তোলারাম কলেজে ভর্তির প্রলোভনে টাকা হাতিয়ে নেয়া প্রতারক গ্রেফতার

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৭:৫৫ পিএম, ৬ জুলাই ২০১৯ শনিবার

তোলারাম কলেজে ভর্তির প্রলোভনে টাকা হাতিয়ে নেয়া প্রতারক গ্রেফতার

নারায়ণগঞ্জের সরকারি তোলারাম কলেজের একাদশ শ্রেণীতে ভর্তির প্রলোভন দেখিয়ে ৩৫জন শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে প্রায় পাঁচ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে উধাও হওয়া প্রতারক মো. ইউসুফকে গ্রেফতার করেছে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ।

শনিবার ৬ জুলাই সকালে ফতুল্লার এনায়েতনগর ইউনিয়নের উত্তর নবীনগর নিজ বাড়ি থেকে ইউসুফকে গ্রেফতার করা হয়। এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ বিষয়টি গণমাধ্যমকে জানায়।

গ্রেফতারকৃত ইউসুফ উত্তর নবীনগর এলাকার মনির হোসেন মনু ও রহিমা বেগম দম্পতির ছেলে। প্রতারণার ঘটনায় শনিবার সরকারি তোলারাম কলেজে ভর্তিচ্ছু এক শিক্ষার্থী মুসলিমনগর আদর্শপাড়া এলাকার আব্দুল কুদ্দুসের পুত্র মো. রহমত উল্লাহ বাদি হয়ে ফতুল্লা মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

মামলার অভিযোগে জানা গেছে, ফতুল্লার এনায়েতনগর ইউনিয়নের উত্তর নবীনগর এলাকার মনির হোসেন মনু ও রহিমা বেগম দম্পতির পুত্র মো. ইউসুফ (২৫) সরকারি তোলারাম কলেজে ভর্তি করে দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে বেশ কিছু ছাত্রের কাছ থেকে মোটা অংকের অর্থ হাতিয়ে নেয়। মামলার বাদি মুসলিমনগর আদর্শপাড়া এলাকার আব্দুল কুদ্দুসের পুত্র মো. রহমত উল্লাহ ইউসুফের সঙ্গে দেখা করলে সে জানায়, তোলারাম কলেজে ভর্তি করার জন্য ১০০টি আসন খালি রয়েছে। তার সঙ্গে (ইউসুফ) কলেজের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের পরিচয় আছে। সে যে কোন মুহূর্তে যে কোন কলেজে ভর্তি করে দিতে পারবে। প্রতারক ইউসুফের এমন কথাতে সরল বিশ্বাসে রহমতউল্লাহ তাকে দুই দফায় ২৫ হাজার টাকা দেয়। পরে ৩০ জুন কলেজে গিয়ে রহমতউল্লাহ জানতে পারে ওইদিন নারায়ণগঞ্জ সরকারি তোলারাম কলেজে গিয়ে ভর্তির শেষ দিন কিন্তু ইউসুফ মো. রহমত উল্লাহ এর ভর্তির কোন ব্যবস্থা করে নাই। তখন মো. রহমত উল্লাহ ইউসুফের মোবাইল নম্বর ০১৯৮১০৬৭৮১৯ তে ফোন করলে নম্বরটি বন্ধ পায়।

পরে রহমতউল্লাহ জানতে পারে ভর্তি ইচ্ছুক অনেক ছাত্র-ছাত্রীদের নিকট থেকে ইউসুফ প্রতারণার মাধ্যমে বিভিন্ন অংকের টাকা গ্রহণ করেছে কিন্তু ভর্তির কোন ব্যবস্থা করে নাই। যার মধ্যে লামিয়ার কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা, জাহিদ হাসানের কাছ থেকে ২২ হাজার ৫০০ টাকা, নয়ন আহম্মেদের কাছ থেকে ২১ হাজার ৭০০ টাকা, সাকিবের কাছ থেকে ৩০ হাজার টাকা, কাউসারের কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা, জাকারিয়ার কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা, সজীবের কাছ থেকে ২৪ হাজার ২০০ টাকা, আলআমিনের াকছ থেকে ৩৫ হাজার টাকাসহ অন্যান্য ছাত্র-ছাত্রী সহ আরও বিভিন্ন লোকের নিকট হইতে বিভিন্ন অংকের টাকা আত্মসাৎ করেছে।

এ ঘটনায় শনিবার ৬ জুলাই সকালে ফতুল্লা মডেল থানায় রহমতউল্লাহ বাদি হয়ে একটি প্রতারণা মামলা দায়ের করলে পুলিশ অভিযান চালিয়ে উত্তর নবীনগর এলাকা থেকে প্রতারক ইউসুফকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম হোসেন জানান, প্রতারণার শিকার এক শিক্ষার্থীর মামলা দায়েরের পরে পুলিশ প্রতারক ইউসুফকে গ্রেফতার করেছে।


বিভাগ : শিক্ষাঙ্গন


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও