আলোচনা সমালোচনা পিছু ছাড়ছে না মর্গ্যানের

সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:১৬ পিএম, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ বুধবার



আলোচনা সমালোচনা পিছু ছাড়ছে না মর্গ্যানের

শত বছরের ঐতিহ্যবাহী একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হচ্ছে মর্গ্যান বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় অ্যান্ড কলেজ। এই প্রতিষ্ঠানের সাবেক ছাত্র ছাত্রীরা দেশ বিদেশের বিভিন্ন জায়গায় গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করছেন। কিন্তু শত বছরের ঐতিহ্যবাহী এই প্রতিষ্ঠানটি সাম্প্রতিক সময়ে সংঘঠিত কয়েকটি ঘটনায় আলোচনা সমালোচনা সৃষ্টি হয়েছে সারা নারায়ণগঞ্জ জুড়ে। এমনকি প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর পর্যন্তও পৌঁছেছে মর্গ্যানের আলোচিত ও সমালোচিত ঘটনা।

জানা যায়, শত বছরের ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠান মর্গ্যান বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় অ্যান্ড কলেজের সাবেক শিক্ষার্থী বর্তমান সরকারের মন্ত্রীসভায় দায়িত্ব পালন করেছেন। এই প্রতিষ্ঠানেরই সাবেক শিক্ষার্থী দেশের সর্বপ্রথম নারী মেয়র হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন। এছাড়াও আরও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে এই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা দায়িত্ব পালন করছেন। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে কয়েকটি ঘটনায় এই বিদ্যাপিঠকে আলোচনা ও সমালোচনার আসনে বসিয়ে রেখেছে।

সাম্প্রতিক সময়ের মধ্যে মর্গ্যান গার্লস স্কুল এন্ড কলেজ সর্বপ্রথম আলোচনায় আসে ২০১৭ সালে নভেম্বরে। তৎকালীন সময়ে অনুষ্ঠিত এসএসসির টেস্ট পরীক্ষায় তিন বিভাগ থেকে ৫৩১ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ১৭৮জনই অকৃতকার্য হয়। যাদের অধিকাংশই ২ বা এর বেশী বিষয়ে উত্তীর্ণ হতে পারেনি। যে ফলাফল শিক্ষার্থীরা মেনে নিতে পারেননি। প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষের কাছে সুযোগের আবেদন করলেও তাদের সে আবেদন বিফলে যায়। ফলশ্রুতিতে নানা লঙ্কাকান্ডের মধ্যে দিয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক বরাবর পর্যন্ত গিয়ে পৌঁছায়। পরবর্তীতে জেলা প্রশাসক স্কুল কর্তৃপক্ষকে নিয়ে কয়েক দফা মিটিং করে চূড়ান্ত সিন্ধান্তে উপনীত হন। যা নারায়ণগঞ্জের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ সকল জায়গায় আলোড়ন সৃষ্টি করে। 

এর কয়েকমাস পরই চলতি বছরের ১৯ মে দিবাগত রাত সাড়ে ১১টার দিকে বিদ্যালয়ের পূর্বদিকে প্রায় দেড়শ বছরের পুরোনো একটি দুতলা ভবন নাসিকের ভেকু দিয়ে ভেঙ্গে গুড়িয়ে দেয়া হয়। যদিও সিটি করপোরেশন দাবী করেছেন জায়গাটি তাদের। কিন্তু এই ঘটনায় পুরো নারায়ণগঞ্জ জুড়েই আলোড়ন সৃষ্টি হয়। শিক্ষার্থীরা ক্ষোভে ফেঁসে উঠেন এবং প্রস্তুতি নেন বৃহৎ আন্দোলন গড়ে তোলার। পরবর্তীতে এমপি সেলিম ওসমানের আশ্বাসে শিক্ষার্থীরা তাদের আন্দোলন থেকে সড়ে আসলেও বিষয়টি গিয়ে গড়ায় প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর পর্যন্ত। বর্তমানে বিষয়টি অমিমাংসিত অবস্থায়ই ঝুলে রয়েছে।

এদিকে এই ঘটনায় রেষ কাটতে না কাটতেই ফের আলোচনায় চলে আসে প্রতিষ্ঠানটির গভর্নিং বডির নির্বাচন ইস্যূতে। মর্গ্যান বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় অ্যান্ড কলেজের গভর্নিং বডির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৫ অক্টোবর শুক্রবার। কিন্তু এর আগেই নির্বাচনের দাতা সদস্য (ডোনার মেম্বার) নির্বাচিত হয়ে যান বর্তমান গভর্নিংবডি মেম্বার ও মহানগর আওয়ামীলীগ নেতা আহসান হাবিব। যা নিয়ে স্কুলে নির্বাচন পরিচালনা নিয়ে সমালোচনা সৃষ্টি হয়েছে। স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রায় ৩৩০০ শিক্ষার্থীর অভিভাবক ও দেওভোগে প্রভাবশালী থাকতে মাত্র ২০ হাজার টাকা বিনিময়ে আহসান হাবিব নির্বাচিত হয়ে যান। ফলে নির্বাচনের আগে তিনি কিভাবে নির্বাচিত হলেন তা নিয়ে সমালোচনা মুখে পড়েছে বর্তমান গভর্নিংবডি।

একের পর এক এসকল ঘটনায় সারা নারায়ণগঞ্জ জুড়েই আলোচনা সমালোচনায় সরগরম থেকে যাচ্ছে মর্গ্যান বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় অ্যান্ড কলেজ। ফলে বার বার ব্যাহত হচ্ছে শত বছরের ঐতিহ্যবাহী এই বিদ্যাপিঠের কার্যক্রম। শিক্ষার্থীরাও মানসিকভাবে বার বার বিপর্যস্ত হচ্ছে।


বিভাগ : শিক্ষাঙ্গন


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও