করোনা আতংকে স্কুল কলেজ বন্ধ হলেও চলছে কোচিং সেন্টার

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১০:৫৫ পিএম, ১৮ মার্চ ২০২০ বুধবার

করোনা আতংকে স্কুল কলেজ বন্ধ হলেও চলছে কোচিং সেন্টার

করোনাভাইরাস আতংকে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হলেও তা মানছে না নারায়ণগঞ্জের অধিকাংশ কোচিং সেন্টারগুলো। সরকারি সিদ্ধান্তকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে করোনা আতংকের মধ্যেই কোচিং সেন্টারগুলো তাঁদের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। ফলে কোচিং সেন্টারগুলো করোনা ছড়ানোর অন্যতম মাধ্যম হয়ে উঠতে পারে বলে মনে করছেন অনেকে।

১৮ মার্চ বুধবার সকাল থেকে কোচিং বাণিজ্য এলাকা খ্যাত কলেজ রোড এলাকা, পাইকপাড়া, আমালাপাড়া, জামতলা সহ শহরের বিভিন্ন অলিতে গলিতে অধিকাংশ কোচিং সেন্টার খোলা রাখা হয়েছে। হাতে গোনা কয়েকটি বন্ধ ঘোষণা করলেও তা অল্প কয়েকডিদনের জন্য বলে জানিয়েছে শিক্ষার্থীরা। এছাড়া অনেক কোচিং সেন্টার গোপনে তাঁদের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে বলেও জানা গেছে। গণজমায়েত নিষিদ্ধ করা হলেও এসব কোচিং স্টেন্টারে জমায়েত হয়ে কোচিং করছে স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা। কোচিং সেন্টারগুলোর শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মধ্যে আতংক এখনো বিরাজমান রয়েছে।

এর আগে গত ১৬ মার্চ দুপুরে সচিবালয়ে জরুরি সংবাদ সম্মেলনে ১৮ মার্চ ধেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ রাখার ঘোষণা দেওয়া হয়েছিল। এসময় দেশের সকল কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার ঘোষণাও দিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। সচিবালয়ে জরুরি সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছিলেন, করোনার সংক্রমণ যাতে না ছড়ায়, তাই এ সিদ্ধান্ত। এখনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের মতো পরিস্থিতি হয়নি, তারপরও সতর্কতামূলক ব্যবস্থার অংশ হিসেবে এ সিদ্ধান্ত। মন্ত্রিসভার বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়েছে।

তবে করোনাভাইরাস ঠেকাতে বাড়তি সতর্কতার জন্য দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হলেও তা মানছেন না নারায়ণগঞ্জের কোচিং সেন্টারগুলো।

এ প্রসঙ্গে কথা হলে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা নিউজ নারায়ণগঞ্জকে জানান, কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার ঘোষণা এখনো দেওয়া হয়নি। কিন্তু কোচিংয়ে না আসলে ক্লাসে পিছিয়ে যাবে। যে কারণে আতংক নিয়েই বাধ্য হয়ে আসতে হচ্ছে। কোটিং সেন্টারগুলো কবে বন্ধ দিবে সেই সিদ্ধান্তও এখনো জানানো হয়নি। কবে নাগাদ বন্ধ দিবে সেটাও জানি না।

এ প্রসঙ্গে কথা বলার জন্য নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) রেহেনা আকতার ও জেলা শিক্ষা অফিসার মো. শরিফুল ইসলামের সাথে একাধিকবার মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তাঁরা ফোন ধরেননি।

এদিকে আইইডিসিআর দেওয়া তথ্যমতে, বাংলাদেশে প্রথমবারের মত কোরানায় আক্রান্ত একজনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া দেশে এখন পর্যন্ত ১৪ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। গতকাল মঙ্গলবার পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ১০। কিন্তু গত ২৪ ঘণ্টায় এই সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৪। নতুন আক্রান্ত চারজনের মধ্যে একজন নারী ও তিনজন পুরুষ। একজন আগে আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে ছিলেন। আর বাকি তিনজন বিদেশ থেকে এসেছেন। তাঁদের মধ্যে দুজন ইতালি থেকে এবং একজন কুয়েত থেকে এসেছেন।

চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহর থেকে উৎপত্তি হয়ে সর্বশেষ তথ্য মতে বিশ্বের প্রায় ১৫৫টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে প্রাণঘাতি করোনাভাইরাস। বিশ্বজুড়ে করোনায় আক্রান্ত হয়ে নিহতের সংখ্যা প্রায় ৭হাজার। আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ২লাখ। এদের মধ্যে প্রায় ৮০হাজার সুস্থ্য হয়ে উঠেছে।


বিভাগ : শিক্ষাঙ্গন


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও