মর্গ্যানে ১০ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র দাখিল

সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:৪২ পিএম, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮ সোমবার



মর্গ্যানে ১০ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র দাখিল

নারায়ণগঞ্জ শহরের দেওভোগে অবস্থিত মর্গ্যান গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজের গভর্নিংবডি নির্বাচনের ৬ পদের জন্য ১০ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছে। এতে কলেজ শাখার দুটি অভিভাবক সদস্য পদে দুইজন মনোনয়নপত্র জমা দেয়ায় তারা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ের পথে। বাকি পদগুলোতে জয়ী হওয়ার লক্ষ্যে জমাকৃত প্রার্থীরা রাত থেকে প্রচারণায় নেমে পড়েছে বলে জানা গেছে। ৫ অক্টোবর গভর্নিংবডি নির্বাচনে ৩৩০০ অভিভাবক তাদের ভোটের মাধ্যমে যোগ্য প্রার্থীকে জয়ী করাবে।

আলোচিত নারায়ণগঞ্জ শহরের প্রাণকেন্দ্র দেওভোগের ঐহিত্যবাহিী মর্গ্যান গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজের গভর্নিংবডি নির্বাচনের ইতোমধ্যে সমালোচনা সৃষ্টি হয়েছে। নির্বাচনের আগেই ডোনার মেম্বার (দাতা সদস্য) নির্বাচিত হওয়ায় ৫ অক্টোবর নির্বাচন অনুষ্ঠিত নিয়ে চিন্তিত ছিল প্রার্থীরা।

১৭ সেপ্টেম্বর ৩টি প্রাথমিক মাধ্যমিক অভিভাবক সদস্য পদে ৬টি, কলেজ শাখার দুইটি অভিভাবক পদে ২টি এবং সংরক্ষিত মহিলা অভিভাবকের একটি আসনের জন্য দুই নারী মনোয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

১০ জনের মধ্যে দুই জন রয়েছেন বর্তমান কমিটির সদস্য হিসেবে। তারা হলেন প্রাথমিক (১ম-৫ম শ্রেণীর) অভিভাবক সদস্য মোশাররফ হোসেন জনি ও ১ম শ্রেণী-কলেজ শাখার সংরক্ষিত মহিলা অভিভাবক সদস্য মহিলা কাউন্সিলর শারমিন হাবিব বিন্নী।

স্কুল সূত্রে জানা যায়, ৫ অক্টোবর শুক্রবার মর্গ্যান গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজের গভর্নিংবডি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। নির্বাচন প্রিজাইডিং অফিসার হিসেবে রয়েছেন সদর উপজেলার নির্বাচন কমিশনার মো. মমিন মিয়া। ১৫ থেকে ১৭ সেপ্টেম্বর মনোনয়নপত্র ক্রয় ও দাখিলের সময় নির্ধারণ করা হয়। সেই প্রেক্ষিতে সোমবার বিকাল ৪টা পর্যন্ত ছিল মনোনয়নপত্র ক্রয় ও জমা শেষ সময়।

মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন তারা হলেন প্রাথমিক (১ম-৫ম শ্রেণীর) অভিভাবক সদস্য একজন অভিভাবক সদস্য পদে মোশাররফ হোসেন জনি, মাসুদুর রহমান মাসুদ ও জানে আলম।

মাধ্যমিকে (৬ষ্ঠ-১০ম শ্রেণীর) দুইজন অভিভাবক সদস্য পদে সুনয়ন মাহমুদ সুপন, বরাত হোসেন সুমন ও জাকির হোসেন রতন। কলেজ শাখার দুই অভিভাবক পদে মোঃ সেলিম ও হানিফ মাতবর।

অপরদিকে ১ম শ্রেণী-কলেজ শাখার একজন সংরক্ষিত মহিলা অভিভাবক সদস্য পদে মহিলা কাউন্সিলর শারমিন হাবিব বিন্নী ও তাহেরা বেগম তানিয়া।

জমাকৃত মনোনয়নপত্র ১০ প্রার্থীর বাছাই করা হবে বৃহস্পতিবার দুপুর ২টায় স্কুলের অফিস কক্ষে। ২৩ সেপ্টেম্বর রোববার বিকাল ৪টা পর্যন্ত প্রার্থীরা প্রত্যাহার করে নিতে পারবে। বিকাল ৫টায় বৈধ প্রার্থীগণের তালিকা প্রকাশ করা হবে এবং ৫ অক্টোবর নির্বাচন হবে স্কুল প্রাঙ্গণে।

মনোনয়নপত্র জমা হিসেবে কলেজ শাখার দুই অভিভাবক সদস্য পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ে পথে রয়েছেন নবাগত মোঃ সেলিম ও হানিফ মাদব্বর।

এদিকে মনোনয়নপত্র জমা দিয়ে প্রাথমিক সদস্য পদের প্রার্থী মোশাররফ হোসেন জনি নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, অভিভাবকদের কাছে আমি ঋণী। তারা আমাকের প্রাথমিক অবস্থায় দুইবার ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছে। যে সুযোগ সুবিধা পাবার জন্য অভিভাবকরা যেভাবে ভোট দিয়ে ছিল তার বাস্তবায়নে পূরণ করতে পেরেছি। শিক্ষা মান আরো উন্নত করার জন্য সব সময় সচেষ্ট ভূমিকা পালন করেছি। আগামীতে অভিভাবকেরা আমাকে জয়ী করলে সবর্দা তাদের পাশে থাকার প্রত্যয় করছি।

মনোনয়নপত্র জমা দিয়ে মাধ্যমিক সদস্য পদের প্রার্থী সুনয়ন মাহমুদ সুপন নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, মর্গ্যান স্কুলটি ঐহিত্যবাহী বিদ্যালয়। এই স্কুলে আমার সন্তান সহ পবিবার বংশের অনেকে শিক্ষা গ্রহণ করেছে করছে। তাই স্কুল আগামী উন্নয়নের সিড়িতে আমি থাকতে চাই। আমার সকল প্রচেষ্টা থাকবে স্কুলের উন্নয়নে, অভিভাবকদের কাছে সুনয়ন হয়ে থাকতে চাই। বিদ্যালয় চেয়ারম্যান মহোদয় যোগ্য ব্যক্তিত্ব তার সাথে কাজ করে মর্গ্যানকে একটি মডেল হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। অভিভাবকদের কোন মতে সমস্যা পড়তে দেয়া হবে, তাদের সকল দাবি সাথে আমার একত্মা থাকবো সকল সময়।

মনোনয়নপত্র জমা দিয়ে প্রথম শ্রেণী-কলেজ শাখার সংরক্ষিত মহিলা অভিভাবক সদস্য পদের প্রার্থী তাহেরা বেগম তানিয়া নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, এই স্কুলের প্রাক্তন ছাত্রী ছিলাম। এখন মেয়ে পড়ছে জীবনে ইচ্ছে ছিল লেখাপড়া করে ভাল চাকরি করা। কিন্তু সাংসরিক জীবনে জড়িয়ে যাওয়ায় সেই ইচ্ছে পূরণ হয়নি। এখন মেয়ের অভিভাবক হওয়ায় মানুষের সেবা করা ইচ্ছে জেগেছে। সেই কারণে ঐতিহ্যবাহী মর্গ্যান স্কুল অ্যান্ড কলেজটি উন্নয়ন করা লক্ষ্যে আমার প্রার্থী হওয়ায়। অভিভাবকরা যদি আমাকে ভোট দিয়ে জয়ী করে সবর্দায় আমার মেধা দিয়ে তাদের কল্যাণ কাজ করে যাবো।


বিভাগ : শিক্ষাঙ্গন


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও