নারায়ণগঞ্জের করোনা যোদ্ধাকে নিয়ে গর্বিত তার বিশ্ববিদ্যালয়

স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:৩৬ পিএম, ২০ মে ২০২০ বুধবার

নারায়ণগঞ্জের করোনা যোদ্ধাকে নিয়ে গর্বিত তার বিশ্ববিদ্যালয়

প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাস একের পর এক তার ধ্বংসলীলা চালিয়েই যাচ্ছে। তার এই ধ্বংসলীলায় মানবিকতায় হারিয়ে ফেলছে মানুষজন। তবে এই ধ্বংসলীলার মধ্যে অবস্থান করেও কিছু মানুষ নিজের জীবন বাজি রেখে মানবসেবাই নিজেদেরকে নিয়োজিত রেখেছেন। আর তাদেরই মধ্যে একজন করোনা যোদ্ধা হলেন বিশ^বিদ্যালয়ের ছাত্র মোঃ সাইফুল্লাহ।

তিনি নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদের মানবসেবায় অনুপ্রাণিত হয়ে নিজের যা আছে তা নিয়েই যোগ দিয়েছিলেন মানব সেবায়। মোঃ সাইফুল্লাহর এই মানবিকতায় এবার তার বিশ^বিদ্যালয়ও গর্ববোধ করছে। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাদের ওয়েবসাইটে ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাকে অভিবাদন জানিয়েছে।

জানা যায়, দিনের পর দিন এই করোনা ভাইরাসের আক্রমনের তীব্রতা বেড়েই চলছে। সারাদেশের মধ্যে নারায়ণগঞ্জেই করোনা করোনা ভাইরাসের আক্রমণের তীব্রতা বেশি। আর এই ভাইরাসের ভয়াবহ দিক হলো মারা যাওয়ার পর মৃত ব্যক্তির ধারে কাছে কেউ আসতে চান না।

কিন্তু এই পরিস্থিতির মধ্যেও নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ১৩ নং কাউন্সিলর ও মহাগর যুবদলের সভাপতি মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির লাশ কাফন দাফন ও জানাযার নামাজের ঘোষণা দিয়েছিলেন। সেই সাথে এবার অন্যান্য ধর্মালম্বীদের মৃত দেহ সৎকারের কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন খোরশেদ। তবে তিনি লাশ দাফন ও সৎকার কাজে গাড়ী সংকটে ভুগছিলেন। আর সেই সংকট দূর করে কাজে যোগ দেন মোঃ সাইফুল্লাহ।

মোঃ সাইফুল্লাহ ইউনিভার্সিটি অফ সাউথ এশিয়ায় বিএসসি টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের একজন ছাত্র। তার বাবা কবি নজরুল কলেজের সাবেক ক্লার্ক। মোঃ শফিউল্লাহ পড়াশোনার টাকা যোগার করতে জমানো কিছু টাকা দিয়ে পুরাতন একটা পিকআপ ভ্যান কিনেন। অবসরে নিজের কেনা ছোট পিকআপ গাড়ীটি নিজেই চালায়। শুরুতে ড্রাইভার থাকলেও লস হওয়ায় এখন নিজেই চালক। তার জন্মস্থান ঢাকার রায়েরবাগে হলেও বাবার পেনশনের টাকায় বাড়ী করেছেন জালকুড়িতে।

মোঃ সাইফুল্লাহ নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদের মরদেহ সৎকারে উৎসাহিত হয়ে কাছ করার ইচ্ছা নিয়ে তার সাথে যোগাযোগ করেন। আর খোরশেদও গাড়ির অভাবে ভুগছিলেন। ফলে খোরশেদ রাজি হয়ে যান। বিনিময়ে মোঃ শফিউল্লাহ কোনো ভাড়া নিবেন না।

এ বিষয়ে কাউন্সিলর মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ জানিয়েছিলেন, মোঃ সাইফুল্লাহ নিজ থেকেই আমাদের সাথে যোগাযোগ করেছিল। সে তার গাড়ি নিয়ে এবং নিজে আমাদের সাথে সম্পৃক্ত হতে চান। আর এই বিষয়টি আমাদের জন্য মেঘ না চাইতে বৃষ্টি পাওয়ার মত। তেলের খরচ শুধু আমাদের দিতে হবে। সে গাড়ী ভাড়া নিবে না।

এবার সেই মোঃ সাইফুল্লাহ নিয়ে তার বিশ^বিদ্যালয় ইউনিভার্সিটি অফ সাউথ এশিয়া গর্ববোধ করে অভিবাদন জানিয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাদের ওয়েবসাইট ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গর্ববোধ করে অভিবাদন জানিয়েছে। আমরা মনে করি এটিও আমাদের একটি বিশাল প্রাপ্তি।


বিভাগ : শিক্ষাঙ্গন


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও