পুলিশের ভয়ংকর ‘সোর্স’

১ ভাদ্র ১৪২৫, শুক্রবার ১৭ আগস্ট ২০১৮ , ৩:৪৯ পূর্বাহ্ণ

পুলিশের ভয়ংকর ‘সোর্স’


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৯:৩৭ পিএম, ২৩ মার্চ ২০১৮ শুক্রবার | আপডেট: ০৩:৩৭ পিএম, ২৩ মার্চ ২০১৮ শুক্রবার


পুলিশের ভয়ংকর ‘সোর্স’

‘আগে মুরুব্বি হিসেবে আমাদের কাছ থেকেই পুলিশ খোঁজ খবর নিতেন। এখন আর পুলিশ আমাদের ফোন দেয় না। পুলিশকে দেখি এলাকার মাদক বিক্রেতা সেবনকারীদের সঙ্গেই সখ্যতা। তাদের সঙ্গেই ভালো সম্পর্ক। শুনেছি তারাই এখন পুলিশের সোর্স।’

নারায়ণগঞ্জ শহরের একটি পঞ্চায়েত কমিটির প্রধান এভাবেই কথাগুলো বলছিলেন এ প্রতিবেদকের কাছে যাঁর বয়স প্রায় ৭০। তিনি নিজের পরিচয় প্রকাশ না করার শর্তে জানান, আগে এলাকার পঞ্চায়েত প্রধান ও মুরুব্বীদের কাছে প্রায়শই আসতেন থানার ওসি সহ কর্মকর্তারা। বিভিন্নজনের তথ্য তখন আমাদের কাছ থেকেই নিতে এখন আর আসে না।

সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জে পুলিশের সোর্স হিসেবে কাজ করছে এমন ব্যক্তি যাদের বিরুদ্ধে রয়েছে নানা বিতর্কিত কর্মকান্ডের অভিযোগ। ইতোমধ্যে মাদক ব্যবসায়িদের হাতে খুন হয়েছেন একজন কলেজ ছাত্র যিনি পুলিশের সোর্স হিসেবে কাজ করতো। এছাড়া একজন সোর্সের চোখ উপড়ানো হয়েছে। খোদ পুলিশ সংবাদ সম্মেলন করেছেন একজন সোর্সের বিরুদ্ধে। অভিযোগ আছে, বিভিন্ন মাদক স্পট পরিচালনাকারীদের সঙ্গে সোর্সের থাকে সু সম্পর্ক। এ নিয়ে কোন বিরোধ কিংবা লেনদেনে ঘাটতি হলেই আক্রান্ত হন ওইসব সোর্সেরা। তাছাড়া পুলিশের সোর্স ও ‘ইনফর্মার’ হিসেবে এখন যাদের নাম শোনা যায় তাদের বেশীরভাগই হয় এলাকার চিহ্নিত মাদক বিক্রেতা, মাদক সেবনকারী কিংবা বিভিন্ন ধরনের অপরাধে সম্পৃক্ত। পুলিশ ও অপরাধীদের মাঝে মধ্যস্থকারী হিসেবেই তারা কামিয়ে নেন অর্থকড়ি যা দিয়ে চলে জীবিকা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন সোর্সের সঙ্গে কথা হয় এ প্রতিবেদকের। তার বাড়ি নারায়ণগঞ্জ শহরের খানপুরে। বাংলাদেশের খবরকে তিনি বলেন, ‘৬ বছর ধরে ডিবির সোর্স হিসেবে কাজ করছি। একেক সময়ে একে অফিসার রদবদল হলে তাদের হয়ে কাজ করি। আমাদের দিয়ে ডিবি মাদক স্পটে পাঠায়। কখনো ক্রেতা হিসেবে পাঠিয়ে মাদক ব্যবসায়িদের অবস্থান নিশ্চিত করে। আমরা ফোন দিলে চলে আসে ডিবির টিম। তখন স্পট থেকে যা উদ্ধার হয় তার একটি অংশ কিংবা নগদ টাকা দেয়। এটা দিয়েই সংসার চলে।’

কলেজ ছাত্র খুন
গত ১৩ মার্চ নারায়ণগঞ্জ মহানগরের সিদ্ধিরগঞ্জে কলেজ ছাত্র ইফতিখার মুসফিক জয় (১৮) হত্যাকান্ডের কিলিং মিশনে ৪জন ছিলেন আদালতে দেওয়া স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দীতে স্বীকার করেছেন ওই চক্রের একজন। তিনি জানিয়েছেন, সম্প্রতি একজন মাদক ব্যবসায়িকে পুলিশের কাছে ধরিয়ে দেয় জয়। সেই ক্ষোভের জের ধরেই জয়কে বাড়ি থেকে কৌশলে ডেকে এনে পিটিয়ে ও জখম করে হত্যা করা হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সিদ্ধিরগঞ্জ থানার এসআই রফিকুল ইসলাম জানান, জয় তার সোর্স হিসেবে কাজ করতো। এছাড়া প্রায়শই সে বিভিন্ন পুলিশকে তথ্য দিত।

নিহত জয়ের বাবা আকরাম হোসেন জানান, তার ছেলে জয় মাদকাসক্ত ছিলেন। এলাকার খারাপ ছেলেদের সঙ্গে চলতো। বার বার শাসনের পরেও কথা শুনতো না।

সোর্সে ফেঁসে যাওয়া পুলিশের অসহায়ত্ব
একজন সোর্সের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ। ওই সোর্স স্ত্রীকে দিয়ে পুলিশ অফিসারদের বিরুদ্ধে অসামাজিক কার্যকলাপের অভিযোগ এনে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নিতো। এভাবে কয়েক বছর যাবত পুলিশ অফিসারদের ব্ল্যাক মেইলিং করে আসছে। ২৮ ফেব্রুয়ারী বুধবার রাতে ফতুল্লা মডেল থানায় ওসি কামালউদ্দিন নিজ অফিস কক্ষে সাংবাদিকদের একথা জানান। জাকির হোসেন নামে ওই সোর্স ফতুল্লার মাসদাইর এলাকার হানিফ মিয়ার ছেলে।

ওসি কামাল উদ্দিন জানান, জাকির হোসেন ডিবি পুলিশ ও থানা পুলিশের সোর্সের কাজ করতো। দীর্ঘদিন ধরে সোর্সের কাজ করে সাধারণ মানুষকে নানা ভাবে হয়রানী করতো জাকির হোসেন। পুলিশ অফিসারদের ভুল বুঝিয়ে সাধারণ মানুষকে মাদক দিয়ে ফাঁসিয়ে দিতো জাকির। প্রথমে জাকির কিছু পুলিশ সদস্যদের নানা প্রলোভন দেখিয়ে তার ঘনিষ্ঠ করে নিতেন। পরে একজন অফিসারকে টার্গেট করে থানায় তার বিরুদ্ধে জিডি করতেন। এরপর জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে অভিযোগ করে তার ফটো কপি দেখিয়ে ওই পুলিশ অফিসারকে ভয়ভীতি দেখাতো এবং পত্রিকায় তার বিরুদ্ধে সংবাদ প্রচার করাবে। এভাবে বিভিন্ন সময় পর্যায়ক্রমে ফতুল্লা মডেল থানার ৩ জন ও জেলা ডিবির একজন সহ চারজন পুলিশ অফিসারকে ব্ল্যাক মেইলিং করে হাতিয়ে নেয় মোটা অঙ্কের টাকা।

পুলিশ সোর্সের চোখ উপড়ায় সন্ত্রাসীরা
গত ৩ ফেব্রুয়ারি ফতুল্লায় মাদক ব্যবসায়ীদের ধরিয়ে দেয়ায় মাসুদ পারভেজ (৩০) নামে পুলিশের এক সোর্সের চোখ তুলে নেয় স্থানীয় মাদক ব্যবসায়ীরা। এ সময় মাদক ব্যবসায়ীরা হুমকি দিয়ে পারভেজকে রাস্তায় ফেলে চলে যায়। পরে স্থানীয়  লোকজন তাকে উদ্ধার করে প্রথমে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও পরে চক্ষু হাসপাতালে ভর্তি করে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, কুতুবপুরের শরীফবাগ, রসুলপুরসহ তার আশপাশের এলাকা মাদকের অভয়ারণ্যে পরিণত হয়েছে। ওই অঞ্চলে ডিবি ও থানা পুলিশের একাধিক সোর্স কাজ করে। মাসুদ পারভেজও একই কাজ করে আসছিল। এছাড়া রহমান বাহিনীর সদস্যদের পুলিশ নানাভাবে হয়রানি করে। এতে কুতুবপুর, কদমতলীর মাদক ব্যবসায়ীরা মাসুদ পারভেজের প্রতি ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে।

ফতুল্লা মডেল থানার এসআই নাহিদ আহম্মেদ সুমন জানান, পূর্ব শত্রুতার জের ধরেই কদমতলী ও কুতুবপুর এলাকার মাদক বিক্রেতারা পারভেজের উপর হামলা করে।

পুলিশের সোর্স মাদক ব্যবসায়ীদের মধ্যে সংঘর্ষ
গত বছরের ১৮ ফেব্রুয়ারি মাদক ব্যবসার বিস্তার ও পুলিশের মাসোহারা আদায় নিয়ে পুলিশ সোর্স ও মাদক ব্যবসায়ীদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষে আহত হয় ১০ জন। তাদের মধ্যে পুলিশের একজন সোর্সও ছিল। ওই সময়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি শরাফত উল্লাহ জানিয়েছিলেন, মাদক ব্যবসা নিয়ে মারধরের ঘটনা ঘটেছে।

পুলিশ সোর্সের স্ত্রীর সঙ্গে পরকীয়ার বলি দেলোয়ার
নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লার বক্তাবলীতে ডিবি পুলিশের সোর্সের স্ত্রীর সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়ায় বাড়ি থেকে  ডেকে নিয়ে ইটভাটা শ্রমিক দেলোয়ার হোসেনকে খুন করা হয়। গত ৭ জানুয়ারী ওই ঘটনায় আলমগীর নামের ওই সোর্সকে গ্রেফতার করা হলে সে জিজ্ঞাসাবাদে এ তথ্য জানান।

আসামীর দুই স্ত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় পুলিশের দুই সোর্সের বিরুদ্ধে মামলা
২০১৬ সালের সেপ্টেম্বরে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের রিমান্ডে থাকা এক আসামির দুই স্ত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। ১৬ সেপ্টেম্বর ওই আসামীর ছোট স্ত্রী বাদী হয়ে পুলিশের সোর্স নজরুল ও শুভকে আসামী করে মামলা দায়ের করে। সেদিন দায়িত্ব অবহেলার অভিযোগে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার এসআই আতাউর রহমানকে পুলিশ লাইনে ক্লোজ করা হয়।

জানা গেছে, ডাকাতির অভিযোগে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় দায়ের করা মামলায় গত ২৯ আগস্ট মিজমিজি দক্ষিণপাড়া এলাকা থেকে ইকবাল নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়। রিমান্ডে নিয়ে নির্যাতনের ভয় দেখিয়ে ওই আসামির দুই স্ত্রীকে ধর্ষণ করেন পুলিশের দুই সোর্স শুভ ও নজরুল। ভুক্তভোগীদের অভিযোগ, এ ঘটনায় সিদ্ধিরগঞ্জ থানার এসআই আতাউর রহমানও জড়িত।

পুলিশ সোর্স আনিছ হত্যা
গত বছরের ১৬ মে বন্দরে পুলিশ সোর্স আনিছ (৩২) খুন হন। ওই ঘটনায় ৭ বিরুদ্ধে মামলাও হয়। মাদক ও ড্রেজার ব্যবসা নিয়ে তাকে হত্যা করা হয়।

রূপগঞ্জে প্রিয়াঙ্কা হত্যা মামলায় পুলিশ সোর্স
গত বছরের ১০ নভেম্বর নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে প্রিয়াঙ্কা (১৪) নামে এক জেএসসি পরীক্ষার্থীকে হত্যার ঘটনায় পুলিশের সোর্স হাসানকে গ্রেফতার করেছিল জেলা ডিবি। ৫ নভেম্বর তারাব পৌরসভার বরাব কবরস্থান রোড এলাকা থেকে ওই শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

ফতুল্লায় পুলিশ সোর্সের জিহবা কর্তন
গত বছরের ১৪ সেপ্টেম্বর ফতুল্লা মডেল থানা ও জেলা ডিবি পুলিশের সোর্স পারভীন ওরফে নাইট পারভীনকে (৩৫) পিটিয়ে ডান পা ভেঙে চাকু দিয়ে জিহ্বা কেটে ফেলেছে একদল মাদক বিক্রেতা। ওই ঘটনায় দায়ের করা মামলায় আসামী করা হয় চিহ্নিত মাদক বিক্রেতা ডাকাত লিপু ওরফে বোমা লিপু, ডাকাত  শাহীন, শেফালী প্রমুখ।

রূপগঞ্জে বিপুল অস্ত্র উদ্ধারে গ্রেফতার শরীফ ছিলেন র‌্যাবের সোর্স
নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে গত বছর অস্ত্র উদ্ধারের পর গ্রেফতারকৃত শরীফ মিয়া ছিলেন র‌্যাবের সোর্স। রূপগঞ্জের পূর্বাচল আবাসিক এলাকার ৫ নম্বর সেক্টরের খাল থেকে বিপুল পরিমাণ সাবমেশিন গান, রকেট লঞ্চার, হ্যান্ড গেনেডসহ বিপুল সংখ্যক অস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

ফিচার -এর সর্বশেষ