শিশুবাগ স্কুলে আবারো স্বেচ্ছাচারিতার মাধ্যমে কমিটি গঠনের পায়তারা

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:৪২ পিএম, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯ বুধবার

শিশুবাগ স্কুলে আবারো স্বেচ্ছাচারিতার মাধ্যমে কমিটি গঠনের পায়তারা

নারায়ণগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী শিক্ষাপীঠ বন্দর শিশুবাগ স্কুলে আবারো স্বেচ্ছাচারিতার মাধ্যমে কমিটি গঠনের পায়তারার অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্কুলটির অধ্যক্ষকে হুমকি ও গালমন্দের পরে আবারো রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে বিনা নির্বাচনে কমিটি গঠনের পায়তারা চলছে বলে অভিযোগ উঠেছে। স্কুলটির সাধারণ অভিভাবকরা যেখানে দীর্ঘদিন ধরে নির্বাচনের মাধ্যমে কমিটি গঠনের দাবি জানিয়ে আসছেন সেখানে নির্বাচন বর্হিভূতভাবে কমিটি গঠনের পায়তারার খবরে ক্ষুব্দ অভিভাবকমহল।

জানা গেছে, বন্দর শিশুবাগ স্কুলে প্রতিষ্ঠার পর থেকে নিয়মিত নির্বাচন হয়ে আসলেও ২০১০ সালে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনের পর আর নির্বাচন হয়নি। যে কারণে স্কুলটির ম্যানেজিং কমিটির মধ্যে বিরাজ করছিল স্বেচ্ছাচারিতাসহ নানা অনিয়ম দুর্নীতি। তৎকালে ম্যানেজিং কমিটি অভিভাবকদের স্বার্থকে অগ্রাহ্য করে নিজেদের স্বার্থ হাসিল ও আজীবন স্বপদে থাকার জন্য রেজুলেশন করে নীতিমালা ভঙ্গ করে বিদ্যালয় পরিচালনা করে আসছিল যা সম্পূর্ণ বেআইনী ও অবৈধ।

অভিভাবকদের ইচ্ছা ও আগ্রহ থাকা স্বত্বেও তারা নির্বাচন না দিয়ে অবৈধ ভাবে পরিচালনা করে আসছিল। পূর্বতন পরিচালনা কমিটির সভাপতি কুতুব উদ্দিন খান ঢাকায় থাকেন। যে কারণে তিনি নিয়মিত আসতেন না। পূর্বতন পরিচালনা কমিটির সদস্য কাজী জহির, সাইফুল ইসলাম শ্যামল, আতিকুর রহমান মাছুম এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি কুক্ষিগত করে রেখেছিল। গত কয়েক বছর ধরেই নির্বাচনের দাবি জানিয়ে আসছিল অভিভাবকরা। অভিভাবকরা চান স্কুলটিতে নির্বাচনের মাধ্যমে যোগ্য সৎ ও দক্ষ নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠা হোক।

গত ১১ সেপ্টেম্বর বন্দর শিশুবাগ স্কুলের নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি কুতুব উদ্দিন খান। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল আগামী ১৫ নভেম্বর। তবে ৬ অক্টোবর নির্বাচনী তফসিলের বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জ জেলা জজ আদালতে মামলা দায়ের করে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে আবেদন করেন স্কুলের অভিভাবক সামিউল ইসলাম। তিনি অভিযোগ করেন, ভোটার তালিকা হালনাগাদ ছাড়াই নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে। মামলায় বিবাদী করা হয়েছে বিদ্যালয়ের সভাপতিসহ এডহক কমিটির ৬ জনকে। পরে আদালতের আদেশে নির্বাচন বন্ধ হয়ে যায়।

এদিকে গত ১৫ অক্টোবর স্কুলটির ২০১৬-১৯ কমিটির মেয়াদকাল শেষ হয়েছে। স্কুলটির অধ্যক্ষ রোখসানারা বেগম গত ২২ অক্টোবর বন্দর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে এডহক কমিটি গঠন প্রসঙ্গে একটি চিঠি দেন। এতে তিনি উল্লেখ করেন, স্কুলটির বার্ষিক পরীক্ষা, শিক্ষকদের বেতন, নতুন ভর্তিসহ নানাবিধ ব্যয় নির্বাহের লক্ষ্যে ব্যাংক লেনদেন পরিচালনার জন্য এবং বিদ্যালয়ের আইনশৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য জরুরী ভিত্তিতে এডহক কমিটি গঠনের প্রয়োজনীয়তা অনুভব করছি। বিশেষভাবে উল্লেখ্য যে, বিদ্যালয়ের গঠনতন্ত্র ৮ এর ধারা অনুযায়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিজস্ব ক্ষমতাবলে ৩ সদস্যবিশিষ্ট এডহক কমিটি গঠনের ক্ষমতা রাখেন। ওই চিঠির সূত্র ধরে কয়েকদিন পরে বন্দর সিরাজদ্দৌলা ক্লাব মাঠে পূর্বতন পরিচালনা কমিটির সদস্য কাজী জহির অধ্যক্ষকে প্রকাশ্যেই দেখে নেয়ার হুমকী ও গালমন্দ করেন। যা নিয়ে অভিভাবকদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করতে থাকে।

মামলার কারণে নির্বাচন প্রক্রিয়া স্থগিত হয়ে গেলেও আবারো নির্বাচন না দিয়ে সেচ্ছাচারিতার মাধ্যমে কমিটি গঠনের পায়তারার অভিযোগ উঠেছে দুর্নাতিবাজদের বিরুদ্ধে। যে কারণে এবার তারা একাধিক রাজনৈতিক নেতার দ্বারস্থ হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই নেতার মাধ্যমে আবারো নির্বাচন বর্হিভূতভাবে কমিটি গঠন করার জন্য তারা কয়েক দফা বৈঠকও করেছেন বলে জানা গেছে।

বন্দর শিশুবাগ স্কুলের পরিচালনা কমিটির সভাপতি কুতুব উদ্দিন খান বলেন, মামলার কারণে নির্বাচনটি সম্পন্ন করা যায়নি। বর্তমানে বন্দর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এম এ রশিদ বিষয়টি সমাধান করার দায়িত্ব নিয়েছেন বলে তিনি শুনেছেন। তবে কমিটি গঠন করা হয়েছে কিনা সে বিষয়ে তিনি কিছু জানেন না। এ বিষয়ে বন্দর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এম এ রশিদ বলতে পারবেন বলে তিনি জানান।

বন্দর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এম এ রশিদের মুঠোফোনে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি কল রিসিভ করেননি।


বিভাগ : শিক্ষাঙ্গন


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও