৩ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫, রবিবার ১৮ নভেম্বর ২০১৮ , ১:৫৮ পূর্বাহ্ণ

rabbhaban

থেমে গেছে ছাত্র আন্দোলন, বেড়ে গেছে সড়ক দুর্ঘটনা


সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৬:২৮ পিএম, ২০ আগস্ট ২০১৮ সোমবার


ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

সারা দেশের মত নারায়ণগঞ্জেও গড়ে উঠেছিল ছাত্র আন্দোলন। রাজধানীতের সড়ক দুর্ঘটনায় দুই শিক্ষার্থী মৃত্যুর ঘটনায় এ আন্দোলন গড়ে উঠে। যেকারণে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা সড়ক অবরোধ করে সকল যানবাহনের লাইসেন্স চেক করে। এছাড়া শিক্ষার্থীদের তদারকিতে সারা দেশের মত নারায়ণগঞ্জের সড়কেও শৃঙ্খলা ফিরে আসে। তবে সেই আন্দোলন থেমে যেতেই ফের সড়কের বিশৃঙ্খলা দেখা দিয়েছে। আর সেই বিশৃঙ্খলার প্রতিযোগিতায় বেপরোয়া যান চলাচলে সড়ক দুর্ঘটনা বেড়েই চলেছে।

এদিকে গত ১৫ আগস্ট রাতে নারায়ণগঞ্জে একটি বেপরোয়া প্রাইভেকটারের ধাক্কায় ৪টি রিকশা দুমড়ে মুচড়ে অন্তত ৮জন আহত হয়েছে। রাত পৌনে ১০টায় শহরের জামতলা হিরা কমিউনিটি সেন্টারের সামনে ঢাকা-পাগলা-নারায়ণগঞ্জ সড়কে এ ঘটনা ঘটে। এতে উত্তেজিত জনতা বেপরোয়া গাড়িটিকে ধাওয়া করে ঈদগাহের সামনে আটক করলেও পালিয়ে যায় চালক। পরে গাড়িটিতে ভাঙচুর চালায় জনতা। আহতদের মধ্যে ৬জনকে শহরের খানপুর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। বাকি দুজনের অবস্থা আশংকাজন থাকায় তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজে ভর্তি করা হয়েছে জানা গেছে।

১৫ আগস্ট রাতে বন্দরে সড়ক দুর্ঘটনায় ফরাজিকান্দা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৩য় শ্রেণীর ছাত্র শাওন (৮) গুরুতর আহত হয়েছে। রাত সাড়ে ৮টায় বন্দর থানার ২০ নং ওয়ার্ডস্থ সোনাকান্দা বেপারীপাড়া এলাকায় এ দুর্ঘটনাটি ঘটে। স্থানীয় এলাকাবাসী আহত স্কুল ছাত্রকে উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করেছে। এ ব্যাপারে বন্দর থানায় সড়ক দুর্ঘটনা আইনে মামলা দায়েরের প্রস্ততি চলছে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উল্লেখিত ২ মটর সাইকেল আরোহী বেপরোয়া গতিতে মটর সাইকেল চালিয়ে যাওয়ার সময় স্কুল ছাত্র শাওনকে চাপা দেয়। এ ঘটনায় স্থানীয় জনতা মটর সাইকেল আরোহীদের আটক করে বন্দর থানা পুলিশে সোপর্দ করে।

এভাবে প্রায় প্রত্যেকদিন একের পর এক সড়ক দুর্ঘটনার ঘটছে। গড়ে প্রতিদিন ৩-৪টি সড়ক দুর্ঘটনার ঘটনা ঘটছে। এর মধ্যে সড়কে নৈরাজ্যকে মূলত দায়ী করা হচ্ছে। কেননা, সড়কে প্রতিনিয়ত আইন লঙ্ঘন করে বেপরোয়াভাবে যান চলাচলের কারণে এসব দুর্ঘটনার চিত্র অহরহ দেখা যাচ্ছে।

কিন্তু এ মাসের শুরুতে সারা দেশের মত নারায়ণগঞ্জের ছাত্র আন্দোলনের ফলে সড়কে শৃঙ্খলা ফিরে আসে। আর সড়কে যান চলাচলরত চালকরা শিক্ষার্থীদের দেখানো আইন মানতে বাধ্য হয়। যেকারণে সড়কে শৃঙ্খলা ফিরে আসে।

শিক্ষার্থীদের সড়কে শৃঙ্খলা ফেরানোর ফলে পুলিশ প্রশাসন অনেকটা প্রশ্নবিদ্ধ হয়। সে বিষয়টা ইতোমধ্যে অনেকটা স্পষ্ট হয়েছে। যেকারণে ছাত্র আন্দোলনকে প্রায় সকলেই সমর্থন করেছেন। তবে জনদুর্ভোগের কথা চিন্তা করে এবং কোন অপশক্তি ছাত্র আন্দোলনকে ভিন্নখাতে ব্যবহার করতে পারে উল্লেখ করে ক্ষমতাসীনরা আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ঘরে ফিরে যাওয়ার আহবান করেন। এর এক পর্যায়ে ছাত্র আন্দোলন থমকে যায়।
 
এদিকে ছাত্র আন্দোলনের রেশ কাটতেই সড়কে ফেল বিশৃঙ্খলা ফিরে আসে। ট্রাফিক সপ্তাহ উদযাপিত হলেও সড়েকের নৈরাজ্য কিছুতেই কমছেনা। বরং উল্টো বেড়েছে। যদিও ট্রাফিক পুলিশ আগের তুলনায় অনেকটা তৎপর ছিল কিন্তু তাতেও তেমন কোন কাজ হয়নি। ছাত্র আন্দোলনের পর থেকেই ক্রমে ক্রমে ফিটনেস বিহীন গাড়ি চলাচলের দৃশ্য দেখা যাচ্ছে। তবে বেপরোয়া যানবাহন চলাচলের ফলে সড়ক দুর্ঘটনার সংখ্যা ক্রমশ বেড়ে চলেছে।

এতে যাত্রীরা উদ্বেগ প্রকাশ করে জানান, ‘ছাত্র আন্দোলনের ফলে সড়কে শৃঙ্খলা ফিরে আসলেও এখন তাদের অনুপস্থিতিতে ফের নৈরাজ্য সৃষ্টি হয়েছে। এখন সড়ক দিয়ে চলাচল করা যায়না। আর যানবাহনগুলো এতো বেপরোয় হয়ে উঠেছে যা বলার অপেক্ষা রাখেনা। এক্ষেত্রে পুলিশ প্রশাসন যে ব্যর্থ তা আবারো প্রমাণ হচ্ছে। কেননা, এক দিনে শিক্ষার্থীরা যেটা করে দেখাতে পেরেছে তা থেকে কিছুই শিক্ষতে পারেনি পুলিশ প্রশাসনের কর্মকর্তারা। যেকারণে সড়কের নৈরাজ্য কমছেনা যার ফলে সড়ক দুর্ঘটনা বেড়েই চলেছে।’

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

শিক্ষাঙ্গন -এর সর্বশেষ