নারায়ণগঞ্জের স্কুলগুলোতে মনগড়া ভর্তি ফি

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৫:০৪ পিএম, ৩ জানুয়ারি ২০১৯ বৃহস্পতিবার

নারায়ণগঞ্জের স্কুলগুলোতে মনগড়া ভর্তি ফি

বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা আরিফুল হাসানের তিন ছেলেমেয়ে। বড় ছেলে নারায়ণগঞ্জের একটি স্বনামধন্য উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণিতে, ছোট ছেলে একই স্কুলের ষষ্ঠ শ্রেণিতে এবং ছোট মেয়ে একটি নামি কিন্ডারগার্টেনে দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়ে। বছরের শুরুতে তিন ছেলেমেয়েকে নতুন ক্লাসে ভর্তি করতে গিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন আরিফুল।

কারণ বড় ছেলের ভর্তির জন্য তাকে গুনতে হবে প্রায় ৯ হাজার টাকা। মেজ ছেলেকে প্রায় সাড়ে ৭ হাজার টাকা এবং ছোট মেয়েকে প্রথম শ্রেণিতে প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজার টাকা ফি দিয়ে ভর্তি করতে হবে। সব মিলিয়ে ছেলেমেয়েদের ভর্তি করতেই তার খরচ হবে প্রায় ২২ হাজার টাকা। এর সঙ্গে নতুন পোশাক, খাতা, কলম-ব্যাগ তো আছেই। অল্প বেতনের চাকরি দিয়ে আরিফুল হাসানের পক্ষে একসঙ্গে এত টাকা জোগাড় করা সম্ভব নয়। সেজন্য তাকে নিতে হচ্ছে ঋণ।

শুধু আরিফুল হাসানই নন, নারায়ণগঞ্জের মধ্যবিত্ত শ্রেণির অভিভাবকদের একটি বড় অংশকে নতুন বছর শুরু করতে হচ্ছে ঋণ নিয়ে। যাদের ঋণ নিতে হয়নি, তাদেরও ছিল আক্ষেপ আর দীর্ঘশ্বাস। বছর বছর ভর্তি ফি ও বেতন বাড়ানোর লাগাম টেনে ধরার কাউকে না পেয়ে ক্ষোভও রয়েছে সবার।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নতুন শ্রেণিতে ভর্তির জন্য নারায়ণগঞ্জের বেসরকারি স্কুলগুলোতে ইচ্ছামতো ভর্তি ও সেশন ফি আদায় করা হচ্ছে। ভর্তি ফি বৃদ্ধির একটি নীতিমালা থাকলেও তার তোয়াক্কা করছে না কেউ। বেতন, পরীক্ষার ফি ছাড়াও বিদ্যুৎ-পানির বিল, লাইব্রেরি, আসবাব, নামফলক, মসজিদসহ স্কুল-কলেজের উন্নয়নের জন্য টাকা নেয়া হচ্ছে অভিভাবকদের কাছ থেকে। এসবই জুড়ে দেয়া হয়েছে সেশন চার্জ হিসেবে।

জানা গেছে, ২০১৮ সালের অক্টোবর মাসে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এবার ঢাকা মেট্রোপলিটনে সর্বোচ্চ ভর্তি ফি পাঁচ হাজার টাকা। আর অন্যান্য মেট্রোপলিটনে তিন হাজার টাকা। এবার জেলা শহরে ভর্তি ফি নির্ধারণ করা হয়েছে দুই হাজার টাকা। আর উপজেলা শহরে এক হাজার টাকা। মফস্বলে নির্ধারণ করা হয়েছে ৫০০ টাকা। ভর্তি কার্যক্রম নজরদারিতে বেশ কয়েকটি পর্যবেক্ষক দল থাকবে।

অভিভাবকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জ আইডিয়াল স্কুলে শিশু থেকে দশম শ্রেনী পর্যন্ত একজন শিক্ষার্থীকে ভর্তি করানোর জন্য অভিভাবকদের গুনতে হয় ৮ থেকে ১২ হাজার টাকা পর্যন্ত। নারায়ণগঞ্জ প্রিপারেটরী স্কুলে শিশু থেকে দশম শ্রেনী পর্যন্ত একজন শিক্ষার্থীকে ভর্তি করানোর জন্য অভিভাবকদের গুনতে হয় সাড়ে ৪ হাজার থেকে ৮ হাজার টাকা পর্যন্ত। একই অবস্থা চাষাঢ়ার বেইলী স্কুল, নারায়ণগঞ্জ কিন্ডারগার্টেনসহ বিভিন্ন বেসরকারী প্রাইমারী স্কুল ও কিন্ডারগার্টেনগুলোতে। এদের চেয়ে আরও একধাপ এগিয়ে আছে ইংরেজি মাধ্যমের স্কুলগুলো। ৩৫ হাজার টাকার নিচে এসব স্কুলে ভর্তির সুযোগ নেই।

জানা গেছে, ২০১৭ সালের ২০ জুন নারায়ণগঞ্জের এবিসি ইন্টারন্যাশনাল স্কুল, হেরিটেজ স্কুল, চেইঞ্জেস স্কুল ও ফিলোসোফিয়া স্কুলের কর্তৃপক্ষকে অবহিতকরণ পত্র দেন নারায়ণগঞ্জ জজ কোর্টের এক আইনজীবী। যাতে তিনি পুনরায় ভর্তি বা সেশন ফি এর নামে অতিরিক্ত অর্থ আদায় বন্ধে হাইকোর্টের বিভাগীয় আদেশের কথা অবহিত করে স্কুল কর্তৃপক্ষকে।

সদর উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মনিরুল ইসলাম নিউজ নারায়ণগঞ্জকে জানান, সরকারী প্রাইমারী স্কুলগুলোতে পরীক্ষার ফি ব্যতীত ভর্তির জন্য কোন টাকা প্রদান করতে হয়না। তবে বেসরকারী স্কুলগুলো তাদের অধীনে নয়। এগুলো শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রিত হয়।

নারায়ণগঞ্জ জেলা শিক্ষা অফিসার শরীফুল ইসলাম নিউজ নারায়ণগঞ্জকে জানান, শিক্ষা মন্ত্রনালয় কর্তৃক সম্প্রতি ঢাকা মহানগরীর ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৫ হাজার টাকা নির্ধারণ করেছে। এছাড়াও অন্যান্য মহানগর, জেলা শহর ও মফস্বলের জন্য পৃথক ভর্তি ফি নির্ধারণ করেছে। এর থেকে কোন স্কুল কর্তৃপক্ষ বেশী নিতে পারবেনা। যদি কোন স্কুলে অতিরিক্ত ভর্তি ফি নেয়া হয় সেক্ষেত্রে অভিযোগ পেলে আমরা ব্যবস্থা নিব।


বিভাগ : শিক্ষাঙ্গন


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও