৭ কার্তিক ১৪২৫, মঙ্গলবার ২৩ অক্টোবর ২০১৮ , ১:৪১ পূর্বাহ্ণ

UMo

পরকীয়ায় লাশের মিছিল দীর্ঘ হচ্ছে


সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:৫৫ পিএম, ৮ এপ্রিল ২০১৮ রবিবার


পরকীয়ায় লাশের মিছিল দীর্ঘ হচ্ছে

নারায়ণগঞ্জে পরকীয়া প্রেমের ঘটনা ক্রমশ বেড়ে চলেছে। পরকীয়া প্রেমের জেরে একদিকে সংসারগুলোতে ভাঙনের সৃষ্টি হচ্ছে, অন্যদিকে লাশের মিছিল দীর্ঘ হচ্ছে। তবে স্বজনেরা তাদের প্রিয়জন হারিয়ে অনেকটা নিঃস্ব হয়ে পড়ছে।

নারায়ণগঞ্জ জেলার পরকীয় প্রেমের সবচেয়ে আলোচিত ঘটনার মধ্যে এই হত্যাকান্ডটি নির্মমতার সীমানা পেরিয়ে গেছে। কারণ দেড় বছরের শিশু নাহিদের মা কে এই পরকীয়া প্রেমের বলি হতে হয়েছে। গত ২৭ মার্চ সদর উপজেলার ফতুল্লায় পরকীয়া প্রেমের জের ধরে দেড় বছরের শিশু নাহিদের সামনে স্ত্রী রীমা আক্তারকে শ্বাসরোধ করে ও পিটিয়ে হত্যা করে স্বামী আল আমিন। হত্যার পরেই আল আমিন দ্রুত বাড়ি ছেড়ে চলে যায়।

৩ এপ্রিল বিকেলে নারায়ণগঞ্জ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মেহেদী হাসানের আদালতে আল আমিনের জবানবন্দী রেকর্ড করা হয়। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ফতুল্লা মডেল থানার এস আই অটল দাস জানান, আদালতে দেওয়া স্বীকারোক্তিতে আল আমিন স্বীকার করেছে যে সে তার স্ত্রী রীমাকে হত্যা করেছে। হত্যার পর সে পালিয়ে যায়। তখন শিশু নাহিদ পাশেই বসা ছিল। পরে রাতেই বিষয়টি আল আমিনের মা জোবেদা বেগমকে জানায়। এর পর থেকেই সে পালিয়ে যায়।

আদালতকে আলামিন জানান, তার স্ত্রী রিমা তার স্বামী সংসার তুচ্ছ মনে করে পরকীয়া প্রেমে জড়িয়ে পড়ে। প্রায় সময় মোবাইল ফোনে ব্যস্ত দেখা যায়। রিমাকে একাধীকবার সতর্ক করার পরও কোন কর্ণপাত করেনি। স্ত্রী রিমা আক্তার অন্য এক ছেলের সাথে পরকীয়া করায় তা সহ্য করতে না পেরে নির্যাতনের পর শ্বাসরোধে হত্যা করে পালিয়ে যায়। আর রিমাকে হত্যার পর তার মা জোবেদা বেগমকে জানিয়ে যায়। পরে তার সন্তান কোথায় ছিল তা বলতে পারবে না বলে আলামিন জানিয়েছেন বলে মামলার তদন্তকারী অফিসার এসআই অটল দাস জানিয়েছেন।

এই নারকীয় ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতে গত ৭ এপ্রিল আদালতে দেওয়া কিলিং মিশনে থাকা দুই আসামীর স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দীতে উঠে আসে পরকীয়ার আরেক তথ্য। ওই দুইজন হলেন হৃদয় হোসেন বাবু (২৪) ও সাদ্দাম হোসেন (২৬)।

গত ৫ জানুয়ারী নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লার বক্তাবলী লক্ষ্মীনগর গ্রামে ইটভাটা পরকীয়া প্রেমের জেরে শ্রমিক দেলোয়ার হোসেন খুন হয়। দেলোয়ারের সঙ্গে সেখানকার পুলিশের সোর্স হিসেবে পরিচিত আলমগীর হোসেনের স্ত্রীর ওই পরকীয়া প্রেমের জের ধরেই হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। আলমগীর সহ তিনজন মিলে পরিকল্পিতভাবে দেলোয়ারকে হত্যা করে।

দুইজন আদালতকে জানান, দেলোয়ার পুলিশের সোর্স হিসেবে পরিচিত আলমগীর হোসেনের স্ত্রীর সঙ্গে পরকীয়া প্রেম করত। এনিয়ে বিরোধে আলমগীর হোসেন ৫ জানুয়ারী ভোরে কাজের কথা বলে দেলোয়ারকে বাসা থেকে ডেকে আনে। এরপর লক্ষ্মীনগর আশিক ব্রিকফিল্ডে নিয়ে শ্রমিকদের ঘরে ইয়াবা সেবন করে কুপিয়ে হত্যা করে। নিহত দেলোয়ার হোসেন ফতুল্লার বক্তাবলীর গোপালনগর এলাকার মৃত মো.আলম চাঁনের ছেলে।

এদিকে গত ৭ মার্চ পরকীয়া প্রেমের জেরে বন্দরে এক প্রবাসীর স্ত্রীকে হত্যা করে পালিয়ে বেড়ানো লম্পট গৃহশিক্ষক সোহেল ভূইয়াকে পুলিশ গ্রেফতার করে। গত ১১ নভেম্বর এই লম্পট শিক্ষক ক্ষিপ্ত হয়ে প্রবাসী স্ত্রী নিপা বেগমের গায়ে কেরসিন তেল ঢেলে অগ্নিসংযোগ করে হত্যা করে পালিয়ে যায়।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, বন্দর থানার ৫৫৮ নং উইলসন রোডস্থ ভূইয়া বাড়ী এলাকার রহমত উল্ল্যাহ মিয়ার ছেলে সোহেল ভূইয়া একই থানার আলীনগর এলাকায় প্রবাসী স্ত্রী নিপা বেগমের বাড়ীতে তার দুই ছেলেকে প্রাইভেট পড়ায়। এই সূত্র ধরে প্রবাসী স্ত্রী নিপা বেগমের সাথে প্রাইভেট শিক্ষক সোহেল ভূইয়ার পরকিয়া প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। প্রবাসী স্বামীর অনুউপস্থিতে র্দীঘ দিন ধরে চলে তাদের মন দেওয়া নেওয়া। এক পর্যায়ে প্রেম ঘটিত বিষয়ে জের ধরে গত ২০১৭ ইং সালের ১১ নভেম্বর সকাল ৯টায় লম্পট প্রাইভেট শিক্ষক সোহেল ভূইয়া ক্ষিপ্ত হয়ে ২ সন্তানের জননী নিপা বেগমকে গায়ে কেরসিন তেল ঢেলে অগ্নিসংযোগ করে হত্যার পর লাশ ঢামেক হাসপাতালে রেখে পালিয়ে যায়। এ ব্যাপারে নিহত গৃহবধূ নিপা বেগমের খালাত ভাই গোলাম নবী রনী বাদী হয়ে বন্দর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

প্রবাসী স্ত্রী নিপা বেগম হত্যা মামলার এজাহারভূক্ত পলাতক আসামী প্রাইভেট শিক্ষক সোহেল ভূইয়াতেক (৩০) ৭ মার্চ রাতে সদর মডেল থানার সামনে থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ‘এসব পরকীয় প্রেমের ঘটনায় সাজানো সংসার ভেঙে যাচ্ছে। আর আত্মীয় স্বজনরা তাদের প্রিয়জনকে হারাচ্ছে। আবার অনেক পরিবারে সন্তানরা অসময়ে এতিম হচ্ছেন।

rabbhaban

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

ফিচার -এর সর্বশেষ