নারায়ণগঞ্জ প্রিপারেটরী স্কুলে শিক্ষার্থী দিয়ে সরানো হলো ইট (ভিডিও

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:৫৮ পিএম, ৩০ অক্টোবর ২০১৯ বুধবার

নারায়ণগঞ্জ প্রিপারেটরী স্কুলে শিক্ষার্থী দিয়ে সরানো হলো ইট (ভিডিও

নারায়ণগঞ্জ শহরের ঐতিহ্যবাহি বিদ্যাপীঠ নারায়ণগঞ্জ প্রিপারেটরী স্কুলে শিশু শিক্ষার্থীদের দিয়ে শ্রমিকের কাজ করানোর অভিযোগ উঠেছে স্কুল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে। বিপুল সংখ্যক ইট সরানোসহ ময়লা পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার কাজ করানো হয়েছে অর্ধশত শিশু শিক্ষার্থীকে দিয়ে। এ ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা।

জানান গেছে, স্কুলটির মাঠে দীর্ঘদিন যাবত এলামেলাভাবে ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে ছিল প্রায় দুই হাজারের মতো ইট। মাঠটি পরিস্কারের উদ্দেশ্যে ৩০ অক্টোবর বুধবার স্কুল চলাকালীন সময়ে ক্লাশ বন্ধ রেখে এই কাজে অর্ধশত শিশু শিক্ষার্থীকে ব্যবহার করেন সহকারি শিক্ষক গোলাম মোস্তফা শাহীন।

সকাল ১১টা হতে দুপুর ১টা পর্যন্ত টানা দুই ঘন্টাব্যাপী শিক্ষার্থীদের দিয়ে এই ভারী কাজটি করান তিনি। সহকারি শিক্ষক গোলাম মোস্তফা শাহীন নিজে উপস্থিত থেকে শিক্ষার্থীদের কাজের তদারকি করেন। এসময় পাশের বহুতল ভবনের উপর থেকে কোন একজন ব্যক্তি এই ভিডিও চিত্রটি তার মোবাইল ফোনে ধারণ করলে দুপুরে সেটি স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীদের ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে ভাইরাল হয়। পরে স্কুলে গিয়ে এর সত্যতা পাওয়া যায়।

এ ব্যাপারে স্কুলের শিক্ষার্থীরা জানায়, সহকারি শিক্ষক গোলাম মোস্তফা শাহীনের নির্দেশেই তারা ইট বহন ও পরিস্কার পরিচ্ছন্নতার কাজটি করেছে।

অভিভাবকেরা বলছেন, বার্ষিক পরীক্ষার আগ মুহূর্তে শিক্ষার্থীদের দিয়ে শারীরিক পরিশ্রমের এই কাজটি না করিয়ে পেশাদার শ্রমিক দিয়ে করানো উচিত ছিল।

কয়েকজন অভিভাবক বলেন, দুই এক দিনের মধ্যেই বার্ষিক পরীক্ষা শুরু হতে যাচ্ছে। পরীক্ষার আগ মুহূর্তে শারীরিক পরিশ্রমের এমন ভারী কাজ শিক্ষার্থীদের দিয়ে করানো ঠিক হয়নি। তারা অসুস্থ হয়ে যেতে পারে। এতে করে পরীক্ষায় বিরূপ ৎুভাব পড়তে পারে বলে কেউ কেউ মতামত দেন।

স্কুলের অভিযুক্ত সহকারি শিক্ষক গোলাম মোস্তফা শাহীন জানান, স্কুলে ফুটবল খেলার আয়াজন হবে। তাই মাঠ পরিস্কারের উদ্দেশ্যে স্কাউট শিক্ষার্থীরা তার নির্দেশে স্বপ্রণোদিত হয়েই কাজটি করেছে বলে তিনি দাবি করেন।

প্রধান শিক্ষক আবদুল বারী দাবি করেন, শিক্ষার্থীদের দিয়ে পরিস্কার পরিচ্ছন্নতার কাজ করানো যায়। এতে কোন অসুবিধা নেই।

নারায়ণগঞ্জ জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা মনোয়ারা সুরুজ বলেন, ওজনে ভারী কাজ শিশুদের উপর চাপিয়ে দেয়া কোনভাবেই উচিত নয়, তাতে কাজের প্রতি শিশুদের অনীহা সৃষ্টি হবে। এই বিষয়ে স্কুল কর্তৃপক্ষের গুরুত্ব দেয়া উচিত বলে তিনি মনে করেন।

নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসনের শিক্ষা ও আইসিটি বিভাগের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা) রেহেনা আকতার দু:খ প্রকাশ করে বলেন, এটি খুবই অন্যায় কাজ হয়েছে। বিষয়টি আমরা খতিয়ে দেখব। জেলা প্রশাসক মহোদয়কে বিষয়টি অবহিত করা হবে। তিনি যা নির্দেশ দেবেন সেই মোতাবেক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক জসিমউদ্দিন জানান, শিক্ষার্থীদের দিয়ে ইট বহন করানো স্কুল কর্তৃপক্ষ ঠিক করেনি। কাজটি অমানবিক হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে স্কুল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। অভিভাবকদের পক্ষ থেকে কেউ অভিযোগ দিলে সেটিও আমলে নিয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে।


বিভাগ : শিক্ষাঙ্গন


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও

আরো খবর