২৯ কার্তিক ১৪২৫, মঙ্গলবার ১৩ নভেম্বর ২০১৮ , ১:৪১ অপরাহ্ণ

UMo

বাড়ছে শিক্ষার্থী নির্যাতন


স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:২৪ পিএম, ২৩ অক্টোবর ২০১৮ মঙ্গলবার


ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার শিক্ষক তাপস

ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার শিক্ষক তাপস

কয়েকমাস পরেই মাধ্যমিক পরীক্ষা। সকল স্কুলে স্কুলে চলছে এবারের এসএসসিতে অংশ নেয়ার পূর্ব মূল্যায়ন পরীক্ষা। শিক্ষা জীবনের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সময়ে যখন সকল শিক্ষার্থী পড়া নিয়ে ছোটাছুটিতে ব্যস্ত ঠিক তখনি এক নরপিশাচের লালসার শিকার হয়ে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে এক শিক্ষার্থী। ভিন্ন কোন উদ্দেশ্যে নয়, নয় কোন বিয়ের প্রলোভন। ইংরেজীতে ভালো ফলাফলের আশায় একটি কোচিং এ প্রাইভেট পড়তে গিয়ে ধর্ষণের শিকার হতে হয় তাকে। এমতবস্থায় অজানা ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে মানসিক ভাবে বিপর্যস্থ হয়ে পড়েছে সে।

তবে শিক্ষক কর্তৃক ছাত্রীর শ্লীলতাহানী বা ধর্ষণ নতুন কিছু নয়। শিক্ষকতার আড়ালে একের পর এক কুকর্ম জন্ম দিয়ে পুরো শিক্ষক সমাজের মান ধূলিসাৎ করছে এরা। নামে বেনামে কোচিং সেন্টার গড়ে তুলে ব্যবসার উদ্দেশ্যে। নিজের বাসা বাড়িতে ব্যাচ কিংবা অলিগলিতে ছোট ছোট রুম ভাড়া করেই অনায়াসে চলে শিক্ষাদান। এর ফাঁকে ফাঁকে কিছু অসৎ শিক্ষকের সাথে চলে ছাত্রীর সাথে প্রণয় কিংবা ফাঁকা রুম পেয়ে ফুঁসলিয়ে ধর্ষণ। ঘটনাগুলো মামলা মোকাদ্দমা কিংবা শালিশী বৈঠকে উঠে এলেও লোকলজ্জার কারণে বিপুল পরিমান অপকর্ম থেকে যায় চোখের আড়ালে।

শুধু ধর্ষন কিংবা শ্লীলতাহানীতেই অভিযোগ সীমাবদ্ধ নয়। সামান্য কারণে পিটিয়ে ছাত্র আহত, টিউশন ফি সংক্রান্ত বিষয়ে শারিরীক ও মানসিক নির্যাতন। আবাসিক মাদ্রাসার শিক্ষক কর্তৃক ছাত্র বলাৎকারের মত ঘৃণ্য অপকর্ম ঘটছে তাদের দ্বারা। দিনে দিনে এর পরিমান বৃদ্ধি পাওয়ায় সন্তানের শিক্ষা কার্যক্রম নিয়ে শঙ্কার মধ্যে পড়েছে অভিভাবকরা।

সর্বশেষ ফতুল্লায় তাপসের কোচিং এ দশম শ্রেনীর ছাত্রী ধর্ষনের ঘটনায় আবারো বড় করে আলোচনার জন্ম দিয়েছে। এর পূর্বেও ছাত্রী শ্লীলতাহানীর অভিযোগ উঠায় এলাকাবাসী ক্ষিপ্ত হয়ে গণধোলাই দেয়। এছাড়া নিজের মাকে প্রকাশ্যে বাসা থেকে বের করে নির্যাতন করার কথাও শোনা গেছে।

বেশ কয়েকজন অভিভাবক জানায়, তাপস স্যার ভালো ইংরেজী পড়ায় শুনে সকলে তার কাছে পড়তে যায়। যাবার পরে বুঝতে পারে তার চরিত্র সম্পর্কে। ছাত্র ছাত্রীদের গালিগালাজ, অশালীন ইঙ্গিত ও গায়ে হাত দেবার অভিযোগ আসে ছেলে মেয়েদের কাছ থেকে। ঘরে বউ থাকতেও তার কুকর্ম থেমে থাকেনি।

দীর্ঘদিন ধরেই তার এমন আচরণ প্রসঙ্গে কোচিং এর সাবেক ছাত্রী জানায়, তাপস স্যার অত্যাধিক মারধর করে। এছাড়া কারণে অকারণে মেয়েদের গায়ে হাত দিয়ে বিব্রতকর অবস্থার জন্মদেয়। শিক্ষক হিসেবে কেউ কিছু মুখ ফুটে বলতেও পারে না। তার এমন অশালীন আচরণ দেখে বাসায় জানালে আমাকে কোচিং থেকে নিয়ে আসে।

স্কুল শিক্ষক কবির আহমেদ বলেন, শিক্ষকতা একটি মহৎ পেশা। এই পেশায় সকলে আসতে পারে কিন্তু এর মান সম্পর্কে ধারণা রাখে না। দেশের শিক্ষকরা হচ্ছে জাতির কর্নধার এই ব্যাপারটি মাথায় রাখতে হবে। নিজের পেশার সম্পর্কে ধারণা ভুলে গিয়ে নিচু মানসিকতার পরিচয় দেয়া গোটা শিক্ষক জাতির জন্য অপমানজনক। এ জন্যে আইনের কঠোরতার পাশাপাশি পারিবারিক মূল্যবোধ ও ভুক্তভোগীকে সাহসী ভূমিকা পালন করা অত্যাবশ্যক।

rabbhaban

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

শিক্ষাঙ্গন -এর সর্বশেষ