মাদ্রাসা ছাত্রী ধর্ষণ

বন্দর করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:০৫ পিএম, ২৯ আগস্ট ২০১৯ বৃহস্পতিবার

মাদ্রাসা ছাত্রী ধর্ষণ

ভাড়াটিয়া ঘরের টিন খুলে ভিতরে প্রবেশ করে মাদ্রাসার ৭ম শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। ২৯ আগস্ট বৃহস্পতিবার সকালে ধর্ষিতা মাদ্রাসার ছাত্রীর মামা বাদী হয়ে বন্দর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে এ মামলা দায়ের করেন। ওই ঘটনায় পুলিশ সকালে বাড়িওয়ালার লম্পট ছেলে মনির হোসেনকে (৩২) আটক করেছে। আটককৃত মনির হোসেন গোলদাশেরবাগ এলাকার মোসলেম আলী মৃধা মিয়ার ছেলে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ধর্ষিতা মাদ্রাসা ছাত্রী বন্দরে মদনপুর এলাকায় একটি মাদ্রাসায় ৭ম শ্রেণীতে লেখাপড়া করে। মা বিদেশে থাকে এবং তার বাবা মানসিক প্রতিবন্ধী। ঈদের ছুটিতে মাদ্রাসা বন্ধ থাকার সুবাদে ছাত্রীটি তার মামা বাড়ি গোকূলদাঁশেরবাগ এলাকায় আসে। ওই সুযোগে লম্পট মনির হোসেন বিভিন্ন সময়ে তাকে কুপ্রস্তব দিয়ে আসে। এতে সে রাজি না হওয়ায় গত ২১ আগষ্ট রাত ১০টায় মামা মামির সাথে মাদ্রাসা ছাত্রীটি রাতে খাবার খেয়ে মামার পাশের রুমে ঘুমাতে যায়। ওই সময় লম্পট মনির হোসেন ওই রাতে টিনের ভেড়া খুলে ভিতরে প্রবেশ করে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। ভিকটিম বিষয়টি গোপন রাখে। এক পর্যায়ে ছাত্রী মাদ্রাসা থাকা অবস্থায় হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে গত ২৮ আগষ্ট বুধবার বিকেল ৫টায় সে তার মামার বাড়িতে আসে। ওই লম্পট মনির হোসেন পুনরায় মাদ্রাসা ছাত্রীটিকে কুপ্রস্তাব দেয়। ওই সময় মাদ্রাসা ছাত্রীটি মামা মামিকে বিষয়টি খুলে বলে।


বিভাগ : শিক্ষাঙ্গন


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও