিযোগগুলো তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


বিভাগ : শিক্ষাঙ্গন


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

এই বিভাগের আরও