৭ শ্রাবণ ১৪২৫, রবিবার ২২ জুলাই ২০১৮ , ৮:০৮ অপরাহ্ণ

আনন্দ পরিবহনে নারী যাত্রীরা হয়রানীর শিকার


সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৯:৪২ পিএম, ১০ এপ্রিল ২০১৮ মঙ্গলবার | আপডেট: ০৩:৪২ পিএম, ১০ এপ্রিল ২০১৮ মঙ্গলবার


আনন্দ পরিবহনে নারী যাত্রীরা হয়রানীর শিকার

ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ (পাগলা) পুরাতন সড়কের আনন্দ পরিবহনে নারী যাত্রীরা প্রতিনিয়ত হয়রানীর শিকার হচ্ছেন। গণপরিবহনে নারীদের জন্য সরকার আসন নির্দিষ্ট করে দিলেও তা মানছেন না আনন্দ পরিবহন কর্তৃপক্ষ। ওই রুটে চলাচলরত শতাধিক আনন্দ পরিবহনের কোন বাসেই নেই নারী যাত্রীদের জন্য নির্দিষ্ট আসন। বরং নারী যাত্রীদের ভীড়ের মধ্যেই দাড়িয়ে চলাচল করতে হচ্ছে। এতে করে প্রায়ই নারী যাত্রীরা শ্লীলতাহানির শিকার হলেও মুখ বুজেই সহ্য করছেন।

জানা গেছে, নারী ও শিশুদের ভোগান্তি কমাতে মিনিবাসে ছয়টি ও বড় বাসে ৯টি ‘নারী, শিশু ও প্রতিবন্ধীদের জন্য সংরক্ষণের’ শর্ত দেয় সরকার। ওই শর্ত অনুযায়ী রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানেই অভ্যন্তরীন রুটে চলাচলরত গণপরিবহনগুলোতে নারীদের জন্য পৃথক সিট রাখার নিয়ম রয়েছে। বাসের নির্দিষ্ট সিটের ওপরে ‘নারী, শিশু ও প্রতিবন্ধীদের জন্য সংরক্ষিত লেখা’ থাকলেও ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ (পাগলা) পুরাতন সড়কে চলাচলরত একমাত্র গণপরিবহন আনন্দ পরিবহনের বাসগুলোর কোনটিতেই নেই এ ধরনের লেখা। বরং এই রুটে চলাচলরত আনন্দ পরিবহনের বাসগুলোতে নারী যাত্রীদের প্রতিনিয়ত হয়রানীর শিকার হতে হচ্ছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ (পাগলা) পুরাতন সড়কে চলাচলরত একমাত্র গণপরিবহন আনন্দ পরিবহনের বাসগুলোতে নারীদের জন্য সংরক্ষিত কোন আসন না থাকায় সবগুলো সিটেই বসে থাকেন পুরুষরা। বাসটিতে নারীরা ওঠার পর সিট না পেয়ে তাদেরকে দীর্ঘক্ষণ দাঁড়িয়েই থাকতে হয় ভীড়ের মধ্যে। এতে ঠেলাঠেলি হলেও উপায় না থাকায় দীর্ঘক্ষণ মুখ বুঝেই নিরবে এসব উপেক্ষা করতে হয়েছে ওইসকল নারীকে।

জানা গেছে, ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ (পাগলা) পুরাতন সড়কের দুই পাশেই রয়েছে অসংখ্য কলকারখানা। যাতে প্রচুর সংখ্যক নারী কাজ করে থাকেন। তবে আনন্দ পরিবহনের মালিকপক্ষ প্রভাবশালী হওয়ায় তারা এ বিষয়ে কোনরূপ কর্ণপাত করেন না বলেই জানা গেছে।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

ফিচার -এর সর্বশেষ